Beta
বৃহস্পতিবার, ৩০ মে, ২০২৪
Beta
বৃহস্পতিবার, ৩০ মে, ২০২৪

হিযবুত তাহরীরের নামে মেইল, ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া বুয়েট শিক্ষার্থীদের

buet
Picture of প্রতিবেদক, সকাল সন্ধ্যা

প্রতিবেদক, সকাল সন্ধ্যা

নিষিদ্ধ জঙ্গি গোষ্ঠি হিযবুত তাহরীরের নামে মেইল পাওয়ার কথা জানিয়েছেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) অনেক শিক্ষার্থী। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ওই ইমেইলের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ আইনি পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন।

বুয়েট উপাচার্য সত্যপ্রসাদ মজুমদার এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে সকাল সন্ধ্যাকে জানিয়েছেন।

২০১৯ সালের অক্টোবরে আবরার হত্যার পর বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ হলেও হিজবুত তাহরীর ও ছাত্র শিবির সক্রিয় বলে অভিযোগ রয়েছে।

সুবল দাস নামে আসা ইমেইলটি আসলেই হিজবুত তাহরীরের কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

বুয়েটের পাঁচ শিক্ষার্থী সম্প্রতি অভিযোগ করেছিলেন, ইসলামী ছাত্রশিবির ও হিযবুত তাহরীরের বিরুদ্ধে কথার পর থেকে তাদের নানাভাবে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে বুয়েটের উপাচার্যের কাছে তারা আনুষ্ঠানিক অভিযোগও করেন।

গত রবিবার এই পাঁচ শিক্ষার্থী এক সংবাদ সম্মেলেন বলেছিলেন, বুয়েটে কার্যক্রম চালাচ্ছে ইসলামী ছাত্রশিবির ও নিষিদ্ধ গোষ্ঠি হিযবুত তাহরীর। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির হয়ে যিনিই কথা বলছেন, তাকেই ‘ছাত্রলীগ’ ট্যাগ দিয়ে বারবার অত্যাচার করা হচ্ছে।

এরপর বৃহস্পতিবার রাতে হিযবুত তাহরীরের নামে ইমেইল পাওয়ার কথা জানালেন ছাত্ররাজনীতির বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে সম্প্রতি বুয়েটে আন্দোলনে সম্পৃক্ত শিক্ষার্থীদের অনেকে। ওই ইমেইলে একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তি সংযুক্ত ছিল।

‘ছাত্রলীগের আগ্রাসন থেকে আমাদের মেধাবী সন্তানদের কে নিরাপত্তা দিবে?’ শিরোনামের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ২০১৯ সালের ৭ অক্টোবর বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার হত্যা এবং এর প্রেক্ষাপটে শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে বুয়েটে ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ করার বিষয়টি উল্লেখ করা হয়।

সেই হত্যাকাণ্ডের মামলায় ছাত্রলীগের ২০ নেতাকর্মীর মৃত্যুদণ্ড এবং পাঁচজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সাজা হয়েছে। আর বুয়েটে ছাত্ররাজনীতি নিষেধাজ্ঞার সেই আদেশও সম্প্রতি হাইকোর্ট অবৈধ ঘোষণা করেছে।

আবরার হত্যার প্রায় সাড়ে চার বছর পর সম্প্রতি গভীর রাতে বুয়েটে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রবেশ ঘিরে আবার শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের কথাও উল্লেখ করা হয় বিজ্ঞপ্তিতে। এর পাশাপাশি বিজ্ঞপ্তিতে শেখ হাসিনার সরকারের সমালোচনাও করা হয়।

বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীদের ঘুরে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে বিজ্ঞপ্তিতে তাদেরকে খিলাফত ব্যবস্থা ফিরিয়ে আনার প্রকল্প এগিয়ে নেওয়ার আহ্বানও জানানো হয়।

বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে বুয়েটের বিভিন্ন শিক্ষার্থীর অফিসিয়াল ইমেইলে হিযবুত তাহরীরের নামে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি সংবলিত ইমেইলটি আসে বলে শিক্ষার্থীদের ফেইসবুক পেইজ ‘ইন্টারভাল ‘১৮’ এর এক পোস্টে জানানো হয়।

হিযবুত তাহরীরের নামে আসা মেইলটিকে ‘সম্পূর্ণভাবে উদ্দেশ্যপ্রবণ’ উল্লেখ করে রাত ১টার দিকে দেওয়া ওই পোস্টে বলা হয়, “আমরা বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে এই মেইলটি ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করলাম।”

এছাড়া মেইল পাওয়া সবাই অনতিবিলম্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যসহ সংশ্লিষ্টদের বিষয়টি জানিয়ে এই মেইল পাঠানোর সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ আইনি পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানায় বলে পোস্টে উল্লেখ করা হয়।

পোস্টে আরও বলা হয়, “আমরা এই সকল নিষিদ্ধ জঙ্গি গোষ্ঠিকে কোনোদিন বরদাশত করিনি, করি না এবং করব না এবং আমরা আমাদের ভিসি স্যারকে আহ্বান জানাচ্ছি এর বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নিতে।”

একইসঙ্গে শিক্ষার্থীরা দেশের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা ও আইসিটি সেলকে তদন্ত করে অপরাধীদের শাস্তির আওতায় আনার আহ্বান জানান বলে পোস্টে উল্লেখ করা হয়।

এতে আরও বলা হয়, “নিষিদ্ধ জঙ্গি গোষ্ঠির কোনও স্থান এই বুয়েটে হবে না এবং আমরা বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীরা তা সর্বোচ্চ কঠোর অবস্থানে থেকে প্রতিহত করব।”

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শুক্রবার বেলা ১২টার দিকে বুয়েট উপাচার্য সত্যপ্রসাদ মজুমদার সকাল সন্ধ্যাকে বলেন, “আমি জেনেছি বিষয়টা। শিক্ষার্থীরা জানিয়েছে। আমি সবার সাথে কথা বলছি। আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।”

জননিরাপত্তার জন্য হুমকি বিবেচনায় ২০০৯ সালের অক্টোবরে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় হিযবুত তাহরীরকে নিষিদ্ধ করার কথা জানায়। সন্ত্রাসী গোষ্ঠি আখ্যায়িত করে যুক্তরাজ্য, জার্মানি, রাশিয়া, তুরস্ক, সৌদি আরব, জর্ডান, লেবানন, মিশরসহ বিশ্বের আরও অনেক দেশেও হিযবুত তাহরীরকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত