Beta
রবিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২৪

ইতিবাচক ফুটবলের আশায় কুয়েতে জামাল ভূঁইয়ারা

সৌদি আরবের বিমানবন্দরে কোচ ও জাতীয় দলের ফুটবলাররা। ছবি : বাফুফে।
সৌদি আরবের বিমানবন্দরে কোচ ও জাতীয় দলের ফুটবলাররা। ছবি : বাফুফে।

জাতীয় ফুটবল দলের সৌদি আরবে কন্ডিশনিং ক্যাম্প শেষ। আগামী ২১ মার্চ কুয়েতে ফিলিস্তিনের বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। এই ম্যাচ খেলতে রবিবার কুয়েতে পৌঁছে গেছেন জামাল ভূইয়ারা।

শুরুতে কুয়েতের ভিসা পাওয়া নিয়ে একটু অনিশ্চয়তার মধ্যেই ছিল বাংলাদেশ দল। যদিও শেষ পর্যন্ত সবাই কুয়েতের ভিসা পেয়েছেন। বোর্ডিং বন্ধ হওয়ার  একেবারে শেষ মুহূর্তে বাংলাদেশের দুই ফুটবলার চন্দন রায় ও মোহাম্মদ রফিক কুয়েতের ভিসা হাতে পান।

বাংলাদেশ ফুটবল দল কুয়েতে যাওয়ার আগে সৌদি আরবের বিমানবন্দরে। ছবি: বাফুফে।

 এই দুই জনের শেষ মুহূর্তের ভিসায় পুরো দলই সৌদি থেকে কুয়েতের ফ্লাইটে উঠতে পারে। এক মাস আগে কুয়েত ফুটবল ফেডারেশনকে বাফুফে দলের পূর্ণাঙ্গ তালিকা দিলেও একেবারে অন্তিম মুহূর্তে ভিসা পেয়েছে বাংলাদেশ দল।

বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের যৌথ বাছাইয়ের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে ১৫ দিন আগে সৌদি আরবে যায় বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। সেই প্রস্তুতির অংশ হিসেবে আফ্রিকার দল সুদানের সঙ্গে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছেন জামাল ভূঁইয়ারা। প্রথম ম্যাচে গোলশূন্য ড্র করে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচে বাংলাদেশ হারে ৩-০ গোলে।

দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ শেষে সেখান থেকে ইতিবাচক অনেক কিছু দেখছেন বাংলাদেশ কোচ হাভিয়ের কাবরেরা, “প্রত্যাশা অনুযায়ী সৌদি আরবের ক্যাম্পে দারুণ অভিজ্ঞতা হয়েছে। এখানে ক্যাম্প করার সুযোগ পেয়ে আমরা খুশি ছিলাম, গত বছরও এখানে ক্যাম্প করেছিলাম। বছর জুড়ে যে ধারণা নিয়ে কাজ করেছি, সেটার উন্নতির জন্য এখানকার সুযোগ সুবিধা ভালো। নতুন খেলোয়াড়দের জন্য এ বছরের ভিত তৈরি করে দেবে এই ক্যাম্প।’

সৌদি আরবের প্রস্তুতি থেকে ইতিবাচক দিক খুঁজছেন কোচ, “সুদানের বিপক্ষে এক ম্যাচ ড্র করেছি। একটি ম্যাচে হেরেছি। এগুলো থেকে আমরা ইতিবাচক যেসব দিক খুঁজে পেয়েছি সেটা মূল ম্যাচে করে দেখাতে হবে। ইতিবাচক বিষয় হচ্ছে, দলে অনেক তরুণ ও নতুন খেলোয়াড় এসেছে; যারা আমাদের ধ্যান-ধারণা, পরিকল্পনার সঙ্গে মানিয়ে নিয়েছে এবং খুব ভালোভাবে সাড়া দিচ্ছে।’

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist