Beta
রবিবার, ৩ মার্চ, ২০২৪

তালা ভাঙল বিএনপি, চাবি গেল কই

তালা ভেঙে কার্যালয়ে ঢোকেন বিএনপি নেতাকর্মীরা। ছবি : সকাল সন্ধ্যা

একটানা আড়াই মাস বন্ধ থাকার পর তালা ভেঙে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে ঢুকেছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা। বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল রিজভীর নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা তালা ভেঙে কার্যালয়ে ঢোকেন। এ সময় তাদেরকে সরকারবিরোধী স্লোগান দিতে দেখা যায়।

পরে সেখানে উপস্থিত সাংবাদিকদের কাছে রিজভী দাবি করেন, কার্যালয়ে ঢুকতে তালা খোলার জন্য পুলিশের কাছে চাবি চেয়েও তারা পাননি। এ কারণে তালা ভেঙেই কার্যালয়ে ঢুকেছেন।

পুলিশ বলছে, বিএনপির লোকজনই কার্যালয়ের ফটকে তালা লাগিয়েছিল। তালার চাবি বিএনপির পার্টি অফিসের কর্মচারী শামীমের কাছে রয়েছে। তবে বিএনপির পার্টি অফিসের কর্মচারী মো. শামীম বলছেন, চাবি তার কাছে নেই।

গত ২৮ অক্টোবর নয়াপল্টন এলাকায় বিএনপির সমাবেশ ঘিরে পুলিশের সঙ্গে দলটির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়। এরপর থেকেই কেন্দ্রীয় কার্যালয় বন্ধ ছিল। বিএনপি অভিযোগ করে আসছিল, দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের ফটকে তালা ঝুলিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছিল পুলিশও।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, “গত ২৮ অক্টোবর বিএনপির শান্তিপূর্ণ মহাসমাবেশ পণ্ড করে পুলিশ এক নারকীয় তাণ্ডব চালিয়ে নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তালা লাগিয়ে দিয়েছিল। এই দুই মাসের অধিক সময়ে পুলিশ কাউকে এখানে ঢুকতে দেয়নি এবং কেউ আশপাশে ভিড়লে তাদেরকেও আটক করে নিয়ে গেছে।”

কার্যালয়ে লাগানো তালার চাবি নিয়ে পুলিশ অনেক ‘নাটক’ করেছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, “সেইদিনের তাণ্ডবের পর আপনারা দেখেছেন আপনাদের চোখের সামনে তালা লাগিয়ে পুলিশ চাবি নিয়ে যায়। এরপর কত নাটক ওরা করেছে। আমরা পুলিশের কাছে চাবি চেয়েছিলাম। সেটা তারা দেয়নি।”

তিনি বলেন, “দেশের একটি নিয়মতান্ত্রিক কার্যকর রাজনৈতিক দল বিএনপি। এই দল বারবার রাষ্ট্র পরিচালনা করেছে অত্যন্ত সুনামের সাথে, দক্ষতার সাথে। সেই দলের প্রধান কার্যালয় একটি মাফিয়াতন্ত্র, একটি মাফিয়া সরকার বন্ধ করে রেখেছে। সুতরাং পুলিশ চাবি না দেওয়াতে তালা ভেঙে আমরা ঢুকেছি।”

বিকাল ৩টায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা এই কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করবেন বলেও এ সময় জানান রিজভী।

পুলিশের কাছে চাবি চেয়ে না পাওয়ার যে অভিযোগ রুহুল কবির রিজভী করেছেন তার জবাবে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মতিঝিল জোনের উপকমিশনার (ডিসি) হায়াতুল ইসলাম খান সকাল সন্ধ্যাকে বলেন, পুলিশের পক্ষ থেকে তালা লাগানো হয়নি। তালা লাগিয়েছেন পার্টি অফিসের কর্মচারী শামীম। তার কাছেই চাবি রয়েছে।

তিনি বলেন, চাবি চেয়ে বিএনপির পক্ষ থেকে একটি চিঠি তারা পেয়েছেন। এরপর পুলিশের পক্ষ থেকে পল্টনে বিএনপি অফিসের কর্মচারীদের সাথে কথা হয়েছে।

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, “শামীমের কাছে যে চাবি রয়েছে তার প্রমাণ আমাদের কাছে আছে।”

এ বিষয়ে শামীমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি সকাল সন্ধ্যাকে জানান, চাবি তার কাছে নেই।

শামীম বলেন, “আমি তো অফিসের নিরাপত্তারক্ষী নই, আমি অফিসের স্টাফ। আমি কেন গেইটে তালা মারতে যাব? আমি তালা মারিনি, আর চাবিও আমার কাছে নেই।”

তার কাছে চাবি থাকার বিষয়টি পুলিশের মিথ্যাচার বলেও দাবি করেন তিনি।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist