Beta
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০২৪
Beta
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০২৪

আনচেলত্তির ‘উচু পর্যায়ের’ রেফারির ‘সর্বনাশা সিদ্ধান্তে’ ক্ষুব্ধ টুখেল

রেফারি-৫
Picture of ক্রীড়া ডেস্ক

ক্রীড়া ডেস্ক

চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে পৌঁছে গেছে রিয়াল মাদ্রিদ। তবে তাদের ২-১ গোলের জয় ছাপিয়ে ফুটবল বিশ্বে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রেফারির বিতর্কিত সিদ্ধান্ত। শেষ মুহূর্তে ম্যাথিয়াস ডি লিটের গোল বাতিলের সিদ্ধান্তে রেফারিংয়ের ওপর আঙুল তুলেছে বায়ার্ন মিউনিখ। স্বভাবতই বিপরীত অবস্থানে রিয়াল মাদ্রিদ। তারা বরং রেফারির সিদ্ধান্তকে সম্মান জানিয়ে তাকে বসিয়েছে উঁচুতে।

সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগ ২-১ গোলে জিতেছে রিয়াল। দুই লেগ মিলিয়ে ৪-৩ অগ্রগামিতায় নিশ্চিত করেছে ওয়েম্বলির ফাইনাল। সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে শুরুতে এগিয়ে যাওয়ার পরও শেষ দিকের দুই মিনিটের ঝড়ে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে গেছে বায়ার্ন। এরপরও ফিরে আসার সম্ভাবনা জেগেছিল দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ের ১৩তম মিনিটে। ডি লিট বল জালে জড়ালেও অফসাইডে বাতিল হয় গোলটি।

বায়ার্ন ডিফেন্ডার বল জালে জড়ানোর আগেই লাইন্সম্যান অফসাইডের পতাকা তুলেছিলেন। রেফারিও বাঁশি বাজিয়ে দেন, সেকারণে রিয়ালের খেলোয়াড়রা খেলা থামিয়ে দিয়েছিলেন। বায়ার্নের খেলোয়াড়রা রেফারি সাইমন মার্চিনিয়াকের সিদ্ধান্তের আপত্তি জানান। কিন্তু কাজ হয়নি। একই সঙ্গে ভিএআরের সুযোগও হাতছাড়া হয়। কারণ রেফারি বাঁশি বাজিয়ে দেওয়াতে ভিএআরের সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা শেষ হয়ে যায়।

ডি লিটের গোলটি হলে ম্যাচের চিত্র পাল্টে যেতে পারতো। কারণ স্কোরলাইন তখন হতো ২-২। ম্যাচ চলে যেত অতিরিক্ত সময়ে। স্বভাবতই রেফারিংয়ের ওপর খেপেছে বায়ার্ন কোচ টমাস টুখেল। তবে রিয়াল কোচ আনচেলত্তির চোখে তিনি উচু পর্যায়ের রেফারি।

রেফারির সিদ্ধান্ত ঘিরে তৈরি হওয়া বিতর্ক প্রসঙ্গে রিয়াল কোচের বক্তব্য, “শেষ মুভটা পরিষ্কার ছিল। রেফারি বাঁশি বাজিয়েছেন, আমারও খেলা থামিয়ে দিয়েছি। এই রেফারি বিশ্বকাপ ফাইনালে রেফারিং করেছেন। তিনি উচু পর্যায়ের রেফারি। বায়ার্ন অফসাইড নিয়ে অভিযোগ করছে? ঠিক আছে, তাহলে আমরাও নাচোর বাতিল হওয়া গোল নিয়ে অভিযোগ করতে পারি। কারণ (জোশুয়া) কিমিচ নিজেই নিজকে ফেলে দিয়ে ডাইভ দিয়েছে।”

রিয়াল তখন ১-০ গোলে পিছিয়ে, নাচোর পায়ে লেগে দিক পাল্টে বল জড়িয়ে গিয়েছিল বায়ার্নের জালে। কিন্তু ভিআরএ-এর সাহায্য নিয়ে গোলটি বাতিল করেছিলেন রেফারি। রিপ্লেতে দেখা যায়, বল আসার আগেই কিমিচের মুখে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিয়েছেন নাচো।

আনচেলত্তি প্রশংসায় ভাসালেও রেফারি মার্চিনিয়াককে ধুয়ে দিচ্ছে বায়ার্ন। তাদের ক্ষোভের আগুন আরও বাড়িয়ে দিয়েছেন ডি লিটের গোলে অফসাইডের পতাকা তোলা লাইন্সম্যান। বায়ার্ন ডিফেন্ডার জানিয়েছেন, অফসাইডের পতাকা তোলায় লাইন্সম্যান তার কাছে ক্ষমা চেয়েছেন।

ক্ষমা চাওয়া প্রসঙ্গে কোচ টুখেল বলেছেন, “সর্বনাশা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন লাইন্সম্যান ও রেফারি। এই সিদ্ধান্তের কারণে আমরা বিশ্বাসঘাতকতার শিকার হয়েছি। এটা খুব কঠিন। এটা সেমিফাইনালের লড়াই, আমরা আমাদের সবটুকু দিয়ে লড়াই করেছি, (ফাইনালের) খুব কাছে পৌঁছেও গিয়েছিলাম। এখানে ক্ষমা চাইলেই সব শেষ হয়ে যায় না। কিন্তু কী করার আমরা ক্রীড়াবিদ, মেনে নিতেই হচ্ছে এবং রিয়ালকে শুভকামনা জানাতে হচ্ছে।”

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত