Beta
শুক্রবার, ১ মার্চ, ২০২৪

নারী এমপি হওয়ার দৌড়ে শাওন অপু নিপুণ সুইটিরা

সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য হতে মনোনয়ন ফরম কিনেছেন চিত্রনায়িকা নিপুণ। ছবি : সংগৃহীত

জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের সদস্য হতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন দেশের বিনোদন অঙ্গণের এক ঝাঁক তারকা। মঙ্গলবার তারা ভিড় করেছিলেন আওয়ামী লীগের বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে।

আগামী ১৪ মার্চ সংরক্ষিত নারী আসনের ভোটগ্রহণের তারিখ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন।

এরই মধ্যে মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করেছে আওয়ামী লীগ। মঙ্গলবার ছিল তিনদিনব্যাপী মনোনয়ন ফরম বিক্রির প্রথম দিন। বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তারকাদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো।

সংসদের সংরক্ষিত ৫০টি আসনে ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়ন পেলে সহজেই সংসদ সদস্য হওয়া যাবে, তাই দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন আগ্রহীরা।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ফরম কিনতে এসেছিলেন শাওন। ছবি : সংগৃহীত

সকাল সোয়া ১০টার দিকে অভিনেত্রী সোহানা সাবা মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। বেলা ১১টার দিকে আসেন চিত্রনায়িকা নিপুণ আক্তার। এরপর একে একে ফরম কিনতে আসেন চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস, অভিনেত্রী তানভীন সুইটি, চিত্রনায়িকা ও পরিচালক মেহের আফরোজ শাওন, অভিনেত্রী শামিমা তুষ্টি, শিল্পী ও অভিনেত্রী উর্মিলা শ্রাবন্তী করসহ অনেকে।

একাদশ সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে অভিনেত্রী সুবর্ণা মুস্তফা এমপি হয়েছিলেন। এছাড়া কণ্ঠশিল্পী মমতাজ ছিলেন ওই সংসদের নির্বাচিত এমপি।  

মঙ্গলবার প্রথম দিনেই ৮১০টি মনোনয়ন ফর্ম বিক্রি করেছে আওয়ামী লীগ। যার মাধ্যমে দলের ৪ কোটি ৫ লাখ টাকা আয় হয়েছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান।

আওয়ামী লীগের ফরম কিনতে এসে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন অপু বিশ্বাস। ছবি : সংগৃহীত

সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরমের দাম ধরা হয়েছে ৫০ হাজার টাকা। কার্যালয়ের দ্বিতীয় তলায় ঢাকা, ময়মনসিংহ, সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের মনোনয়ন ফরম বিক্রি করা হচ্ছে। আর তৃতীয় তলায় বিক্রি হচ্ছে রংপুর, রাজশাহী খুলনা ও বরিশাল বিভাগের মনোনয়ন ফরম।

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৪টার মধ্যে এসব মনোনয়ন ফরম জমা দিতে হবে।

বিকালে সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনের তফসিল ঘোষণা করে কমিশন। তফসিল অনুযায়ী, ভোট ১৪ই মার্চ।

সংরক্ষিত আসনের এমপি হতে ফরম কিনেছেন সোহানা সাবা ও শামিমা তুষ্টি। ছবি : সংগৃহীত

নারী আসনের ভোটের তফসিল ঘোষণা করলেও এ ভোট আয়োজন করতে হয় না। কারণ প্রার্থিতা প্রত্যাহারের দিনই চূড়ান্ত হয়ে যাবে সংসদে সংরক্ষিত আসনে কোন কোন নারী বসতে যাচ্ছেন।

সংবিধানের চতুর্দশ সংশোধনী অনুযায়ী, সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে একটি দল থেকে নির্দিষ্ট সংখ্যক নারী সংসদ সদস্যকে সুযোগ দেওয়া হবে; এবং তা হবে সংসদে ঐ দলের কতজন প্রতিনিধি রয়েছেন তার অনুপাতে।

অর্থাৎ একটি রাজনৈতিক দলের ৬ জন যদি নির্বাচিত সংসদ সদস্য হন, তাহলে তার বিপরীতে সেই দলের একজন প্রার্থী সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য হবেন।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist