Beta
সোমবার, ৪ মার্চ, ২০২৪

মামলা তুলতে সেই আয়ানের পরিবারকে ‘প্রাণনাশের’ হুমকি

আয়ান
আয়ানের এই হাসিমুখ আর দেখবে না পরিবার।

খৎনা করাতে গিয়ে শিশু আয়ান আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় দায়ের করা মামলা তুলে নিতে তার পরিবারকে বারবার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় রবিবার দুপুরে শাহবাগ থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন আয়ানের বাবা মো. শামীম আহমেদ।

বিষয়টি নিশ্চিত করে শাহবাগ থানার ওসি মোস্তাজিরুর রহমান বলেন, “হুমকির অভিযোগে জিডি হয়েছে। এখন আদালতের অনুমতি সাপেক্ষে বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

সকাল সন্ধ্যাকে শামীম আহমেদ বলেন, ‘মামলা তুলে নিতে আমাকে ও আমার পরিবারকে বারবার হুমকি দেওয়া হচ্ছে ও ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। মামলার পর থেকে নারায়ণগঞ্জে আমার বাড়ির সামনে অজ্ঞাত কয়েকজন মহড়া দিচ্ছে। গত শুক্রবার অজ্ঞাত ২ জন আমার বাসায় গিয়েও হুমকি দিয়েছে। তার আগে গত বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের ভেতরে ক্যাফেটেরিয়ার সামনে শতশত মানুষের মধ্যেই আমাকে হুমকি দেওয়া হয়। সব শেষে রবিবার আবারও হুমকি পেলাম।”

রবিবারের হুমকির বিষয়ে তিনি বলেন, “সকালে সুপ্রিম কোর্ট হাইকোর্ট বিভাগে রিট পিটিশনের শুনানিতে এসেছিলাম। পরে সোয়া ১২টার দিকে হাইকোর্ট মাজার গেইট থেকে হেঁটে বাংলাদেশ শিশু একাডেমিতে আসার পথে ফুটপাতে ৩০-৪৪ বছর বয়সী ৬-৭ জন অজ্ঞাত ব্যক্তি আমার পথ আটকায়। ইউনাইটেড হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সমঝোতার চাপ দিয়ে তারা বলে, ‘মামলা তুলে নাও, না হলে বড় ক্ষতি হবে।’ এরপর আমি শাহবাগ থানায় গিয়ে সাধারণ ডায়েরি করেছি।”

এসময় মামলা তুলে না নিলে অফিসে যাওয়ার সময় যে কোনও ধরনের ক্ষতি করবে বলেও হুমকি দিয়েছে বলে জানান শামীম আহমেদ। তিনি বলেন, “আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। এসব ঘটনায় আমি এবং আমার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। বিবাদীরা যেকোনও সময় আমার ও আমার পরিবারে যে কোনও বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি করতে পারে বলে ভয় পাচ্ছি। এখন হুমকির ঘটনায় রুপগঞ্জ থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছি।’

গত ৩১ ডিসেম্বর খৎনা করানোর জন্য বাড্ডার ইউনাইটেড মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় সাড়ে ৫ বছর বয়সী শিশু আয়ানকে। ওই দিনই অস্ত্রোপচারের জন্য দেওয়া অ্যানেসথেশিয়ার পর আর চোখ খোলেনি সে। পুরো এক সপ্তাহ কোমায় থাকার পর গত ৭ জানুয়ারি রাত সাড়ে ১১টার দিকে মৃত্যুবরণ করে শিশু আয়ান আহমেদ।

এ ঘটনায় গত ৯ জানুয়ারি শামীম আহমেদ বাদি হয়ে হাসপাতালের দুজন চিকিৎসকের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা পরিচালক, চিকিৎসক, কর্মকর্তা ও কর্মচারির বিরুদ্ধে অবহেলাজনিত কারণে সন্তানের মৃত্যুর ঘটনায় বাড্ডা থানায় মামলা দায়ের করেন।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist