Beta
সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

অসুস্থ মাকে বিদেশ থেকে পাঠানো টাকা মিলল ৪ বছরে

আগৈলঝাড়ার রিনা বেগম সকাল সন্ধ্যাকে জানিয়েছেন, তখন ওই টাকা না পেয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছিলেন তারা। মায়ের চিকিৎসা করাতে হয় সমিতি থেকে ঋণ নিয়ে। তাদের মা এখন ভালো আছেন।

সৌদি আরব থেকে চার বছর আগে অসুস্থ মায়ের চিকিৎসার জন্য বোনের অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠিয়েছিলেন বরিশালের আগৈলঝাড়ার মেয়ে হেনা আক্তার। সেই টাকা তার বোন রিনা বেগমের অ্যাকাউন্টে এসেছে গত বুধবার। ব্যাংকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ভুলবশত রিনা বেগম নামেরই চাঁদপুরের এক নারীর অ্যাকাউন্টে চলে গিয়েছিল ওই টাকা।

আগৈলঝাড়ার রিনা বেগম সকাল সন্ধ্যাকে জানিয়েছেন, তখন ওই টাকা না পেয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছিলেন তারা। মায়ের চিকিৎসা করাতে হয় সমিতি থেকে ঋণ নিয়ে। তাদের মা এখন ভালো আছেন। নামের মিলের কারণে ব্যাংকের এমন ভুল হয়েছিল বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

রিনা বেগমের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তাদের বাড়ি আগৈলঝাড়া উপজেলার বাকাল গ্রামে, বাবার নাম গনি সরদার। তার বোন হেনা আক্তার পবিবারে সচ্ছলতা ফিরিয়ে আনতে দীর্ঘদিন সৌদি আরবে গৃহকর্মীর কাজ করছেন। মা রহিমা বেগম অসুস্থ হয়ে পড়লে চিকিৎসার জন্য ২০১৯ সালের ২ ডিসেম্বর আলরাজি মানি এক্সচেঞ্জ থেকে ৪৪ হাজার ৪৬৪ টাকা বোন রিনা বেগমের জনতা ব্যাংক আগৈলঝাড়া শাখার চলতি হিসাবে পাঠান হেনা আক্তার।

রিনা বেগম টাকা তুলতে গেলে ব্যাংকটির তৎকালীন ব্যবস্থাপক প্রদীপ কুমার বিশ্বাস টাকা আসেনি বলে একাধিকবার ফেরত দেন। এক পর্যায়ে রিনা বেগম আগৈলঝাড়া জনতা ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক বরাবর লিখিত আবেদন করেন। এরপর বিদেশ থেকে টাকা পাঠানোর তথ্য-প্রমাণ নিয়েও শাখা ব্যবস্থাপকের কাছে যান। তখনও অ্যাকাউন্টে টাকা আসেনি বলে রিনা বেগমকে বলেন ব্যবস্থাপক।

বর্তমান শাখা ব্যবস্থাপক শহিদুল হক যোগ দেওয়ার পর ২০২২ সালের ১৩ জুলাই জনতা ব্যাংকের ঢাকার প্রধান কার্যালয়ে চিঠি দিয়ে বিষয়টি জানান।

প্রধান কার্যালয় সম্প্রতি চিঠি দিয়ে জানিয়েছে, হেনা আক্তারের রেমিটেন্স ভুলবশত চাঁদপুরের জনতা ব্যাংকের বালিথুবা বাজার শাখায় রিনা বেগম নামে এক গ্রাহকের হিসাবে জমা হয়। ওই গ্রাহক টাকা তুলেও নিয়েছেন।

বুধবার জনতা ব্যাংকের চাঁদপুর জেলার বালিথুবা বাজার শাখার ব্যবস্থাপক মো. ওমর ফারুক আগৈলঝাড়া জনতা ব্যাংকের গ্রাহক রিনা বেগমের অ্যাকাউন্টে ৪৪ হাজার ৪৬৪ টাকাসহ অতিরিক্ত আরও ৮৮৯ টাকা প্রদান করেছে।

রিনা বেগম সকাল সন্ধ্যাকে বলেন, “বুধবার আমার মোবাইলে টাকার মেসেজ এসেছে। আমাদের মা এখন সুস্থ আছেন। তখন আমাদের টাকার খুব প্রয়োজন ছি‌ল, মা অসুস্থ ছি‌ল। টাকা না পেয়ে দিশেহারা হয়ে গিয়েছিলাম।

“স‌মি‌তি থে‌কে লোন করে চি‌কিৎসা করাতে হয়েছে। নামের মিলের কারণে এমন ভুল হয়েছে ব‌্যাংকের।”

আগৈলঝাড়া জনতা ব্যাংকের ব্যবস্থাপক মো. শহিদুল হক বলেন, উপজেলার বাকাল গ্রামের আমাদের গ্রাহক রিনা বেগমের চলতি হিসাব নং-১০২১০০৩২১০ এ তার বোন হেনা বেগম এর সৌদি আরব থেকে ৪ বছর পূর্বে পাঠানো ৪৪ হাজার ৪৬৪ টাকা ৬৭ পয়সা ভুল করে জনতা ব্যাংকের চাঁদপুর জেলার বালিথুবা বাজার শাখায় চলে যায়। ওই টাকাসহ অতিরিক্ত ৮৮৯ টাকা ২৯ পয়সা রিনা বেগমের অ্যাকাউন্টে জমা দিয়েছে চাঁদপুরের বালিথুবা বাজার শাখা।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জনতা ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের (বৈদেশিক শাখা) ডিজিএম মো. মাহাবুবুর রহমান বলেন, “আমরা জনতা ব্যাংকের ওই গ্রাহক রিনা বেগমের আগৈলঝাড়া শাখায় চলতি হিসাব নং-১০২১০০৩২১০ এ ৪৫ হাজার ৩৫৩ টাকা ৯৬ পয়সা পাঠিয়ে দিয়েছি। তার অ্যাকাউন্টে টাকা জমা হয়েছে।”

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist