Beta
সোমবার, ২০ মে, ২০২৪
Beta
সোমবার, ২০ মে, ২০২৪

ডিএসইতে ১৭ মাসের সর্বোচ্চ লেনদেন

ঢাকার একটি ব্রোকারেজ হাউসে পুঁজিবাজারের লেনদন পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। ছবি : সকাল সন্ধ্যা
ঢাকার একটি ব্রোকারেজ হাউসে পুঁজিবাজারের লেনদন পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। ছবি : সকাল সন্ধ্যা
Picture of বিশেষ প্রতিনিধি, সকাল সন্ধ্যা

বিশেষ প্রতিনিধি, সকাল সন্ধ্যা

পুঁজিবাজারে এসেছে তেজিভাব। টানা বাড়ছে লেনদেন ও মূলসূচক। দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) বৃহস্পতিবার লেনদেন ১ হাজার ৮০০ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে, যা গত ১৭ মসের মধ্যে সর্বোচ্চ।

বিনিয়োগকারীদের শেয়ার কেনার ঝোঁক বাড়ায় সূচকের পাশাপাশি লেনদেন বাড়ছে বলে জানিয়েছেন বাজার বিশ্লেষকরা। আগামী দিনগুলোতে বাজারে এই ইতিবাচক ধারা অব্যাহত থাকবে বলে আশাবাদি তারা।

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বৃহস্পতিবার ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৮৫৭ কোটি ৭৫ লাখ টাকার কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এর আগে ২০২২ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর লেনদেনের অঙ্ক ছিল ১ হাজার ৮৩২ কোটি ৩০ লাখ টাকা।

বৃহস্পতিবারের ডিএসইর লেনদেন ছিল আগের দিনের চেয়ে প্রায় ১২৮ কোটি টাকা বেশি। বুধবার এই বাজারে লেনদেনের অঙ্ক ছিল ১ হাজার ৭৩০ কোটি ৪৩ লাখ টাকা।

ফ্লোর প্রাইস বা সর্বনিম্ন মূল্যসীমা তুলে নেওয়ার পর কয়েকদিন পতন হলেও সেই ধাক্কা কাটিয়ে তেজিভাবে ফিরেছে বাজারে। গত সপ্তাহে টানা চার দিন সূচক বেড়েছিল। সেই ধারাবাহিকতায় চলতি সপ্তাহে পাঁচ দিন সূচক বেড়েছে। এ নিয়ে টানা নয় কার্যদিবস সূচক বেড়েছে ডিএসইতে।

বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আস্থা ফিরে আসছে। দীর্ঘ মন্দায় যারা এতদিন বাজার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলেন, তারা ফিরে আসছেন। বিশ্লেষকরাও আশার কথা শোনাচ্ছেন। তারা বলছেন, বাজার আরও ভালো হবে।

বৃহস্পতিবার ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২০ দশমিক ৮৫ পয়েন্ট বেড়ে ৬ হাজার ৩৭৩ দশমিক ৪৬ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অন্য দুই সূচকের মধ্যে শরীয়াহ সূচক ডিএসইএস শূন্য দশমিক ১৮ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৩৮৭ পয়েন্টে নেমেছে এবং ডিএস-৩০ সূচক ২ দশমিক ৯৩ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ১৩৮ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

বৃহস্পতিবার ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয় ৩৯৪টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ২১০টির, কমেছে ১৪০টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৪টির দর।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, গত সপ্তাহের চার দিনে (সোম, মঙ্গল,বুধ ও বৃহস্পতিবার) ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৩৫ পয়েন্ট বেড়েছিল; চলতি সপ্তাহের প্রথম দিন রবিবার বাড়ে ৬৭ পয়েন্ট। সোমবার বেড়েছে ৪২ পয়েন্টের মতো। মঙ্গলবার বেড়েছিল ২৩ শতাংশের বেশি। বুধবার বেড়েছে ৬ পয়েন্টের বেশি। সবশেষ বৃহস্পতিবার বেড়েছে ২০ পয়েন্টের বেশি। সব মিলিয়ে এই নয় কার্যদিবসে ডিএসইর প্রধান সূচক ২৯৩ পয়েন্টের মতো বেড়েছে।

দেশের আরেক পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১২০ দশমিক ৯০ পয়েন্ট বেড়ে লেনদেন শেষে অবস্থান করছে ১৮ হাজার ২৯৫ দশমিক ৯০ পয়েন্টে।

এদিন সিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩০৩টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৫১টির, কমেছে ১২০টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩২টির দর। লেনদেন হয়েছে ৩৬ কোটি ২৮ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট। বুধবার লেনদেন হয়েছিল ২৯ কোটি ২৩ লাখ টাকা।

সপ্তাহজুড়ে বাজারের চাঙাভাবে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন বাজার বিশ্লেষক ডিএসইর বর্তমান পরিচালক ও সাবেক সভাপতি শাকিল রিজভী। সকাল সন্ধ্যাকে তিনি বলেন, “অনেক দিন পর বাজার একটি ভালো সপ্তাহ পার করল। সপ্তাহের পাঁচ দিনই সূচকের পাশাপাশি লেনদেন বেড়েছে। ১ হাজার থেকে লেনদেন সাড়ে ১৮শ’ কোটি টাকায় উঠেছে। বাজারের জন্য এটা খুবই ভালো লক্ষণ।”

তিনি বলেন, “আমি আগেই বলেছিলাম ফ্লোর প্রাইস উঠে যাওয়ার পর বিক্রির চাপে দু-একদিন বাজারে পতন হবে। তারপর ঠিক হয়ে যাবে। বাজার ভালোর দিকে যাবে। এখন আসলে তাই হচ্ছে।”

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত