Beta
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০২৪
Beta
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০২৪

২০২৪ সাল যেন শতকোটিপতিদের    

এ বছর বিশ্বে শতকোটিপতির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৭৮১ জনে। ছবি: ফোর্বস
এ বছর বিশ্বে শতকোটিপতির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৭৮১ জনে। ছবি: ফোর্বস
Picture of সকাল সন্ধ্যা ডেস্ক

সকাল সন্ধ্যা ডেস্ক

ধনকুবেরদের জন্য এ বছরটা বেশ পয়মন্ত। যুদ্ধ আর রাজনৈতিক অস্থিরতায় পূর্ব থেকে পশ্চিম গোলার্ধ জেরবার। মূল্যস্ফীতির লাগাম যেন কোনোভাবেই টেনে ধরা যাচ্ছে না। চারদিকে এত প্রতিকূল পরিস্থিতি সত্ত্বেও বিলিওনেয়ার অর্থাৎ শতকোটিপতিদের সম্পদ বা সংখ্যা কোনোটিই কিন্তু কমছে না। বরং লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। ২০২৪ সালে যেন ধনকুবেরদের সংখ্যার বিস্ফোরণ দেখছে বিশ্ব।

যুক্তরাষ্ট্রের সাময়িকী ফোর্বস বলছে, ২০২৪ সালে বিলিওনেয়ার ক্লাবের সদস্য বেড়েছে এবং শতকোটিপতিদের সম্পদের কলেবর আরও স্ফীত হয়েছে। এ বছরে বিলিওনেয়ারদের সম্পদের পুঞ্জীভবনকে রেকর্ড বলছে সাময়িকীটি।

রেকর্ড বলার কারণ হচ্ছে, এ বছর শতকোটিপতিদের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৭৮১ জনে। এত বিপুলসংখ্যক বিলিওনেয়ার এর আগে দেখা যায়নি। আগের বছর অর্থাৎ ২০২৩ সালে এ বছরের তুলনায় বিলিওনেয়ার কম ছিল ১৪১ জন।

ফোর্বসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এ বছরের ২ হাজার ৭৮১ জন শতকোটিপতির সম্পদের পরিমাণ এক করলে দাঁড়াবে ১৪ দশমিক ২ ট্রিলিয়ন বা ১৪ লাখ ২০ হাজার কোটি ডলার। আগের বছরের চেয়ে এ বছর তাদের সম্মিলিত সম্পদের পরিমাণ ২ লাখ কোটি বেড়েছে।

এছাড়া এবছর বিলিওনেয়ার ক্লাবের দুই-তৃতীয়াংশ সদস্যের সম্পদ ২০২৩ সালের চেয়ে বেড়েছে। এই ক্লাবের মাত্র এক-চতুর্থাংশ সদস্যের সম্পদ কমেছে।

লক্ষণীয় বিষয় হলো, শতকোটিপতি তালিকার প্রথম ২০ জনের সম্পদ উত্তরোত্তর বাড়তির দিকে। এই ২০ জনের সম্পদ সম্মিলিতভাবে ৭০ হাজার কোটি ডলার।      

এখন দেখা যাক, কোন দেশে সবচেয়ে বেশি বিলিওনেয়ার আছে।

এ বছর যুক্তরাষ্ট্রে শতকোটিপতির সংখ্যা ঠেকেছে ৮১৩ জনে, যা রেকর্ড। তাদের সম্পদের পরিমাণ এক করলে হবে ৫ লাখ ৭০ হাজার কোটি ডলার।                 

যুক্তরাষ্ট্রের পর আছে চীন। দেশটিতে এ বছর শতকোটিপতির সংখ্যা ৪৭৩ জন। তাদের মোট সম্পদের পরিমাণ ১ লাখ ৭০ হাজার কোটি ডলার।         

শতকোটিপতি দেশের তালিকায় ভারতের অবস্থান তৃতীয়। এটিও রেকর্ড।

এবার জানা যাক, এ বছর ধনীদের তালিকার শীর্ষে কারা আছেন। কাদের কাছে শত কোটি ডলার আছে।

২০২৪ সালে বিলিওনেয়ার তালিকায় শীর্ষে আছেন বার্নার্ড আর্নল্ট ও পরিবার। ফরাসি এই ব্যবসায়ী এ বছরের শুরুতে ইলন মাস্ককে হটিয়ে শীর্ষস্থান দখল করেন। ২৩৩ বিলিয়ন ডলার মূল্যের সম্পদ আছে তার। এরপর আছেন ইলন মাস্ক। তার সম্পদমূল্য ১৯৫ বিলিয়ন ডলার।

জেফ বেজোস, মার্ক জাকারবার্গ ও ল্যারি এলিসন তালিকায় যথাক্রমে তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে আছেন। তাদের সম্পদের পরিমাণ যথাক্রমে ১৯৪ বিলিয়ন ডলার, ১৭৭ বিলিয়ন ডলার ও ১৪১ বিলিয়ন ডলার।

ওয়ারেন বাফেট তালিকায় ষষ্ঠ স্থানে অছেন। তার সম্পদমূল্য ১৩৩ বিলিয়ন ডলার। এরপর সপ্তম ও অষ্টম অবস্থানে আছেন বিল গেটস ও স্টিভ বালমার। তাদের সম্পদের পরিমাণ যথাক্রমে ১২৮ বিলিয়ন ডলার ও ১২১ বিলিয়ন ডলার।

এশিয়া ও ভারতের শীর্ষ ধনী মুকেশ আম্বানি এবছর ১১৬ বিলিয়ন ডলার নিয়ে নবম স্থানে আছেন।  

ধনকুবের তালিকায় দশম স্থানে আছেন ল্যারি পেইজ। তার সম্পদমূল্য ১১৪ বিলিয়ন।

১১০ বিলিয়ন ডলার সম্পদ নিয়ে সের্গেই ব্রিন আছেন ১১তম স্থানে। ১২তম স্থানে আছেন মাইকেল ব্লুমবার্গ। তার সম্পদমূল্য ১০৬ বিলিয়ন ডলার।

শীর্ষ ধনী তালিকার ১৩তম ও ১৪তম অবস্থানে আছেন যথাক্রমে আমানসিও ওর্তেগা ও কার্লোস স্লিম হেলু ও পরিবার। তাদের সম্পদের পরিমাণ যথাক্রমে ১০৩ বিলিয়ন ডলার ও ১০২ বিলিয়ন ডলার।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত