Beta
সোমবার, ৪ মার্চ, ২০২৪

‘জাদুকরের’ ছোঁয়ায় বদলে গেল ম্যান সিটি

পেপ গার্দিওলার ‘জাদুকর’ কেভিন ডি ব্রুইনা। ছবি: টুইটার

ম্যানচেস্টার সিটি তখন ২-১ গোলে পিছিয়ে। হারলেই শীর্ষে থাকা লিভারপুল থেকে পিছিয়ে পড়বে ৫ পয়েন্টে। পেপ গার্দিওলা তখন মাঠে নামিয়ে দিলেন তার ‘জাদুকর’কে। তিনি মাঠে নামলেন এবং বদলে দিলেন ম্যাচের চিত্র। সেই জাদুকর মানে কেভিন ডি ব্রুইনা আবারও প্রমাণ করলেন ম্যান সিটি এতদিন কী মিস করছিল!

ডি ব্রুইনার জাদুকরী পারফরম্যান্সে শেষ পর্যন্ত নিউক্যাসলের মাঠ থেকে ৩-২ গোলে জিতে ফিরেছে ম্যানচেস্টারের ক্লাবটি। তাতে ২০ ম্যাচ শেষে ৪৩ পয়েন্ট নিয়ে প্রিমিয়ার লিগের দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। সমান ম্যাচে ৪৫ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে লিভারপুল।

সেন্ট জেমস পার্কে শুরুতে এগিয়ে গিয়েছিল ম্যান সিটিই। ২৬ মিনিটে সফরকারীদের লিড এনে দেন বের্নার্দো সিলভা। তবে বেশিক্ষণ স্কোরলাইন ধরে রাখতে পারেনি। ৩৫ মিনিটে নিউক্যাসল সমতায় ফেরে আলেক্সান্ডার ইসাকের গোলে। দুই মিনিট পর তো এগিয়েই যায় স্বাগতিকরা। অ্যান্থনি গর্ডন স্কোরশিটে নাম তুললে স্কোরলাইন হয়- নিউক্যাসল ২-১ ম্যান সিটি।

এরপর শুরু গার্দিওলার দলের সমতা ফেরার যুদ্ধ। একের পর এক আক্রমণ, তবু গোলের দেখা পাচ্ছিল না। অবশেষে ৬৯ মিনিটে মাঠে নামলেন ডি ব্রুইনা। সিলভার বদলি নেমে খেলার নিয়ন্ত্রণ নিলেন পায়ে। চোট কাটিয়ে লম্বা সময় পর ফেরায় একাদশের বাইরে ছিলেন তিনি। তবে খেলার ধার এতটুকু কমেনি। বেলজিয়ান মিডফিল্ডার মাঠে নামার পর থেকে আক্রমণে যেন আরও গতি পায়।

ডি ব্রুইনা মাঠে নামার ৫ মিনিটের মধ্যে ম্যান সিটির গোল। কাউকে দিয়ে নয়, কাজটা নিজেই করেছেন এই মিডফিল্ডার। প্রায় ৫ মাস পর মাঠে ফিরেছেন আগের ম্যাচেই। দলের প্রয়োজনের সময় এবার গোলও করলেন তিনি।

স্কোরলাইন তখন ২-২ সমতায়। কিন্তু শিরোপাপ্রত্যাশী দলের ড্র করলেও তো ২ পয়েন্ট কাটা যায়। ডি ব্রুইনা তা হতে দিবেন কেন! তাই তো ইনজুরি টাইমের প্রথম মিনিটেই গোল উদযাপন করে ম্যান সিটি।

আরেক বদলি অস্কার ববের লক্ষ্যভেদে গুরুত্বপূর্ণ ৩ পয়েন্ট নিশ্চিত হয় সিটিজেনদের। আর এই গোলটির উৎস সেই ডি ব্রুইনা। তার পাস থেকেই নিউক্যাসল-জয় করে ফিরেছে ম্যান সিটি।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist