Beta
রবিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২৪
জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

জলদস্যুদের সঙ্গে অন্য পক্ষের মাধ্যমে যোগাযোগ চলছে

হাছান
ঢাবির সিনেট ভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। ছবি : পিআইডি

বাংলাদেশি পতাকাবাহী জাহাজ এমভি আবদুল্লাহর নিয়ন্ত্রণ নেওয়া সোমালি জলদস্যুদের সঙ্গে অন্য পক্ষের মাধ্যমে যোগাযোগ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। তিনি বলেছেন, জাহাজটিসহ এর ২৩ নাবিককে বিপদমুক্ত করা এখন সরকারের প্রধান লক্ষ্য।

বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে এক অনুষ্ঠান শেষে মন্ত্রীকে জিম্মি জাহাজ প্রসঙ্গে প্রশ্ন করেন সাংবাদিকরা।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, বুধবার পর্যন্ত জলদস্যুদের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক কোনও যোগাযোগ স্থাপন করা সম্ভব হয়নি।

মন্ত্রী বলেন, “অন্য পক্ষের মাধ্যমে যোগাযোগ হচ্ছে। গোয়েন্দা সংস্থাগুলোও এটি নিয়ে তৎপর।”

কী কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এরই মধ্যে কুয়ালালামপুরে পাইরেসি রিপোর্টিং সেন্টার, নয়াদিল্লীতে ইন্ডিয়ান ফিউশন সেন্টার, যুক্তরাজ্যের মেরিটাইম ট্রেড অপারেশন (ইউকেএমটিও) এবং এশিয়ায় দস্যুতা ও সশস্ত্র ডাকাতি প্রতিরোধে আঞ্চলিক সহযোগিতা চুক্তির আওতায় সিঙ্গাপুরে অবস্থিত দপ্তরকে খবর দেওয়া হয়েছে। ঐ অঞ্চলে চলাচলরত যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, ভারত ও চীনের জাহাজগুলোকেও বাংলাদেশের জাহাজটির অবস্থা সম্পর্কে রিপোর্ট করা হয়েছে।

এ ঘটনাকে অত্যন্ত দুঃখজনক উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন, মন্ত্রিপরিষদ সভাতেও এ সম্পর্কে অনানুষ্ঠানিক আলোচনা হয়েছে।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় বেলা দেড়টার দিকে সোমালিয়ার জলদস্যুরা বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান কেএসআরএমের জাহাজ এম ভি আবদুল্লাহ দখল ও ২৩ জন বাংলাদেশি নাবিককে জিম্মি করে।

এক দশক আগে একই কোম্পানির এমভি জাহান মনি নামে একটি জাহাজ জলদস্যুরা নিয়ন্ত্রণে নিয়েছিল। তিন মাস চেষ্টার পর সেই জাহাজ এবং নাবিকদের উদ্ধার করা হয়েছিল।

আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে ঢাবি সিনেট ভবন মিলনায়তনে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা সেন্টার ফর জেন্ডার অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট স্টাডিজ আয়োজিত সেমিনারে বুধবার প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

‘ভবিষ্যৎ সমৃদ্ধি: স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে নারীর জন্য বিনিয়োগ’ শীর্ষক সেমিনারে জাতির সমৃদ্ধির জন্য নারীর উন্নয়ন ও কল্যাণের ওপর গুরুত্বারোপ করেন মন্ত্রী।

ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামালের সভাপতিত্বে সেমিনারে বাংলাদেশ এলায়েন্স ফর উইমেন লিডারশিপের প্রেসিডেন্ট নাসিম ফিরদাউস মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। আলোচনায় অংশ নেন বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজের মহাপরিচালক ড. বিনায়ক সেন ও ঢাবি সমাজকল্যাণ অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. জিয়া রহমান।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist