Beta
শুক্রবার, ১ মার্চ, ২০২৪

বিএসএফের দুঃখ প্রকাশ, আবারও প্রতিশ্রুতি

সেহেলী সাবরিন।

বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী হত্যাকাণ্ডের জন্য দুঃখ প্রকাশ করে ভবিষ্যতে এমন ঘটনা আর ঘটবে না বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ।

বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সেহেলী সাবরীন সাপ্তাহিক ব্রিফিংয়ে এতথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, “গত ২২ জানুয়ারি বিজিবির সিপাহি মোহাম্মদ রইসুদ্দিনের মৃত্যুতে বিএসএফ আনুষ্ঠানিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছে। বিএসএফ বলেছে যে এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে বিজিবি ও বিএসএফ এক সঙ্গে আগামী দিনে কাজ করবে বলে তারা আশা প্রকাশ করেছে।”

সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষীদের গুলিতে বাংলাদেশি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বহু দিন ধরে উদ্বেগ প্রকাশ করে আসছে দেশি-বিদেশি মানবাধিকার সংগঠনগুলো।

নয়া দিল্লির পক্ষ থেকে সীমান্তে হত্যা শূন্যে নামিয়ে আনার প্রতিশ্রুতি বিভিন্ন সময় দেওয়া হলেও তা থামছে না। এর মধ্যে গত ২২ জানুয়ারি বিজিবি সদস্যই খুন হন।

সীমান্ত হত্যাকাণ্ড বন্ধে মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগ নিয়ে সেহেলী সাবরীন বলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নয়া দিল্লি সফরে তা নিয়ে আলোচনা হবে।

হাছান মাহমুদ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়ার পর ৭ ফেব্রুয়ারি প্রথম ভারত সফরে যাচ্ছেন।

সফরে ঝুলে থাকা তিস্তা চুক্তি নিয়ে আলোচনা হবে কি না-জানতে চাইলে সেহেলী সাবরীন বলেন, “বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বিদ্যমান বিভিন্ন বিষয়ে সামগ্রিক আলোচনা হবে। তিস্তা পানি বণ্টন চুক্তি নিয়েও আলোচনা হবে বলে আশা করছি।”

বাংলাদেশের সমুদ্র বন্দর ব্যবহার নিয়ে ভারতের সঙ্গে চুক্তির বিষয়বস্তু জানতে চাইলে তিনি বলেন, ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের চট্টগ্রাম ও মোংলা বন্দর ব্যবহার নিয়ে ২০১৮ সালে চুক্তি হয়েছিল। গত বছর থেকে ভারত এই দুই বন্দর ব্যবহার করতে পারছে।

“এ ধরনের চুক্তির ক্ষেত্রে সাধারণভাবে যে সকল শর্তাবলী প্রযোজ্য হয়, এ চুক্তিও সে সকল বিষয় বিবেচনায় রেখে করা হয়েছে।”

রাখাইনে চলমান সংঘাত নিয়ে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কোনও যোগাযোগ হয়েছে কি না, তা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্রের কাছে জানতে চান সাংবাদিকরা।

তিনি বলেন, “রাখাইনে চলমান সংঘাত মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ বিষয়। তবে এই সংঘাতে বাংলাদেশ বা আমাদের নাগরিক যেন কোনওভাবে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় এবং নতুন অনুপ্রবেশ না ঘটে, সে বিষয়ে বিশেষভাবে নজর রাখা হচ্ছে।”

মিয়াানমারে বিদ্রোহীদের সঙ্গে সরকারি বাহিনীর সংঘাত চলছে। তাতে বাংলাদেশের ভেতরেও গোলা-বুলেট এসে পড়ায় সীমান্তে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে।

সেহেলী সাবরিন বলেন, ঢাকায় মিয়ানমারের দূতাবাসের সঙ্গে নিবিড় যোগাযোগ রাখছেন তারা। এছাড়া বিজিবির সঙ্গেও মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর যোগাযোগ রয়েছে।

পুলিশ খুনের মামলা নিয়ে দুবাইয়ে পালিয়ে থাকা আরাভ খানের ফেরত আনার অগ্রগতি জানতে চাইলে তিনি বলেন, “তার বিরুদ্ধে ইন্টারপোলের রেড নোটিস জারি আছে। প্রত্যাবাসনের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন। যত দ্রুত সম্ভব প্রত্যাবাসনের চেষ্টা করা হচ্ছে।”

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৮-১৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠেয় মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে অংশ নিতে জার্মানি যাচ্ছেন।

এ সম্মেলনের গুরুত্ব নিয়ে সেহেলী সাবরিন বলেন, “মূলত সমকালীন ও ভবিষ্যৎ নিরাপত্তার স্বার্থে উচ্চ পর্যায়ের নিয়মিত আলোচনার জন্য বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ফোরাম হিসেবে বিবেচিত এই সম্মেলন । প্রধানমন্ত্রীর এ সম্মেলনে অংশগ্রহণের মাধ্যমে বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ইস্যুতে বাংলাদেশের অবস্থা তুলে ধরার পাশাপাশি বিশ্বনেতৃবৃন্দের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকেরও সুযোগ তৈরি হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।”

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist