Beta
রবিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২৪

স্বাধীনতা দিবস ঘিরে বিএনপির তিন দিনের কর্মসূচি

ss-bnp-21-03-24

মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে তিন দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। দলটির কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে সাভার স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদন, মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশ ও আলোচনা সভা।

বৃহস্পতিবার গুলশানে দলের চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন কমিটির সভা শেষে এ কথা জানান কমিটির আহ্বায়ক মেজর হাফিজ উদ্দিন আহমেদ।

বিএনপির তিন দিনের কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, ২৬ মার্চ ভোরে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ সব কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল ৭টায় সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধের উদ্দেশ্যে যাত্রা এবং সেখানে পুস্পমালা অর্পণ, সাভার থেকে ঢাকায় ফিরে শেরে বাংলা নগর দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবরে পুস্পমালা অর্পণ।

২৫ মার্চ সকাল ১০-১২টা পর্যন্ত নয়া পল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশ এবং ২৭ মার্চ সকাল ১১টায় রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে আলোচনা সভা করবে বিএনপি।

সারাদেশে জেলা, উপজেলা, পৌরসভা, ইউনিয়ন পর্যায়ের সব কমিটি এবং দলের অঙ্গসংগঠনগুলোকে স্বাধীনতা দিবসের কর্মসূচি পালনের আহ্বান জানানো হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে পোস্টার প্রকাশ ও জাতীয় দৈনিকে বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ করা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি নেতা অবসরপ্রাপ্ত মেজর হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, “একাত্তরের যুদ্ধ ছিল গণতন্ত্র অর্জনের যুদ্ধ। আজ দেশে গণতন্ত্র নাই, মানুষের মৌলিক অধিকার নাই, বাক স্বাধীনতা নাই, সংবাদপত্রের মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নাই। পাঠ্যপুস্তকে বীরদের কথা লিখিত নাই। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে বিকৃত করা হয়েছে। স্বাধীনতা যুদ্ধে যাদের অবদান রয়েছে আমরা তাদের অবদানকে প্রাদপ্রদীপের আলোয় আনার চেষ্টা করব।”

পরে কমিটির সদস্য শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি দলের কেন্দ্রীয় কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, “আমরা একটি বিষয়ে শঙ্কিত। ধীরে ধীরে বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক শক্তিগুলোর সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়ে পড়তে পারে। বিশেষ করে মিয়ানমারের যুদ্ধের পর। মিয়ানমারে এখন অভ্যন্তরীণ সংগ্রাম চলছে যাতে বাইরের শক্তিগুলো ইনভলবড। ধীরে ধীরে বাংলাদেশও হয়ত আন্তর্জাতিক চাপে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়তে হতে পারে। তাই আমাদের যুবকদের প্রস্তুত থাকতে হবে।”

এজন্য ছাত্র-যুবকদের দক্ষিণ কোরিয়া, ইজরাইল ও অন্যান্য দেশের মতো সামরিক প্রশিক্ষণ দিয়ে সিনিজেন আর্মি করে তুলতে হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, “ভবিষ্যতে দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব কখনও বিনষ্ট হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিলে সাধারণ মানুষ যেন প্রতিরোধ করতে পারে।”

তিনি বলেন, “আগামী দিনে আবার নতুন করে স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষার জন্য, বিদেশী শক্তির হাত থেকে দেশবাসীকে মুক্ত রাখার জন্য, চিন্তার স্বাধীনতা, সাংস্কৃতিক স্বাধীনতা অর্জনের জন্য আমাদেরকে হয়ত ভূমিকা রাখতে হবে।”

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist