Beta
সোমবার, ৪ মার্চ, ২০২৪

এশিয়া কাপ : বাড়তি খরচ মেটাতে পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কার ‘টানাটানি’

২০২৩ সালের এশিয়া কাপের আয়োজক ছিল পাকিস্তান। কিন্তু রাজনৈতিক বৈরিতায় ভারত প্রতিবেশী দেশটিতে যেতে না চাওয়ায় অন্য সিদ্ধান্তে যেতে হয় এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলকে (এসিসি)। আয়োজক পাকিস্তানই থাকে, তবে ‘হাইব্রিড’ পদ্ধতির এশিয়া কাপ হয় পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কায়। দুই দেশে টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে গিয়ে বাড়তি ৪৫ কোটি টাকা খরচ হয়েছে। এখন সমস্যা বেঁধেছে এই খরচ মেটানো নিয়ে। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) ও শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট (এসএলসি) কেউই এর দায় নিতে রাজি নয়!

ওয়ানডে বিশ্বকাপের বছরে এশিয়া কাপ আয়োজিত হয়েছিল ৫০ ওভারের ফরম্যাটে। এই প্রতিযোগিতা নিয়ে কত নাটকই না হয়েছিল! ভারত ক্রিকেট দল পাকিস্তানে খেলতে যাবে না, এই সিদ্ধান্তে পিসিবি জানিয়ে দিয়েছিল তারা ভারতের বিশ্বকাপে দল পাঠাবে না। অনেক জলঘোলার পর ‘হাইব্রিড’ পদ্ধতির এশিয়া কাপ আয়োজনে একমত হয় পাকিস্তান।

পাকিস্তানকে আয়োজক রেখেই শ্রীলঙ্কার মাটিতে হয় এশিয়া কাপের বেশিরভাগ ম্যাচ। দুই দেশ মিলিয়ে টুর্নামেন্ট আয়োজন করায় হোটেল, ভেন্যু ফি, ভ্রমণ ও চার্টার্ড ফ্লাইটের খরচ বেড়ে যায়। ভারতীয় বার্তা সংস্থা পিটিআইয়ের খবর, সব মিলিয়ে বাড়তি খরচের পরিমাণ প্রায় ৪৫ কোটি টাকা। এই খরচ মেটানো নিয়েই নতুন করে জলঘোলা।

গত সপ্তাহে ইন্দোনেশিয়ার বালিতে বসেছিল এসিসির সভা। সেখানে অর্থ পরিশোধের ব্যাপারে ছোটখাটো একটা ‘ঝগড়া’-ই নাকি হয়েছে। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড জানিয়ে দিয়েছে, বাড়তি খরচের কোনও দায় নেবে না তারা, কারণ এশিয়া কাপের আয়োজক তারা নয়। অন্যদিকে পিসিবির দাবি, এশিয়া কাপ তাদের দেশ থেকে সরিয়ে নিয়ে গেছে এসিসি। ফলে বাড়তি খরচ হলে সেটার দায়ভার এসিসির ওপরই পড়ে।

ওই বৈঠকে উপস্থিত থাকা এসিসির এক সদস্য পিটিআইকে জানিয়েছে, এসিসির সভাপতি জয় শাহ পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন, এসিসি গোটা টুর্নামেন্টই শ্রীলঙ্কায় আয়োজন করতে চেয়েছিল। কিন্তু আয়োজক স্বত্ব নিজেদের কাছে রেখে চারটি ম্যাচ আয়োজন করে। যেহেতু টুর্নামেন্টের আয়োজক পাকিস্তান, ফলে বাড়তি খরচের দায়ভার পিসিবির।

সূত্রটি বলেছে, “যখন আর্থিক বিষয়াদি নিয়ে আলোচনা করছিল পিসিবির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান খাওয়ার শাহ ও প্রধান নির্বাহী সালমান নাসির, সেসময় উপস্থিত ছিলেন জয় শাহ ও এসএলসির সদস্যরা। বৈঠকে জয় শাহ পিসিবির কর্তাদের বলেছেন, আয়োজক পাকিস্তান যেহেতু শ্রীলঙ্কা থেকে ভেন্যু ও সুযোগ-সুবিধা নিয়েছে, সেহেতু তাদের বকেয়া পরিশোধ করতে হবে।”

ওই সূত্র আরও নিশ্চিত করেছে, এসএলসির সভাপতি শামি সিলভা এসিসিকে জানিয়েছেন, হোটেল ভাড়া ও চার্টার্ড বিমানের ভাড়া এখনও পরিশোধ করেনি পিসিবি। জয় শাহ ব্যাপারটি সরাসরি পিসিবির সঙ্গে আলোচনা করার পরামর্শ দিয়েছেন এসএলসিকে।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist