Beta
সোমবার, ১৫ এপ্রিল, ২০২৪

বিএনপি নেতা আমানের জামিন, মুক্তিতে বাধা নেই

বিএনপি নেতা আমান উল্লাহ আমানকে বুধবার জামিন দেয় আপিল বিভাগ। ছবি: বাসস
বিএনপি নেতা আমান উল্লাহ আমানকে বুধবার জামিন দেয় আপিল বিভাগ। ছবি: বাসস

তথ্য গোপন ও জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় ১৩ বছরের সাজাপ্রাপ্ত বিএনপি নেতা আমান উল্লাহ আমানকে জামিন দিয়েছে আপিল বিভাগ।

প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানসহ পাঁচ বিচারপতির আপিল বিভাগ বুধবার তার জামিন মঞ্জুর করে। তবে জামিনের শর্ত হিসেবে বিদেশে যেতে হলে আদালতের অনুমতি নেওয়ার বাধ্যবাধকতা দিয়েছে আদালত।

আদালতে আমানের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। দুদকের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিন।

আদেশের পরে আইনজীবী মাহবুব উদ্দিন খোকন সাংবাদিকদের বলেন, “আপিল বিভাগ শুনানি শেষে আজ আমান উল্লাহ আমানকে জামিন দিয়েছে। এর ফলে এখন তার মুক্তিতে কোনও বাধা নেই।”

তথ্য গোপন ও জ্ঞাত আয়বহির্তভূ সম্পদ অর্জনের মামলায় ২০২৩ সালের ৩০ মে বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদারের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ আমান উল্লাহ আমানের ১৩ বছরের সাজা বহাল রেখে রায় দেয়।

এ রায়ের বিপক্ষে ওই বছরের ১২ সেপ্টেম্বর আপিল বিভাগে আবেদন করেন বিএনপির এই নেতা।

হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী নিম্ন আদালতে আমান উল্লাহ আমান আত্মসমর্পণ করলে গত বছরের ১০ সেপ্টেম্বর ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-১ এর বিচারক আবুল কাশেমের আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেয়।

২০০৭ সালের ৬ মার্চ সম্পদের তথ্য গোপন ও জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ঢাকার কাফরুল থানায় আমান উল্লাহ আমান ও তার স্ত্রী সাবেরা আমানের বিরুদ্ধে মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

ওই বছরের ২১ জুন আমানকে ১৩ বছর এবং তার স্ত্রী সাবেরা আমানকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেয় বিশেষ জজ আদালত।

এরপর ওই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করেন ওই দম্পতি। ২০১০ সালের ১৬ আগস্ট হাইকোর্ট তাদের খালাস দেয়।

তখন হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে আপিলে যায় দুদক। পরে আপিল বিভাগ ২০১৪ সালের ২৬ মে হাইকোর্টের রায় বাতিল করে আপিলটি পুনঃশুনানির নির্দেশ দেয়। এরপর হাইকোর্ট শুনানি শেষে গত বছর নিম্ন আদালতের সাজা বহাল রেখে রায় দেয়।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist