Beta
রবিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২৪

এনআইডি জালিয়াতি রোধে ‘জিরো টলারেন্স’ সিইসির

ss-cec-02-03-24

জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) জালিয়াতির সঙ্গে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) কর্মকর্তারা জড়িয়ে পড়লে তাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করেছেন সিইসি কাজী হাবিবুল আউয়াল।

সম্পত্তি বেহাত করার জন্য একাধিক এনআইডি করার প্রক্রিয়ার সঙ্গে যেসব কর্মকর্তা জড়িয়ে যাবেন তাদের পুলিশে ধরিয়ে দিতে দ্বিধানিত হবেন না বলেও জানান তিনি।

জাতীয় ভোটার দিবস উপলক্ষে শনিবার ঢাকার নির্বাচন ভবনে এক আলোচনা সভায় অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার। আলোচনায় অন্যান্য নির্বাচন কমিশনারসহ কমিশনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বর্তমানে জাতীয় পরিচয়পত্রের কারণে সম্পত্তি ভাগাভাগি নিয়ে সংকট দেখা যায় জানিয়ে হাবিবুল আউয়াল বলেন, “যারা অতি চালাক তারা একাধিক কার্ড করে ফেলেন। সতর্কতার সঙ্গে কাজ করবেন।”

নির্বাচনী কর্মকর্তাদের উদ্দেশে সংস্থাটির প্রধান বলেন, “হয়তো ভুল করে দিয়ে দিতে পারি। কিন্তু সচেতনভাবে অপরাধের অংশ হিসেবে যদি এটা করে থাকি, তাহলে আমাদের টলারেন্স জিরো হবে।”

কমিশন ওই ধরনের কর্মকর্তাদের পুলিশে হস্তান্তর করতে দ্বিধান্বিত হবে না বলেও জানান সিইসি।

এনআইডি এখন অনেকটাই সুষ্ঠু অবস্থায় এসে পৌঁছেছে বলে মত কাজী হাবিবুল আউয়ালের। তার মতে জাতীয় পরিচয়পত্রের গুরুত্বও অনেক বেড়েছে।

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের প্রসঙ্গ টেনে সিইসি বলেন, “একটা বড় দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেনি, আসেনি। তাই অনেক ভোটার না এসে থাকতে পারে। আমাদের কাজ হলো ভোটারদের ভোটাধিকার নিশ্চিত করা। সে দিক থেকে নির্বাচন কমিশনের ওপর বড় দায়িত্ব রয়েছে। আমাদের স্বাধীনভাবে ক্ষমতা প্রয়োগ করতে হবে।”

‘নির্বাচন শেষ হয়ে গেছে বলে দায়িত্ব শেষ হয়ে গেছে তা নয়’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, “আগামীতে যারা নির্বাচন কমিশনে আসবে তাদের জন্য একটা ক্ষেত্র তৈরি করে যেতে হবে।”

সভায় বেইলি রোডের অগ্নিকাণ্ডে প্রাণ হারানো নির্বাচন কমিশন বিটের সাংবাদিক অভিশ্রুতি শাস্ত্রীর মৃত্যুতে শোক জানান সিইসি। মৃতের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন তিনি।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist