Beta
শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

ঘরোয়া টুর্নামেন্টের সোহান নিজেকে আবারও চেনালেন

লোকাল লিগগুলোতে ভালো করা কোন ক্রিকেটারের বাংলাদেশ ক্রিকেটের বড় মঞ্চে খুব বেশি দেখা যায় না। সেখানে হাবিবুর রহমান সোহান ভিন্নরকম। কিছুদিন আগেই বিসিএলে ৪৯ বলে সেঞ্চুরি করেছিলেন। যা লম্বা ফরম্যাটে বাংলাদেশের দ্রুততম সেঞ্চুরি। সেই সোহানের ব্যাটে সিলেট স্ট্রাইকার্সের বিপক্ষে পিছিয়ে পড়েও ৩ উইকেটে ১৫৩ রানের দারুণ সংগ্রহ পেয়ে গেল খুলনা টাইগার্স।  

সিলেট স্ট্রাইকার্সের বিপক্ষে নবম ওভারে খুলনার ৩ উইকেট পড়ে যায় ৫৪ রানে। ওই অবস্থা থেকে এনামুল হক বিজয় ও সোহান ৯৯ রানের জুটি গড়ে দলকে দেড়শ রানের কোটা পার করান। বিজয় ৫৮ বলে ৬৭ রানে ও সোহান ৩০ বলে ৩টি করে ছক্কা ও চারে ৪৩ রানে অপরাজিত ছিলেন।

রাজশাহীর একটি টি-টোয়েন্টি লিগে ভালো করে নজর কেড়েছিলেন সোহান। খালেদ মাহমুদ সুজন তাকে তুলে আনেন গত বছর বিপিএলের। খুলনা টাইগার্সেই সুযোগ হয় সোহানের। সুজন ২০২৩ আসরে খুলনার কোচ ছিলেন।

ওই আসরে নতুন হিসেবে খুব একটা সুযোগ পাননি সোহান। মাত্র ৩ ম্যাচ খেলে রান করেছেন ৪০। তাতে পিছিয়ে পড়েননি এই ব্যাটার। এমনিতেই দেশের ক্রিকেটে পাওয়ার হিটার তেমন নেই। ঘরোয়া টি-টোয়েন্টিগুলোতে সেই কাজটা ধারাবাহিক করে যান সোহান। তাই এই ব্যাটারকে হারিয়ে যেতে হয়নি। ২০২৩ সালেই সুযোগ পেয়ে যান ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের দল গাজী গ্রুপ ক্রিকেটারসে। ১৫ ম্যাচে একটি করে সেঞ্চুরি ও ফিফটিতে করে ফেলেন ৩১৪ রান।

প্রিমিয়ার লিগে ভালো করলেও জাতীয় লিগে সুযোগ হয়নি সোহানের। তবে ডাক পেয়ে যান বিসিএলে পূর্বাঞ্চলে। দুই ম্যাচ খেলে ১৬৮ রান করেছেন। এর মধ্যে একটি রেকর্ডগড়া সেঞ্চুরি।

সোহানের জন্য জাতীয় দল এখনও অনেক দূরের পথ। তবে নিজের কাজটা ঠিকঠাক করে যাচ্ছেন এই ব্যাটার। শুক্রবার সিলেটের বিপক্ষে ১৪৩ স্ট্রাইকরেটে টি-টোয়েন্টিতে ক্যারিয়ার সেরা ৪৩ রান করেছেন। এর আগে তার সর্বোচ্চ ছিল ৩০। পাওয়ার হিটিংটা ধরে রেখে সামনে এগোতে থাকলে বাংলাদেশ দলে মিডলঅর্ডারে পাওয়ার হিটারের অভাবটা হয়তো মিটবে সোহানকে দিয়ে। 

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist