Beta
মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২৪

১৫ দিনে রেমিটেন্স এল বিলিয়ন ডলারের বেশি

ডলার
মার্কিন ডলার

রোজা ও ঈদকে সামনে রেখে দেশে বিদেশি মুদ্রার সঞ্চয়ন বা রিজার্ভের অন্যতম উৎস রেমিটেন্স বাড়ছে। চলতি মাসের প্রথম ১৫ দিনেই ১০১ কোটি ৯০ লাখ ১০ (১ দশমিক শূন্য দুই বিলিয়ন) ডলার দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা।

সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংক রেমিটেন্স প্রবাহের যে সাপ্তাহিক তথ্য প্রকাশ করেছে সেখানে এ হিসাব উঠে এসেছে।

এই ধারা অব্যাহত থাকলে মাসের বাকি ১৬ দিন শেষে ডিসেম্বর ও জানুয়ারির মতো মার্চেও রেমিটেন্সের অংক দুই বিলিয়ন (২০০ কোটি) ডলার ছাড়িয়ে যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বর্তমানে রেমিটেন্সে প্রতি ডলারে ১০৯ টাকা ৫০ পয়সা দিচ্ছে ব্যাংকগুলো। সে হিসাবে টাকার অংকে ১৫ দিনের রেমিটেন্সের পরিমাণ ১১ হাজার ১৫৮ কোটি টাকা। অর্থাৎ গড়ে প্রতিদিন এসেছে ৭৪৪ কোটি টাকা।

রোজা ও ঈদকে সামনে রেখে অর্থনীতির এই সূচক আরও বাড়বে বলে মনে করছেন খাত সংশ্লিষ্টরা।

এর আগে চলতি বছরের প্রথম মাস জানুয়ারিতে ২১১ কোটি ৩১ লাখ (২ দশমিক ১১ বিলিয়ন) ডলারের রেমিটেন্স পাঠিয়েছিলেন প্রবাসীরা। ফেব্রুয়ারি মাসে তার চেয়েও বেশি ২১৬ কোটি ৬০ লাখ (২ দশমিক ১৬ বিলিয়ন) ডলার পাঠিয়েছেন। যা ছিল সবশেষ আট মাসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি।

ফেব্রুয়ারি মাসে গত বছরের ফেব্রুয়ারির চেয়ে ৩৯ শতাংশ বেশি রেমিটেন্স এসেছিল। ২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে ১৫৬ কোটি ৪ লাখ (১ দশমিক ৫৬ বিলিয়ন) ডলার এসেছিল।

বাংলাদেশ ব্যাংক প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, মার্চ মাসের ১৫ দিনে প্রায় ১০২ কোটি ডলার রেমিটেন্সের মধ্যে রাষ্ট্রায়ত্ত ছয় বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ১২ কোটি ৮২ লাখ ৮০ হাজার ডলার। বিশেষায়িত কৃষি ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে এক কোটি ৫৪ লাখ ৮০ হাজার ডলার।

বেসরকারি ৪৩ ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ৮৭ কোটি ১৯ লাখ ৭০ হাজার ডলার। আর নয়টি বিদেশি ব্যাংক এনেছে ৩২ লাখ ৫০ হাজার ডলার।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্যে দেখা যায়, চলতি ২০২৩-২৪ অর্থবছরের প্রথম আট মাসে (জুলাই-ফেব্রুয়ারি) ১৫ দশমিক শূন্য সাত বিলিয়ন ডলার পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। যা গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ৭ দশমিক ৬১ শতাংশ বেশি।

২০২২-২৩ অর্থবছরে ২১ দশমিক ৬১ বিলিয়ন ডলার রেমিটেন্স এসেছিল দেশে। যা ছিল আগের অর্থবছরের (২০২১-২২) চেয়ে ২ দশমিক ৭৫ শতাংশ বেশি।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist