Beta
সোমবার, ১৫ এপ্রিল, ২০২৪

মজুতদারদের সঙ্গে বিএনপির যোগসাজশ আছে কিনা দেখা হচ্ছে : কাদের

মতবিনিময় সভার আগে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ছবি : সকাল সন্ধ্যা
মতবিনিময় সভার আগে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ছবি : সকাল সন্ধ্যা

মজুতদারদের সঙ্গে বিএনপির যোগসাজশ আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণ যুব মহিলা লীগ এবং মহিলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মতবিনিময় শুরুর আগে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, “রমজান মাসে সরকারকে বিব্রত করার জন্য সিন্ডিকেট থাকতে পারে। আমাদের খতিয়ে দেখতে হবে এ ধরনের অপকর্মের সাথে বিএনপির সম্পৃক্ততা আছে কি না। তারাই এসব করে অগ্রযাত্রাকে বাধাগ্রস্ত করার জন্য সরকারকে বিব্রত করছে। এটা খতিয়ে দেখয়ে হবে।”

তিনি বলেন, “রাজনৈতিক দল হিসেবে বিরোধী দলের ভূমিকায় তাদের সমস্ত প্র‍য়াস যখন ব্যর্থতায় পর্যবসিত হয়েছে, তখন তারা অন্যান্য অনেক কিছুতে জড়িয়ে সরকারকে বিব্রত করার এবং সরকারের কর্মকাণ্ডকে বাধাগ্রস্ত করার জন্য অবিরাম চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।”

চলমান বৈশ্বিক পরিস্থিতির প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, “অর্থনৈতিক সংকট সারাবিশ্বে। আজকে যে অস্থিরতা চলছে, কখনও কখনও মনে হয় গোটা বিশ্বটাই রণক্ষেত্র। কথা হচ্ছে সরকার বিষয়টাকে কীভাবে হ্যান্ডেল করছে। ক্রাইসিস মোকাবেলা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার ভালো করেই করছে।”

কোনও দেশেরই দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে নেই দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, “সিঙ্গাপুরে বাজারের যে পরিস্থিতি, পণ্যের দাম দুই গুণ, তিন গুণ, চার গুণ বেড়ে গেছে।  আমাদের দেশে আমরা দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণের ব্যাপারে চেষ্টা করছি। এখানে সরকার নিষ্ক্রিয় নেই।”

নির্বাচনে পর মার্চ মাসে দুর্ভিক্ষ হবে- বিএনপির এমন দাবির প্রসঙ্গ টেনে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “কোথায় দুর্ভিক্ষ? আমাদের পার্চেজিং পাওয়ার (ক্র‍য়ক্ষমতা) আছে। আলোকসজ্জা শুরু হয়ে গেছে শহর থেকে গ্রাম পর্যন্ত। ঈদ শপিং শুরু হয়ে গেছে। হাতে তো পয়সা আছে। একটা লোক না খেয়ে মারা গেছে? তাহলে?”

তিনি বলেন, “মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপ ব্যতিক্রম কিছু নয়। সারা দুনিয়ায় এ সংকট চলছে। এ থেকে বিচ্ছিন্ন থাকবে বাংলাদেশ, তা ভাবার সুযোগ নেই।”

স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য যাওয়ার পর বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বুধবার এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি হাসপাতালে ভর্তি হলে বিদেশে নিয়ে তার উন্নত চিকিৎসার দাবি ওঠে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, “বেগম জিয়াকে নিয়ে বিএনপি বড় বড় কথা বলে। সরকারের সমালোচনা করে, কিন্তু বছরের পর বছর তত্ত্বাবধায়কের করা মামলায় আদালতে যখন ছিল, বিএনপি লিগ্যাল ব্যাটল (আইনি লড়াই) করতে ব্যর্থ হয়েছে।”

বিএনপি আইনি লড়াই না চালিয়ে শুধু বিচারকে প্রলম্বিত করেছে এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন, “বিচারকে বিলম্বিত করেছে। খালেদা জিয়ার বয়স হয়েছে। তাদের যে বিলম্বিত আচরণ, সেই আচরণে খালেদা জিয়া সাফার করছে।”

চেকআপ ঘরে বসে হবে না জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, “হাসপাতালে যেতে হবে। বিদেশে যাওয়ার সাথে চেকআপের কী সম্পর্ক? শেখ হাসিনার উদারতায় খালেদা জিয়া বাসায় বসে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এটা উদারতার বিষয়।”

উন্নত চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেওয়ার দাবি উঠতেই পারে মন্তব্য করে তিনি বলেন, “ তবে দাবির যৌক্তিকতা কতটুকু সেটাও ভেবে দেখতে হবে।”

সোমালিয়ার জলদস্যুদের বাংলাদেশি মালিকানাধীন জাহাজ ছিনতাইয়ের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে ওবায়দুল কাদের বলেন, “পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তৎপর আছে জাহাজ ছিনতাইয়ের ব্যাপারে। যোগাযোগ রক্ষা করে চলছে। সরকার তাদের ফিরিয়ে আনতে কাজ করছে। সরকারের পক্ষ থেকে যোগাযোগের কোনও ঘাটতি নেই।”

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist