Beta
সোমবার, ৪ মার্চ, ২০২৪

জামিন পেলেও ইমরান কারাগারেই

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে গত ৯ মে হওয়ার দাঙ্গার সঙ্গে সম্পর্কিত ১২টি মামলায় জামিন দিয়েছে আদালত। শনিবার রাওয়ালপিন্ডির একটি সন্ত্রাসবিরোধী আদালত (এটিসি) এই রায় দেয় বলে জানিয়েছে দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।

এদিন পিটিআই (পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ) নেতা ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশিকে ১৩টি মামলায় জামিন দেওয়া হয়েছে।

তবে জামিন পেলেও এখনই কারাগার থেকে মুক্তি পাচ্ছেন না ইমরান খান। অন্য একাধিক মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় তিনি কারাগারেই থাকবেন।

সেনা সদরদপ্তর ও সেনা জাদুঘরে হামলা মামলাতেও ইমরান খানকে জামিন দেওয়া হয়েছে। আদালত ১২টি মামলার জন্য তাকে ১ লাখ রুপির জামানত বন্ড দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন।

ইমরান খানের জামিন আবেদনের শুনানি করেন এটিসি বিচারক মালিক ইজাজ আসিফ। আদালত জানায়, পিটিআই প্রতিষ্ঠাতাকে গ্রেপ্তার করে রাখার কোনও যুক্তি নেই। কারণ ৯ মে এর ঘটনার সব অভিযুক্তই এখন জামিনে মুক্ত আছেন।

ইমরান খান ও শাহ মাহমুদ কুরেশিকে গত ৬ ফেব্রুয়ারি এসব মামলায় অভিযুক্ত করা হয়। শনিবার তাদের আদালতে হাজির করা হয়। সেখানে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী বিচারককে জানান, ৯ মে তাকে ইসলামাবাদ হাইকোর্ট (আইএইচসি) চত্বর থেকে অবৈধভাবে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।

৯ মে’র গ্রেপ্তারের পর সারা দেশে ছড়িয়ে পড়া সহিংসতার জন্য ইমরান খানের বিরুদ্ধে রাওয়ালপিন্ডিতে একাধিক মামলা হয়। এসব মামলার মধ্যে রয়েছে জেনারেল হেডকোয়ার্টার্সের (জিএইচকিউ) গেটে হামলা, একটি গুরুত্বপূর্ণ সরকারি দপ্তরে ভাঙচুরসহ অন্যান্য।

ইমরান খান অবশ্য তার বিরুদ্ধে আনীত সব অভিযোগ শুরু থেকেই অস্বীকার করে আসছেন।

প্রসঙ্গত, আদিয়ালা জেল থেকে মুক্তির পর পিটিআই নেতা শাহ মাহমুদ কুরেশিকে জিএইচকিউ আক্রমণ মামলা সম্পর্কিত আরেক মামলায় পাঞ্জাব পুলিশ কারাগার থেকেই গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায়।

২০২৩ সালের জুলাইয়ে ৯ মে’র সহিংসতার ঘটনা তদন্তে একটি উচ্চ পর্যায়ের যৌথ তদন্তকারী দল (জেআইটি) গঠিত হয়। এটি জিএইচকিউ আক্রমণসহ দুটি সন্ত্রাসবাদ মামলায় ইমরান খানকে অভিযুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেয়।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist