Beta
রবিবার, ১৪ জুলাই, ২০২৪
Beta
রবিবার, ১৪ জুলাই, ২০২৪

টেকনাফ সীমান্তে আবারও গোলাগুলির শব্দ

মিয়ানমারে বিদ্রোহীদের সঙ্গে সংঘাতের জেরে সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করছেন অনেক সেনা সদস্য
মিয়ানমারে বিদ্রোহীদের সঙ্গে সংঘাতের জেরে সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করছেন অনেক সেনা সদস্য
Picture of আঞ্চলিক প্রতিবেদক, কক্সবাজার

আঞ্চলিক প্রতিবেদক, কক্সবাজার

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে আবারও ভেসে এসেছে গোলাগুলির শব্দ।

বৃহস্পতিবার ভোর ৪টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত মিয়ানমারের মংডু শহরের আশপাশ থেকে থেমে থেমে গুলির শব্দ শুনতে পান টেকনাফ উপজেলার দক্ষিণাংশের সীমান্তের মানুষ।

আরাকান আর্মি ও সশস্ত্র বিদ্রোহীদের মধ্যে চলমান সংঘাতের জের ধরে টানা গোলাগুলির শব্দ পাচ্ছেন সীমান্তের মানুষ। উড়ে আসছে গুলি, মর্টার শেলও। যার আঘাতে এক বাংলাদেশিসহ দুজনের মৃত্যুও হয়েছে।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো.আদনান চৌধুরী বলেন, গোলাগুলির শব্দ পাওয়ার বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। এছাড়া সীমান্তে সংঘাতময় পরিস্থিতির কারণে আগে থেকেই বন্ধ রয়েছে টেকনাফ-সেন্টমাটিন নৌপথে পযর্টকবাহী জাহাজ চলাচল।

সীমান্তে বিজিবি ও কোস্টগার্ডের টহল জোরদার এবং নজরদারি বাড়ানোর পাশাপাশি সীমান্তে বসবাসকারী মানুষকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে বলেও জানান ইউএনও।

সেন্টমাটিন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান ও সাবরাং ইউনিয়ন পরিষদের ৯নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুস সালাম সকাল সন্ধ্যাকে জানান, সকালে গোলাগুলি হলেও সন্ধ্যার পর পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

তারা জানান, বাংলাদেশের টেকনাফ উপজেলার পূর্ব পাশে নাফনদী এবং দক্ষিণে বঙ্গোপসাগরের বিপরীত দিকে  রাখাইন রাজ্যের মংডু শহরের অবস্থান। এ পাড়ে টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়ন ও দক্ষিণে সেন্টমাটিন দ্বীপ।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের মংডু শহরের আশপাশে মেগিচং বিজিপি ক্যাম্প, তিন ও চার মাইল সিপি বিজিপি ক্যাম্পের দায়িত্বপূর্ণ কাদির বিল, নুরুল্লাহপাড়া,মাংগালা ও ফাদংচা এলাকায় ভোর থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত গোলাগুলির শব্দ পাওয়া যায়। কয়েকটি স্থান থেকে ধোঁয়া উঠতেও দেখা গেছে।

তবে মিয়ানমার সীমান্ত থেকে সেন্টমার্টিনের দূরত্ব ১৪ কিলোমিটার জানিয়ে চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান বলেন, গুলির শব্দ ভেসে এলেও সেন্টমার্টিনের মানুষ আতঙ্কিত নন।

টেকনাফ ২ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, গোলাগুলির শব্দ পাওয়া গেলেও তাতে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। সীমান্তে বিজিবির টহল জোরদার রয়েছে।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত