Beta
রবিবার, ৩ মার্চ, ২০২৪

লন্ডন ষড়যন্ত্র ভেস্তে দিয়েছে জনগণ : ইমরান

ইমরান খান।

ভোটে চমক দেখানো ফলের পর আবার ‘লন্ডন ষড়যন্ত্র’র কথা এল ইমরান খানের মুখে। তিনি বললেন, নির্বাচনের মাধ্যমে সেই ষড়যন্ত্র ভেস্তে দিয়েছে পাকিস্তানের জনগণ।

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এখন রয়েছেন কারাগারে। সেখান থেকে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সাহায্যে তৈরি করা তার বক্তব্য শনিবার প্রকাশ করা হয়েছে তার এক্স হ্যান্ডেলে। সেখানেই লন্ডন ষড়যন্ত্রের কথা তিনি বলেন বলে পাকিস্তানের দৈনিক ডন জানিয়েছে।

পাকিস্তান তেহরিক-ই ইনসাফ (পিটিআই) প্রধান লন্ডন ষড়যন্ত্রের কথা এবারই প্রথম বলছেন না। আদালতের আদেশে ক্ষমতা হারানোর পর গত বছরও একই কথা বলেছিলেন তিনি।

তার এই বক্তব্যের তীর যে মুসলিম লীগ নেতা সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের দিকে, তা স্পষ্ট। ক্ষমতা হারানোর পর নওয়াজ দীর্ঘদিন যুক্তরাজ্যে ছিলেন। ইমরানের সরকারের পতনের পর গত বছরের শেষ দিকে পাকিস্তানে ফেরেন তিনি।

ইমরানের অভিযোগ, পাকিস্তানি সেনাবাহিনী ও নওয়াজের যোগসাজশে তাকে ক্ষমতাচ্যুত করা হয়। এর পেছনে ছিল যুক্তরাষ্ট্র।

পিটিআইর বিপাকে পড়ার মধ্যে গত বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে নওয়াজের দল মুসলিম লীগের জয়ের সম্ভাবনাই দেখছিলেন অনেকে।

তবে ভোটের ফল যেটুকু প্রকাশ পেয়েছে, তাতে দেখা যাচ্ছে, ইমরান খানের দলের সমর্থিত প্রার্থীরা রয়েছেন সবার সামনে।

পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের ২৬৬ আসনের মধ্যে ২৫০টির ফল প্রকাশিত হওয়ার খবর দিয়েছে ডন। তাতে ইমরানের দলের স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন ৯১টি আসনে, আর নওয়াজের মুসলিম লীগ জিতেছে ৭১টি আসনে। তৃতীয় স্থানে থাকা বিলাওয়াল ভুট্টো নেতৃত্বাধীন পিটিআইর আসন ৫৩টি।

ভোটের এই ফল অনেকটাই অপ্রত্যাশিত। কারণ দুর্নীতির দায়ে দণ্ডিত ইমরান খান এই নির্বাচনে নিজে প্রার্থী হতে পারেননি, তার দলও নির্বাচনে অংশ নিতে পারেনি। পিটিআইর নেতারা নানা প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছিলেন।


এআই দিয়ে তৈরি ভাষণে ইমরান খান দেশবাসীকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, “আপনাদের উপর আমার ভরসা ছিল যে আপনারা দলে দলে কেন্দ্রে যাবেন, ভোট দেবেন। আপনাদের এই ভোটদান ছিল সবার ওপর চপেটাঘাত। আপনাদের সক্রিয় অংশগ্রহণে লন্ডন ষড়যন্ত্র ভেস্তে গেছে।”

নওয়াজ এরই মধ্যে নিজেকে সরকার গঠনের দাবিদার হিসেবে তুলে ধরায় তাকে ‘মোটা বুদ্ধির নেতা’ আখ্যায়িত করেন ইমরান।

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত ফলের মধ্যে কারচুপি রয়েছে দাবি করে পিটিআই প্রধান বলছেন, তার দল সমর্থিত প্রার্থীরা ১৭০ আসনে জয়ী হয়েছে। যেখানে সরকার গঠনের জন্য ১৩৪ আসনে জয়ই যথেষ্ট।

ইমরান বলেন, “আমরা ইতিহাস গড়েছি। ভোটে আমরা জিতেছি। এখন আমাদের এই জয় রক্ষা করতে হবে।”

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist