Beta
রবিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২৪

ইতালি যাওয়ার আগে কাচ্চি ভাইয়ে খেতে গিয়েছিল পরিবারটি

মোবারক
মোবাইল ফোনে মোবারকের পরিবারের ছবি দেখাচ্ছেন এক স্বজন। ছবি : সকাল সন্ধ্যা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সৈয়দ মোবারক হোসেন গত ১৫ বছর ধরে ইতালি থাকেন। দীর্ঘদিন একা প্রবাস জীবন কাটানো মোবারক সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন স্ত্রী-সন্তানদেরও নিয়ে যাবেন। সে অনুযায়ী সব কাজ গুছিয়ে এনেছিলেন। সব ঠিক থাকলে আগামী ১০ মার্চ স্ত্রী ও তিন সন্তানকে নিয়ে মোবারকের ইতালি যাওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু সেই স্বপ্ন পূরণের আর সুযোগ পেলেন না মোবারক। ঢাকার বেইলি রোডের আগুনে পুরো পরিবার নিয়েই মারা গেছেন তিনি। স্ত্রী, দুই মেয়ে ও একমাত্র ছেলেসহ প্রাণ হারিয়েছেন মোবারক।

মোবারকের স্ত্রী, দুই মেয়ে ও এক ছেলে

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে কথা হয় মোবারকের দুলাভাই সৈয়দ গাউসুল আজমের সঙ্গে।

তিনি জানান, মার্চের ১০ তারিখ পরিবারের সবাইকে নিয়ে ইতালিতে চলে যাওয়ার কথা ছিল মোবারকের। সেজন্যই কিছুদিন আগে দেশে এসেছিলেন তিনি। এরই মধ্যে কাচ্চি ভাই রেস্টুরেন্টে ডিসকাউন্টের অফার দেখে স্ত্রী স্বপ্না আক্তার, দুই মেয়ে মাসুমা ও ফাতেমা এবং একমাত্র ছেলে আব্দুল্লাহকে নিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে খেতে গিয়েছিলেন মোবারক। তখনই এই দুর্ঘটনা ঘটে। আগুনের সময় সৃষ্ট ধোঁয়ায় দমবন্ধ হয়ে মারা গেছেন সবাই।

মোবারক
নিহত মোবারক হোসেন

নিহতদের স্বজন ঢাকা মেডিকেল কলেজের সহযোগী অধ্যাপক এনামুল কবীর। তিনি জানান, মোবারকের ডাক নাম কাউসার। তাদের গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল থানার শাহবাজপুর গ্রামে। তবে পরিবারের সদস্যরা ঢাকার মধুবাগে থাকতেন।

মোবারকের বড় মেয়ে সৈয়দা নূর ফাতেমা একটি কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণিতে পড়ত। ছোট মেয়ে তাসফিয়া ছিল এসএসসি পরীক্ষার্থী। আর ছেলে আব্দুল্লাহ পড়ত ষষ্ঠ শ্রেণিতে। সবাইকে নিয়েই ইতালি যাওয়ার পরিকল্পনা চূড়ান্ত করেছিলেন মোবারক।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist