Beta
সোমবার, ১৫ এপ্রিল, ২০২৪

বিশ্বের জমকালো ১০ বিয়ে

royal wedding

অনুষ্ঠান, ঐতিহ্য, রেওয়াজের ভিন্নতা থাকলেও পৃথিবীর সব দেশেই ‘বিয়ে’ সবচেয়ে আকাঙ্ক্ষিত উৎসব। জীবন ও প্রেমের উদযাপনের উপলক্ষ এই অনুষ্ঠানটি। খুব সাধারণ বিয়ে তো আমরা হরহামেশাই দেখি। কিন্তু জমকালো বিয়ে দেখার সৌভাগ্য সেই অর্থে সকলের জোটে না।

সম্প্রতি রিলায়েন্স ইন্ড্রাস্ট্রিজের মালিক মুকেশ আম্বানির ছেলে অনন্ত আম্বানির প্রাক-বিয়ে অনুষ্ঠানের খরচের বহর, শীর্ষ ধনী ব্যক্তিদের উপস্থিতি এবং আনুষ্ঠানিকতা নিকট অতীতেই হয়ে যাওয়া এরকম আরও বেশ কিছু জমকালো বিয়ের অনুষ্ঠানের ব্যাপারে অনেককেই আগ্রহী করে তুলেছে।

ছেলে অনন্ত আম্বানির এই প্রাক-বিয়ে অনুষ্ঠানে ১০০ মিলিয়ন ডলার কিংবা ১ হাজার ২০০কোটি টাকার মতো খরচ হয়েছে বলে ধারণা করছেন গণমাধ্যম কর্মী ও ওয়েডিং বিশেষজ্ঞরা।

প্রাক-বিয়েতেই এতো খরচ! কাজেই আম্বানিপুত্রের আসল বিয়ের অনুষ্ঠান নিঃসন্দেহে খরচের রেকর্ডকে ভাঙ্গবে বলে মনে করা হচ্ছে।

ক্যারিবিয়ান গায়িকা রিয়ানা বিয়েতে গান গাইতেই নিয়েছেন ৮ থেকে ৯ মিলিয়ন ডলার বা ৯৮ কোটি টাকার মতো। এর আগে মেয়ে ইশা আম্বানির বিয়েতে পারফরম্যান্স করেছিলেন আরেক আমেরিকান গায়িকা বিয়ন্সে। তাকে দিতে হয়েছিল ৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

দেখে নেওয়া যাক বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল বিয়েগুলো-

ক্রিস্টিনা অ্যাগুইলেরা ও জর্ডান ব্র্যাটম্যান

গায়িকা ক্রিস্টিনা অ্যাগুইলেরা এবং মিউজিক লেবেল এক্সিকিউটিভ জর্ডান ব্র্যাটম্যানের বিয়ে হয় ২০০৫ সালে। আগুইলেরা ছিলেন ২৪ বছরের তরুণী এবং ব্র্যাটমান ছিলেন ২৭ বছর বয়সী। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার নাপা ভ্যালির একটি আঙ্গুর বাগানে এ অনুষ্ঠানটি হয়েছিল।  তবে ২২ লাখ ডলার খরচ করে দুইজন যে বিয়েটি করেছিলেন, তার বিচ্ছেদ ঘটে মাত্র ৫ বছরেই।

এলিজাবেথ হার্লি ও অরুণ নায়ার

ব্রিটিশ মডেল-অভিনেত্রী এলিজাবেথ হার্লি ভারতীয় ব্যবসায়ী অরুণ নায়ারের সঙ্গে দুইবার গাঁটছড়া বাঁধেন। প্রথম বিয়ের অনুষ্ঠানটি হয়েছিল ২০০৭ সালে, যা যুক্তরাজ্যের সুডেলি ক্যাসেলে। দ্বিতীয়বার ছিল যোধপুরের উমেদ ভবন প্রাসাদে, যা নায়ারের হিন্দু ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী হয়েছিল। নায়ারের দ্বিতীয়বার বিয়ের অনুষ্ঠানে গান গাইতে এলটন জন উড়ে এসেছিলেন।

কিন্তু বছর চারেক পরে, অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার শেন ওয়ার্নকে এলিজাবেথের চুমুর ছবি প্রকাশ হওয়ার পরেই এই দম্পতি বিচ্ছেদ ঘটে। দ্বিতীয়বার বিয়েতে খরচ হয়েছিল ২৬ লাখ ডলার। 

পল ম্যাককার্টনি ও হিদার মিলস

সঙ্গীত কিংবদন্তি বিটলস তারকা পল ম্যাককার্টনি এবং উদ্যোক্তা হিদার মিলস ২০০২ সালে আয়ারল্যান্ডের একটি দুর্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। বিয়ের অনুষ্ঠানে ৩৬ লাখ ডলার খরচ হলেও তাদের বিয়ে টিকেছিল মাত্র বছর ছয়েক। 

এলিজাবেথ টেলর এবং ল্যারি ফোরটেনস্কি

হলিউডের কিংবদন্তি এলিজাবেথ টেলরের সঙ্গে নির্মাণ শ্রমিক ল্যারি ফোর্টেনস্কির দেখা হয়েছিল মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রে, যেখানে দুইজনেই গিয়েছিলেন চিকিৎসার জন্য। মিষ্টি প্রেমের এ গল্প পরিণতি পায় ১৯৯১ সালে। মাইকেল জ্যাকসনের নেভারল্যান্ড র‌্যাঞ্চে এই জুটির বিয়ে হয়। তারকাখচিত ওই ইভেন্টে খরচ হয়েছিল ৪০ লাখ ডলার। বিয়েটি ৫ বছর স্থায়ী হলেও, ২০১১ সালে অভিনেত্রী টেলরের মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তারা ভালো বন্ধু ছিলেন।

লাইজা মিনেলি ও ডেভিড গেস্ট

সেনশনাল গায়িকা লাইজা মিনেলি ২০০২ সালে নিউ ইয়র্কের ফিফথ অ্যাভিনিউতে এক জমকালো অনুষ্ঠানে কনসার্ট প্রমোটার ডেভিড গেস্টকে বিয়ে করেন। অতিথিদের তালিকায় ছিলেন মাইকেল জ্যাকসনের পরিবারের সবাই। এছাড়াও এলিজাবেথ টেলর এ অনুষ্ঠানে ছিলেন ‘অনার ম্যাট্রন’। সুপারস্টারদের মধ্যে আরও ছিলেন কুইন ব্যান্ডের গিটারিস্ট ব্রায়ান মে, লিয়াম নিসন, জোয়ান কলিন্স, গ্লোরিয়া গেনর, অ্যান্থনি হপকিন্স, মিয়া ফ্যারো প্রমুখ। যদিও এই দম্পতির সংসার টিকে ছিল মাত্র এক বছর। এ বিয়েতে খরচ হয়েছিল ৪২ লাখ ডলার।

চেলসি ক্লিনটন এবং মার্ক মেজভিনস্কি

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক রাষ্ট্রপতি ক্লিনটন ও তার স্ত্রী সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারির কন্যা চেলসি ক্লিনটন ২০১০ সালে ব্যাংকার মার্ক মেজভিনস্কিকে বিয়ে করেন। হাডসন নদীর পাড়ের মনোরম ভেনু ‘অ্যাস্টর কোর্টে’ অনুষ্ঠিত ওই বিয়েতে খরচ হয় ৫০ লাখ ডলার।

ওয়েন রুনি এবং কোলিন ম্যাকলাফলিন

ফুটবলার ওয়েন রুনি এবং কোলিন ম্যাকলাফলিনের বাগদান হয়েছিল ২০০৪ সালে ইতালির জেনোয়ার কাছে ‘অ্যাবে অব সারভারা’য়। দম্পতি এবং অতিথিদের মনোরঞ্জনে গান গাওয়ার জন্য আইরিশ ব্যান্ড ‘ওয়েস্টলাইফকে’-ই ৬ লাখ ৭০ হাজার ডলার দিতে হয়েছিল। রুনি ৬৪ জন অতিথিকে বিয়েতে নিয়ে যেতে পাঁচটি প্রাইভেট জেট ভাড়া করেছিলেন। তবে এ অনুষ্ঠান আয়োজনে যে ৮০ লাখ ডলার খরচ হয়েছিল, তার অর্ধেকেরও বেশি উঠে এসেছিল একটি ম্যাগাজিনের কাছ থেকে। তারা এ বিয়ের ছবির স্বত্ত্ব ৪২ লাখ ডলারে কিনে নিয়েছিল। বর্তমানে দুই ছেলে সন্তান নিয়ে এ দম্পতি সুখি জীবনযাপন করছেন।

প্রিন্স উইলিয়াম এবং কেট মিডলটন

প্রিন্স উইলিয়াম ও কেট মিডলটনের বিয়েটিকে ‘দ্য ওয়েডিং অব দ্য সেঞ্চুরি’ বলা হয়। অনুষ্ঠানটি ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। রাজসিক এ বিয়েতে খরচ হয়েছিল ৩৪০ কোটি ডলার। তিনটি সন্তানের বাবা-মা এই দম্পতি এখনও একসাথে রয়েছেন।

ভ্যানিশা মিত্তাল এবং অমিত ভাটিয়া

ভানিশা মিত্তাল বিশ্বের অন্যতম ধনী লক্ষ্মী মিত্তালের মেয়ে।  ভারতীয় বংশোদ্ভুত ব্যবসায়ী অমিত ভাটিয়ার সাথে তার বিয়ে হয় ২০০৪ সালে।

প্যারিসের কাছে ঐতিহাসিক ১৭ শতকের ‘শ্যাঁতো ভো লে ভেকোঁ’তে তাদের বিয়ের অনুষ্ঠানটি হয়েছিল। বিয়ের আগে বাগদান অনুষ্ঠানটি ভার্সাই প্রাসাদে হয়।

বিয়ের অনুষ্ঠানে গায়িকা ও অভিনেত্রী কাইলি মিনোগকে মাত্র আধঘণ্টা পারফর্ম করার জন্য দেওয়া হয়েছিল ৩ লাখ ৩০ হাজার ডলার। ৬৬০ কোটি ডলার খরচ করে এ বিয়ের অনুষ্ঠান হয়েছিল। বিয়ের মেয়াদ ছিল মাত্র ৯ বছর।

ভ্যানিশা মিত্তাল এবং অমিত ভাটিয়া

চার্লস এবং ডায়ানা

চার্লস-ডায়ানার বিয়ের চার দশক পেরিয়ে গিয়েছে। তবু রাজ পরিবারের ওই বিয়ের স্মৃতি এখনও অনেকেই বহন করে বেড়াচ্ছেন। অভিজাত ও জমকালো সেই বিয়ের অনুষ্ঠানের ধারেকাছে নাকি আর কোনও বিয়ে হয়নি।

১৯৮১ সালে চার্লস-ডায়ানার মধ্যে অনুষ্ঠিত ‘রয়্যাল ওয়েডিং’য়ে সারা পৃথিবী থেকে সাড়ে ৩ হাজার বিশিষ্ট ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন। এদের মধ্যে ছিলেন রাজনীতিবিদ, শিল্পী, বুদ্ধিজীবী, ধর্মগুরু এবং অন্যান্য দেশের রাষ্ট্রপ্রধান ও রাজ পরিবারের সদস্যরা।   

বিশ্বের ৭৫ কোটি দর্শক ওই বিয়ের অনুষ্ঠানটি সরাসরি টিভিতে দেখেন। এখন পর্যন্ত এটিই সবচেয়ে ব্যয়বহুল বিয়ের অনুষ্ঠান ছিল। প্রিন্সেস ডায়ানার বিয়ের গাউনটি ছিল ১০ হাজার মুক্তাখচিত। এই রাজ দম্পতির বিচ্ছেদ হয় ১৯৯৬ সালে। পরের বছরই প্যারিসে এক গাড়ি দুর্ঘটনায় মারা যান ডায়ানা।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist