Beta
সোমবার, ৪ মার্চ, ২০২৪

খাগড়াছড়িতে ২ ইউপিডিএফকর্মী খুন

খাগড়াছড়ির মহালছড়ি উপজেলার রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়ক। ছবি : সকাল সন্ধ্যা।

খাগড়াছড়িতে ইউপিডিএফের দুজন কর্মী খুন হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

সংগঠনটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, মহালছড়ি উপজেলায় বুধবার সকালে ঘটনাটি ঘটে।

তারা এই হত্যাকাণ্ডের জন্য প্রতিপক্ষ পাহাড়ি সংগঠন ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) এবং জনসংহতি সমিতিকে (এমএন লারমা) দায়ী করছে।

তবে এই সংগঠন দুটির কোনও বক্তব্য তাৎক্ষণিকভাবে পাওয়া যায়নি।

পুলিশ জানিয়েছে, তারা দুজন নিহত হওয়ার খবর পেয়েছেন। সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

ইউপিডিএফ মুখপাত্র ও খাগড়াছড়ি ইউনিটের সংগঠক অংগ্য মারমা দুপুরে এক বিবৃতিতে জানান, সকাল সাড়ে ৬টার দিকে মহালছড়ি ইউনিয়নের ৯ নম্বর দুরছড়ি পাড়ায় তাদের তিন কর্মীর উপর হামলা হয়। তাতে দুজন নিহত হন, একজন এখনও নিখোঁজ রয়েছেন।

নিহতরা হলেন- ইউপিডিএফ সদস্য রবি কুমার চাকমা (৬৫) ও শান্ত চাকমা বিমল (৫২)। নিখোঁজ আছেন রহিন্তু চাকমা টিপন (৩২)।

বিবৃতিতে বলা হয়, রবি কুমার চাকমা, শান্ত চাকমা ওরফে বিমল ও রহিন্তু চাকমা ওরফে টিপন দুরছড়ি পাড়ায় অবস্থান করছিলেন। সেখানে তাদের উপর গুলি চালানো হয়।

তিনি এই হামলাকে ‘কাপুরুষোচিত’ ও ‘ন্যক্কারজনক’ আখ্যায়িত করে এর নিন্দা জানান।

এ বিষয়ে কথা বলতে খাগড়াছড়ির পুলিশ সুপার মুক্তা ধরের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জসীম উদ্দিন সকাল সন্ধ্যাকে বলেন, তারা সকালে দুজন নিহতের খবর পেয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল গেছে। সেখান থেকে ফেরত এলে বিস্তারিত জানাতে পারবেন।

পাহাড়ে সংগঠনগুলোর বিরোধ থেকে সহিংস ঘটনা ইদানিং বেড়েছে। এক মাস আগেও খুন হন ইউপিডিএফের চারজন।

ইউপিডিএফ প্রসিত বিকাশ খীসা নেতৃত্বে পরিচালিত হচ্ছে। এর বাইরে সন্তু লারমা নেতৃত্বাধীন জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) ছাড়াও ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) এবং জনসংহতি সমিতি (এমএন লারমা) নামে দুই সংগঠন সক্রিয় রয়েছে।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist