Beta
রবিবার, ১৪ জুলাই, ২০২৪
Beta
রবিবার, ১৪ জুলাই, ২০২৪

রাসেলের কাছ থেকে বল কেড়ে নায়ক হর্ষিত

রান উৎসবের ম্যাচে শেষ ওভারের নায়ক হর্ষিত।
রান উৎসবের ম্যাচে শেষ ওভারের নায়ক হর্ষিত।
Picture of ক্রীড়া ডেস্ক

ক্রীড়া ডেস্ক

ইডেনে কলকাতা নাইট রাইডার্স করেছিল ২০৮ রান। রীতিমতো রান পাহাড়। সেটা তাড়া করতে নেমে শেষ ১৮ বলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের দরকার ছিল ৬০ রান। প্রায় অসম্ভব সেই কাজটা একপ্রকার সম্পন্ন করে ফেলেছিলেন হেনরিখ ক্লাসেন আর শাহবাজ আহমেদ।

১৮তম ওভারে এই দুজন তোলেন ২১ রান।  ১৯তম ওভারটা করতে আসেন প্রায় ২৫ কোটি রুপিতে কেনা মিচেল স্টার্ক। তাকে সাধারণ মানে নামিয়ে ৪টি ছক্কাসহ দুই ব্যাটার তোলেন ২৬ রান। এই দামটা যে বাড়াবাড়ি সেটা বোঝা গেছে ৪ ওভারে ৫৩ রান খরচে স্টার্ক উইকেটহীন থাকায়।

শেষ ওভারে জয়ের জন্য দরকার ছিল ১৩ রান। বল করতে আসছিলেন আন্দ্রে রাসেল। এর আগে ব্যাট হাতে ২৫ বলে ৬৪ করে কলকাতার পুঁজিটা ২০৮-এ নিয়ে গিয়েছিলেন তিনিই। কিন্তু রাসেলের কাছ থেকে বল একপ্রকার কেড়ে নেন হর্ষিত রানা।

তার প্রথম বলে ছক্কা মেরে ক্লাসেন হায়দরাবাদকে পাইয়ে দিয়েছিলেন জয়ের সুবাস। তাতে দমে না গিয়ে সেই ওভারে ২৯ বলে ৬৩ করা ক্লাসেন আর শাহবাজকে ফেরান এই পেসার। শেষ বলে ছক্কা হলেও জিততে পারত হায়দরাবাদ। প্যাট কামিন্স বল ব্যাটে ছোঁয়োতে না পারায় ৪ রানের রুদ্ধশ্বাস জয়ে আইপিএল শুরু করল কলকাতা।

ম্যাচের সেরার পুরস্কার নিয়ে শেষ ওভার নিয়ে আন্দ্রে রাসেল জানালেন, ‘‘আমাদের কথা হয়েছিল। হর্ষিত আমাকে বলেছিল ও বল করতে চায়। আমার হাত থেকে বল প্রায় কেড়েই নিয়েছিল। প্রথম বলে ছক্কা খাওয়ার পরেও হর্ষিত ফিরে এসেছে। দলকে জিতিয়েছে।’’

গত  আইপিএলে ১৪ ম্যাচে মাত্র ২২৭ রান করেছিলেন রাসেল। এবার প্রথম ম্যাচে ঝড় তোলার পর জানালেন, ‘‘গত দুই বছর ধরে বোলাররা আমার বিপক্ষে ভাল পরিকল্পনা করছিল। কীভাবে আমাকে আটকানো যায় তার পরিকল্পনা করে নামছিল। এজন্য আমাকেও পরিকল্পনা করতে হয়েছে। নিজের শট নিয়ে পরিশ্রম করেছি।’’

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত