Beta
রবিবার, ১৪ জুলাই, ২০২৪
Beta
রবিবার, ১৪ জুলাই, ২০২৪

কারাগারে নাভালনির মৃত্যু, পুতিনকে দুষছেন বাইডেনরা

অ্যালেক্সেই নাভালনি
অ্যালেক্সেই নাভালনি
Picture of সকাল সন্ধ্যা ডেস্ক

সকাল সন্ধ্যা ডেস্ক

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কঠোর সমালোচক হিসেবে পরিচিত দেশটির প্রভাবশালী বিরোধীদলীয় নেতা অ্যালেক্সেই নাভালনি কারাগারে মারা গেছেন বলে জানিয়েছে রুশ কারা কর্তৃপক্ষ।

স্থানীয় সময় শুক্রবার কারাগারের ভেতরে কিছুক্ষণ হাঁটাহাঁটি করার পর নাভালনি হঠাৎ অচেতন হয়ে পড়েন জানিয়ে রাশিয়ার কারা কর্তৃপক্ষ বলছে, জরুরি ভিত্তিতে চিকিৎসক ডাকা হলেও তারা নাভালনির চেতনা ফেরাতে পারেননি এবং একপর্যায়ে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

৪৭ বছর বয়সী নাভালনি ২০২১ সাল থেকেই বিভিন্ন অভিযোগে কারাগারে ছিলেন, যেসব অভিযোগের বেশিরভাগই রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ছিল বলে দাবি সমালোচকদের।

একটি উগ্রপন্থী সংগঠন গড়ে তোলা এবং তাতে অর্থায়নের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করে গত বছরের আগস্টে নাভালনিকে ১৯ বছরের কারাদণ্ড দেয় রাশিয়ার একটি আদালত। এছাড়া প্যারোলে মুক্তির শর্ত লঙ্ঘন, জালিয়াতি ও আদালত অবমাননার অভিযোগে এর আগে তাকে ৯ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছিল।

গত বছরের শেষ দিকে নাভালনিকে আর্কটিক পেনাল কলোনিগুলোর একটিতে স্থানান্তর করা হয়, যা বিশ্বের সবচেয়ে কঠোর কারাগারগুলোর একটি হিসেবে পরিচিত। এই কারাগারেই সাজা খাটছিলেন নাভালনি। এর মধ্যেই শুক্রবার হঠাৎ তার মৃত্যুর খবর জানাল কারা কর্তৃপক্ষ।

নাভালনির মৃত্যু নিয়ে সন্দেহ স্ত্রীর

কারাগারে অ্যালেক্সেই নাভালনির মৃত্যুর খবর নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন তার স্ত্রী ইয়ুলিয়া নাভালনায়া। জার্মানিতে মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে তিনি বলেন, রাশিয়ার সরকারি সূত্র থেকে নাভালনির মৃত্যুর যে খবর জানানো হচ্ছে তার সত্যতা নিয়ে তিনি সন্দিহান।

কান্না চেপে ইয়ুলিয়া বলেন, “আমরা পুতিন এবং তার সরকারকে বিশ্বাস করতে পারি না। তারা সবসময়ই মিথ্যা বলেন।”

তবে নাভালনির মৃত্যুর খবর সঠিক হলে সেক্ষেত্রে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও তার সহযোগীরা রেহাই পাবেন না বলেও মন্তব্য করেন ইয়ুলিয়া।

সমালোচকদের আঙুল পুতিনের দিকে

অ্যালেক্সেই নাভালনিকে গত এক দশকে রাশিয়ার সবচেয়ে প্রভাবশালী বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে দেখা হতো। রাশিয়ার কারা কর্তৃপক্ষ তার মৃত্যুর খবর ঘোষণার পর রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সমালোচনায় মুখর হয়েছেন তার সমালোচকরা, বিশেষ করে পশ্চিমা দেশগুলোর নেতারা। তারা নাভালনির মৃত্যুর জন্য প্রেসিডেন্ট পুতিন ও তার সরকারকে দায়ী করছেন।

অ্যালেক্সেই নাভালনির মৃত্যুর ঘোষণা আসার পর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, আসলে তার সঙ্গে ঠিক কী ঘটেছে সে বিষয়ে ওয়াশিংটন অবগত নয়। তবে “পুতিন ও তার গুণ্ডারা এমন কিছু করেছেন যার কারণেই নাভালনির মৃত্যু হয়েছে— এটা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই।”

তিনি বলেন, “নাভালনি নির্বাসনে গিয়ে নিরাপদে বেঁচে থাকতে পারতেন। কিন্তু তা না করে তিনি নিজের কাজ অব্যাহত রাখতে রাশিয়ায় ফিরে গিয়েছিলেন। রাশিয়ায় ফিরে গেলে কারাবন্দি বা হত্যা করা হতে পারে— এমনটা জানা সত্ত্বেও তিনি ফিরে গিয়েছিলেন, কারণ রাশিয়ার জনগণের ওপর তার প্রচণ্ড আস্থা ছিল।”

পুতিনের কট্টর সমালোচক হিসেবে পরিচিত নাভালনির সাহসের প্রশংসা করে জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শোলজ পুতিনের প্রশাসনের কঠোর সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেন, “নাভালনির মৃত্যু পরিষ্কার করেছে যে, এটি (রাশিয়া) কী ধরনের শাসনব্যবস্থা।”

“তাকে (নাভালনি) সম্ভবত সাহস প্রদর্শনের মূল্য জীবন দিয়েই দিতে হলো”, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির পাশে দাঁড়িয়ে বলে জার্মান চ্যান্সেলর।

২০২০ সালে নাভালনিকে বিষপ্রয়োগের পর জার্মানি তাকে আশ্রয় ও চিকিৎসা দিয়েছিল। সেই সময়ের কথা উল্লেখ করে জার্মান চ্যান্সেলর জানান, নাভালনি বার্লিনে অবস্থানকালে তার সঙ্গে তিনি দেখা করেছিলেন।

মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে যোগ দিতে জার্মানিতে অবস্থানরত ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কিও নাভালনির মৃত্যুতে পুতিনের সমালোচনায় মুখর হয়েছেন। তিনি বলেন, “এটি নিশ্চিত যে পুতিনই তাকে হত্যা করেছে।”

জেলেনস্কি বলেন, “কে বাঁচল বা কে মরল, পুতিন তার পরোয়া করে না। তার (পুতিন) কাছে নিজের অবস্থান ধরে রাখাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। আর এ কারণে তার কোনও পদেই থাকা উচিত নয়। পুতিনের কাছ থেকে সব কেড়ে নেওয়া উচিত এবং তাকে তার কর্মের জন্য দায়বদ্ধ করা উচিত।”

ইউরোপীয় কমিশনের সভাপতি উরসুলা ফন দের লিয়েনও নাভালনির মৃত্যুর জন্য রুশ কর্তৃপক্ষকে দায়ী করেছেন।

অভিযোগ ভিত্তিহীন, বলছে রাশিয়া

কারাগারে রাশিয়ার বিরোধীদলীয় নেতা অ্যালেক্সেই নাভালনির মৃত্যুর জন্য রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও তার সরকারকে দায়ী করে সমালোচকদের, বিশেষ করে পশ্চিমা দেশগুলোর অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলছে রাশিয়া।

রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, নাভালনির মৃত্যু নিয়ে অভিযোগ তোলার মধ্য দিয়ে পশ্চিমারা মূলত নিজেদের চরিত্রই উন্মোচন করেছেন।

টেলিগ্রাম চ্যানেলে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা বলেন, “ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন এখনও জানা যায়নি। কিন্তু পশ্চিমারা ঠিকই নিজেদের মতো করে একটি উপসংহারে পৌঁছে গেছেন।”

সূত্র: বিবিসি, রয়টার্স, আল জাজিরা ও এনডিটিভি

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত