Beta
সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

৪ গোলের হারে কোচ ছাঁটাই, সেই দলটিই ফাইনালে

আফ্রিকান কাপ অব নেশনসের ফাইনালে আইভরি কোস্ট। ছবি: টুইটার

২০১৫ সালে সবশেষ আফ্রিকা কাপ অব নেশনসের শিরোপা জিতেছিল আইভরি কোস্ট। এবার প্রতিযোগিতাটির আয়োজক হওয়ায় আবারও শিরোপা স্বপ্নে বুঁদ আফ্রিকার দেশটির জনগণ। কিন্তু ৯ বছর আগে যাদের মাটি থেকে ট্রফি জিতেছিল তারা, সেই ইকুয়েটোরিয়াল গিনির কাছেই এবার বড় ব্যবধানে হেরে শিরোপা স্বপ্নে বড় ধাক্কা খায়। গ্রুপ পর্বের বাজে পারফরমেন্সে তো কোচ ছাঁটাই পর্যন্ত করে। অথচ ঘুরে দাঁড়ানোর দারুণ গল্প লিখে সেই আইভরি কোস্টই এখন ‘আফ্রিকার বিশ্বকাপের’ ফাইনালে।

বুধবার রাতের সেমিফাইনালে কঙ্গোকে ১-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালে পৌঁছে গেছে স্বাগতিক আইভরি কোস্ট। ৬৫ মিনিটে জয়সূচক গোলটি করেন সেবাস্তিয়েন হালার। ক্যান্সারের সঙ্গে যুদ্ধেজয়ী এই বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ফরোয়ার্ড আবারও শিরোপা জেতার পথ তৈরি করে দিয়েছেন দেশটিকে। ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ নাইজেরিয়া।

প্রায় সব টুর্নামেন্টেই স্বাগতিকরা বাড়তি সুবিধা পেয়ে থাকে। হোম কন্ডিশন ও দর্শক সমর্থনের বিবেচনায় তাদেরকে ফেভারিট ধরা হয়। এবারের আফ্রিকা কাপ অব নেশনসের আয়োজক হওয়ায় আইভরি কোস্টকেও শিরোপার অন্যতম দাবিদার ভাবা হয়েছে। কিন্তু টুর্নামেন্টের শুরুতে তাদের খেলায় ফেভারিটের এতটুকু ছাপ ছিল না। উল্টো মনে হয়েছিল, নিজের দেশ নয়, অন্য দেশে গিয়ে খেলছে তারা!

গিনি-বিসাউয়ের বিপক্ষে জয় দিয়ে প্রতিযোগিতা শুরু করে ভালো কিছুরই ইঙ্গিত দিয়েছিল। কিন্তু পরের ম্যাচেই নাইজেরিয়ার বিপক্ষে হার। সেটাও না হয় মেনে নেওয়া গেছে যেহেতু ‘সুপার ঈগলস’ এই প্রতিযোগিতার অন্যতম ফেভারিট দল। কিন্তু গ্রুপের শেষ ম্যাচে ইকুয়েটোরিয়াল গিনির কাছে ৪-০ গোলের হার আর হজম হয়নি। বিশাল ব্যবধানের হারে টুর্নামেন্টের মাঝপথেই বিদায় করে দেয় কোচ জ্যঁ-লুইস গাসেতকে।

দুই হারের পরও গ্রুপের তৃতীয় সেরা দল হিসেবে আইভরি কোস্ট টিকে যায়। কোচের পদে নতুন দায়িত্ব পান এমারসি ফায়ে। তার অধীনে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন সেনেগালকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠে আইভরি কোস্ট। সেখানে মালিকে হারানোর পর এবার কঙ্গো বাধা পেরিয়ে ফাইনালে ‘দ্য এলিফেন্টস’।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist