Beta
মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০২৪
Beta
মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০২৪

দেশের সংবাদমাধ্যমে ভোটের খবর

newspaper
Picture of সকাল সন্ধ্যা ডেস্ক

সকাল সন্ধ্যা ডেস্ক

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট হয়েছে রবিবার। অন্যতম বড় দল বিএনপির বর্জনের মধ্যে বিক্ষিপ্ত কিছু গোলযোগ, একজনের মৃত্যু এবং আওয়ামী লীগের এক প্রার্থীর প্রার্থিতা বাতিলের মধ্য দিয়ে শেষ হয় ভোটগ্রহণ। সংসদের ৩০০ আসনের মধ্যে ২৯৯টি আসনে রবিবার ভোট হয়। এক প্রার্থীর মৃত্যুর কারণে নওগাঁ-২ আসনে নির্বাচন স্থগিত ছিল। স্বাভাবিকভাবে সোমবার প্রকাশিত দেশের সব সংবাদপত্রই প্রধান শিরোনাম করেছে ভোট ঘিরে।

প্রথম আলো

প্রথম আলো প্রধান শিরোনাম করেছে— ‘আ.লীগ ১৬০, আ.লীগের স্বতন্ত্র ৩৯’।

রবিবার রাত আড়াইটা পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে করা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে টানা চতুর্থবারের মতো সরকার গঠন করতে যাচ্ছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। ২৯৯টি আসনের মধ্যে গতকাল রোববার দিবাগত রাত আড়াইটা পর্যন্ত ২১৫টি আসনের বেসরকারি ফলাফল পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ১৬০টিতে জয় পেয়েছে আওয়ামী লীগ। ক্ষমতাসীনদের পর সবচেয়ে বেশি জয় পেয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা, ৪১টি আসনে।

‘নিরুত্তাপ ভোট, উপস্থিতি কম’ শিরোনামে বিশ্লেষণমূলক প্রতিবেদনও প্রকাশ করেছে প্রথম আলো।

এতে বলা হয়েছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও এর শরিক-মিত্রসহ বিভিন্ন মহলের একমাত্র লক্ষ্য ছিল কেন্দ্রে বেশি করে ভোটার আনা। বিএনপিসহ আন্দোলনকারী দলগুলোর বর্জন, হরতাল আতঙ্ক, অনীহার কারণে ভোটার কতটা আসবেন—সেই প্রশ্ন বারবার এসেছে। গতকাল রোববারের নির্বাচনে ভোটারদের সেভাবে কেন্দ্রে আনতে পারেনি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও এর শরিক-মিত্ররা।

সমকাল

সমকালের প্রধান শিরোনাম ‘কম ভোটের নির্বাচনে নৌকার বিরাট জয়’।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, টানা চতুর্থবারের মতো নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে আওয়ামী লীগ। পঞ্চমবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলোর বর্জনে ক্ষমতাসীনদের বিজয় নিশ্চিত থাকায় গতকাল রোববারের নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি কত হবে, তা ছিল মূল আকর্ষণ। নির্বাচন কমিশনের (ইসি) দাবি, ৪০ শতাংশ ভোটার ভোট দিয়েছে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, ভোটের হার নিয়ে বিরোধীদের প্রশ্ন– বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ, কেন্দ্রে প্রভাব বিস্তার, জাল ভোট, অনিয়মের অভিযোগের মধ্যে নির্বাচন হয়েছে। ২৯৯ আসনের মধ্যে ২২৩টিতে জয় পেয়েছে আওয়ামী লীগ। স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জিতেছেন ৬২ আসনে। জাতীয় পার্টি (জাপা) জয়ী হয়েছে ১১টিতে। এ ছাড়া কল্যাণ পার্টি, জাসদ ও ওয়ার্কার্স পার্টি একটি করে আসন পেয়েছে।

কালের কণ্ঠ

কালের কণ্ঠের প্রধান শিরোনাম ‘নতুন ইতিহাস গড়লেন শেখ হাসিনা’।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে। ফলে মহান মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী আওয়ামী লীগ টানা চতুর্থবারের মতো সরকার গঠনের মাধ্যমে নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করতে যাচ্ছে। আর শেখ হাসিনা পঞ্চমবারের মতো প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নিয়ে অনন্য রেকর্ড সৃষ্টি করতে যাচ্ছেন বিশ্বরাজনীতিতে। বিশ্বে শেখ হাসিনাই সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ক্ষমতাসীন নারী সরকারপ্রধান। এরই মধ্যে চার মেয়াদে ২০ বছর সরকারপ্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

ইত্তেফাক

ইত্তেফাকের প্রধান শিরোনাম ‘আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ জয়’।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বেশিরভাগ আসনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নৌকা মনোনীত প্রার্থীরা প্রত্যাশিতভাবে বিজয়ী হয়েছেন। এরফলে টানা চতুর্থবারের মতো সরকার গঠন করছে যাচ্ছে দলটি। দ্বিতীয় অবস্থানে আছে আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থীরাই। তৃতীয় স্থানে আছে সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টি-জাপা। এই নির্বাচনে জাপাসহ ২৮টি রাজনৈতিক দল অংশ নিলেও কেউই উল্লেখযোগ্য সংখ্যাক আসন পায়নি। আওয়ামী লীগের দীর্ঘদিনের জোট ১৪ দলের শরিকদের ক্ষেত্রেও ফল বিপর্যয়ের ঘটনা ঘটেছে। ক্ষমতাসীনদের কাছ থেকে ৬টি আসন পেলেও জিতেছে মাত্র দুটি আসনে।

যুগান্তর

যুগান্তরের প্রধান শিরোনাম ‘শঙ্কার ভোটে নৌকার টানা জয়’।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে নির্বাচনের ইতিহাসে নতুন রেকর্ড গড়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। টানা চতুর্থবারের মতো বিজয়ী হয়ে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে দলটি। রোববার ২৯৯ আসনে ভোট হয়। রাত ২টা পর্যন্ত ২৯৯ আসনের অনানুষ্ঠানিক ফল পাওয়া গেছে। এতে দেখা গেছে ২২৩টিতে অনানুষ্ঠানিকভাবে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা। বিপুল ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ নির্বাচনে ৬৩টি আসনে জয়ী হয়ে নতুন চমক সৃষ্টি করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। জাতীয় পার্টির প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন ১১টি আসনে, ওয়ার্কার্স পার্টি ১ ও কল্যাণ পার্টি ১টি আসন পেয়েছে। জয়ের সংখ্যা হিসাবে আওয়ামী লীগের পর স্বতন্ত্রদের অবস্থান। জাতীয় পার্টি তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে। তবে দলগত বিবেচনায় জাতীয় পার্টি দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। এবারের নির্বাচনে বিএনপিসহ ১৬টি রাজনৈতিক দল বর্জন করে। আওয়ামী লীগ জাতীয় পার্টিসহ অংশ নেয় ২৮টি দল।

বণিক বার্তা

বণিক বার্তার প্রধান শিরোনাম “নির্বাচনে ক্ষমতার গতিপথে কোনো পরিবর্তন নেই”।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ জয় পেয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। জাতীয় সংসদের ৩০০টির মধ্যে ২৯৯টি আসনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয় গতকাল। এর মধ্যে দুটির ফল ঘোষণা স্থগিত রয়েছে। চূড়ান্ত ও আংশিকভাবে ফলাফল ঘোষিত বাকি ২৯৭ আসনের মধ্যে ২২৪টিতে জয় পেয়েছেন বা জয়ের পথে রয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা। নির্বাচনে দলগতভাবে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আসন পেয়েছে জাতীয় পার্টি। দলটি পেয়েছে ১১টি আসন। স্বতন্ত্র প্রার্থীরা পেয়েছেন ৬১টি আসন। আরেকটি আসনে জয়লাভ করেছেন বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম। বিশাল ব্যবধানে জয়ের সুবাদে এ নিয়ে টানা চতুর্থবারের মতো সরকার গঠন করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। পঞ্চমবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হতে চলেছেন শেখ হাসিনা।

ডেইলি স্টার

ডেইলি স্টারের প্রধান শিরোনাম ‘AL helps itself to fourth straight win’। তাদের ওয়েবসাইটে এই সংবাদের বাংলা শিরোনাম করা হয়েছে ‘টানা চতুর্থবার ক্ষমতায় আওয়ামী লীগ’।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পূর্বানুমাণ অনুযায়ী, টানা চতুর্থবারের মতো নির্বাচনে জয় লাভ করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। এবারের নির্বাচনে ১৯৯১ সালে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের পর দ্বিতীয় সর্বনিম্ন ভোটার উপস্থিতি দেখা গেছে। গতকাল বিকেল ৩টায় ভোট পড়েছে ২৭ দশমিক ১৫ শতাংশ, কিন্তু বিকেল ৪টায় ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার পর, নির্বাচন কমিশন জানায় যে চূড়ান্ত ভোট প্রায় ৪০ শতাংশে দাঁড়াতে পারে। এক ঘণ্টায় ভোট বেড়েছে ১৩ শতাংশ।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত