Beta
বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই, ২০২৪
Beta
বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই, ২০২৪

মাদক মামলায় সহজে জামিন, অ্যাটর্নি জেনারেলের বিস্ময়!

হাইকোর্ট
হাইকোর্ট
Picture of প্রতিবেদক, সকাল সন্ধ্যা

প্রতিবেদক, সকাল সন্ধ্যা

মাদক মামলায় খুব সহজে উচ্চ আদালত থেকে জামিন পেয়ে যাওয়ায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন। অথচ ফৌজদারি আইনে সর্বোচ্চ সাজা পাওয়ার মতো অপরাধ এসব।

অপরাধীরা সহজে জামিন পেয়ে যাচ্ছে দেখে দ্রুত আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে গিয়ে জামিন ঠেকান রাষ্ট্রের এই প্রধান আইন কর্মকর্তা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান তিনি।

অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, “সর্বনিম্ন ৫০ গ্রাম থেকে সর্বোচ্চ ১ কেজি হেরোইনের ২৫টি মামলায় হাইকোর্ট জামিন দিয়েছেন। এটা দেখে আশ্চর্য হয়ে গেলাম। এত পরিমাণ মাদকের মামলায় এত সহজে জামিন হয়ে যায় কীভাবে! বিষয়টি জানতে পেরে সঙ্গে সঙ্গে আমরা সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে যাই। সেখানে আবেদন করে বুধবার কিছু জামিন স্থগিত করিয়েছি। আজকে বৃহস্পতিবার আরও কিছু মামলায় জামিন স্থগিত করালাম। সবমিলে মোট ২৫টি মামলায় চেম্বার আদালত থেকে জামিনাদেশ স্থগিত করা হয়েছে।”

অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, “এই মামলাগুলোর শাস্তি হচ্ছে মৃত্যুদণ্ড। ২৫ গ্রামের বেশি হলে শাস্তি, যেখানে এক কেজিও রয়েছে। আদালতকে এই ধরনের মামলায় সিদ্ধান্তে আসতে হবে যে, আসামির খালাস পাওয়ার সম্ভাবনা আছে। বিচারক আইন দেখবেন, সমাজের দিকে তাকাতে হবে। এত পরিমাণ মাদকের মামলায় যদি ছেড়ে দেওয়া হয় তাহলে সমাজের কী অবস্থা হবে? এটা বিবেচনায় রাখতে হবে। মাদকের মামলা কঠোরভাবে দেখতে হবে। কারণ মাদক সমাজকে ধংস করে দেয়। সরকার এ ক্ষেত্রে কঠোর আইন করে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড রেখেছে। যেখানে মৃত্যুদণ্ডের বিধান আছে সেই মামলার জামিনের ক্ষেত্রে আদালতকে তার এখতিয়ার যথাযথভবে ব্যবহার করতে হবে।

“দুই বছর, ছয় মাস ধরে জেলে আছে, জামিনের জন্য এটা কোনও কারণ হতে পারে না। দেখতে হবে তার কাছে মাদক পাওয়া গেছে কি না, চার্জশিটে কী আছে, অন্য সাক্ষী কী বলছে?”

২৫টি মামলার বিষয়ে তিনি জানান, এখানে অধিকাংশ মামলায় তাদের কাছ থেকে (আসামিদের) সরাসরি (হেরোইন) উদ্ধার করা হয়েছে। প্রমাণিত হলে অধিকাংশ মামলায় আসামিদের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড হবে বলেও মনের করেন তিনি।

এর আগে আপিল বিভাগের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের চেম্বার জজ আদালত ওই ২৫ মামলায় আসামিদের হাইকোর্টের দেওয়া জামিন স্থগিত করে দেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ১১ ও ১২ মার্চ বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কাজী ইবাদত হোসেনের হাইকোর্ট বেঞ্চ থেকে দুই দিনে ২৫টি মামলায় আসামিরা জামিন নিয়েছেন। যেখানে ৫০ গ্রাম হেরোইন থেকে ১ কেজির বেশি হেরোইনসহ বিভিন্ন মাদক মামলার আসামি রয়েছে। 

বিফ্রিংয়ের অ্যাটর্নি জেনারেলের সঙ্গে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো.সারওয়ার হোসেন, এ কে এম আমিন উদ্দিন ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মোহাম্মদ সাইফুল আলম।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত