Beta
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০২৪
Beta
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০২৪

জাতীয় দলের সঙ্গে আর কাজ করতে চান না সুজন

ুজকগস১
Picture of ক্রীড়া প্রতিবেদক

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বাংলাদেশ দলের পরিচালক হিসেবে লম্বা সময় জাতীয় দলে ছিলেন খালেদ মাহমুদ সুজন। হয়ে উঠেছিলেন টিম ম্যানেজমেন্টের অংশ। দল নির্বাচন থেকে শুরু করে একাদশ নির্বাচন এবং ম্যাচে বিভিন্ন পরিকল্পনাও দিতেন তিনি।

কিন্তু ২০২৩ বিশ্বকাপে সুজনকে একরকম দলের ছায়াসঙ্গী হয়ে থাকতে হয়। টিম ডিরেক্টর হিসেবে দলের সঙ্গে গেলেও তার কোনও পরামর্শই নেওয়া হতো না। হেড কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহেই ম্যাচ পরিকল্পনায় সুজনকে পাত্তা দিতেন না বলে গুঞ্জন ছিল। সুজন নিজেও বিশ্বকাপ চলাকালীন এ ব্যাপারে আক্ষেপ করেছিলেন, নিজের কাজটা করতে পারছেন না বলে।

ওই সময় হাথুরুসিংহকে নিয়ে কিছু না বললেও এবার আর চুপ থাকতে পারলেন না। বিশ্বকাপে নিজের মন মতো কাজ না করতে পারার ক্ষোভ উগড়ে দিলেন একেবারে। জানালেন আর কখনও জাতীয় দলের টিম ডিরেক্টর হিসেবে কাজ করতে চান না।

২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগেও দলের সঙ্গে সুজন যাবেন কিনা তা নিয়ে আলোচনা ছিল। পরে ওই আসরে সুজন যাননি। আরও একটি বিশ্বকাপ সামনে আসতে একই আলোচনা উঠছে। তবে এবার আর দলের সঙ্গে বিশ্বকাপে যেতে চান না আবাহনী কোচ।

মিরপুরে রবিবার সুজন বলেছেন, “আমি মনে হয় বাংলাদেশ ক্রিকেটের আর সমাধান না। বাংলাদেশের আরও বড় সমাধান আছে। আমার আর বাংলাদেশ জাতীয় দলের কোন দায়িত্বে আগ্রহ নেই। গত বিশ্বকাপে আমি যা করেছি আমি মনে করি ওটা আমার ক্রিকেট ক্যারিয়ারের সঙ্গে যায় না আসলে। হয়তো বা আমি অত বড় কোচ না , অত কিছু জানিও না ক্রিকেট নিয়ে। তারপরও আমি করি আমার সম্মান আছে, গত বিশ্বকাপে আমি সেই সম্মানটা পাইনি। তো আমি আর এই কাজ করতেও চাইনা।”

২০২৩ বিশ্বকাপে দল-একাদশ-ম্যাচ পরিকল্পনা সংক্রান্ত কোন পরামর্শ দেয়া, টিম মিটিংয়ে থাকার অনুমতি ছিল না সুজনের। শুধু দলে শৃঙ্খলা দেখার জন্য ছিলেন তিনি। যে দায়িত্ব মোটেও পছন্দ হয়নি সুজনের। বিশ্বকাপ সময়ই বলেছিলেন এমন জানলে দলের সঙ্গে আসতেন না।

সম্মানহানি হওয়ার কারণ উল্লেখ করে আর বিশ্বকাপে বা কোনও সিরিজেও জাতীয় দলের হয়ে কাজ করার ইচ্ছা নেই সুজনের, “হাথুরুসিংহে বিশ্বের সেরা কোচ হতে পারে সেটা আমার কাছে কোনও মূল্য রাখে না। আমার বাংলাদেশে অনেক সম্মান আছে, ক্রিকেটাররা আমাকে অনেক সম্মান করে, আমি সেই সম্মানের জায়গাটা হারাতে চাই না।”

অবশ্য ২০২৩ সালে পছন্দের দায়িত্ব না পাওয়াকে অপমান বলছেন না তিনি, “অপমান কথাটা বলব না, আমি তো ক্রিকেট পছন্দ করি। একটা জায়গায় যখন কাজ করেছি, সেই জায়গাটা যখন না পাই কাজ করতে, এতগুলো ট্যুর করার পর আমার কাজটা পরিবর্তন হয়ে যায় তাহলে আমাকে ওই দায়িত্বে রাখার কোন মানে হয় না আসলে। আমি তো ট্যুর করতে যাই না বাংলাদেশ দলের সঙ্গে, আমি ট্যুর পার্টি না। আমি বিদেশ অনেক ঘুরেছি, বিদেশ ঘুরার কোন ইচ্ছাই নাই আমার।”

তবে বিসিবি সভাপতি ও ক্রীড়া মন্ত্রী নাজমুল হাসান পাপন যদি ভবিষ্যতে আবার জাতীয় দলে সুজনকে ফিরতে বলেন তখন কি করবেন এই সাবেক ক্রিকেটার? এই প্রশ্নের উত্তরেও জাতীয় দলের টিম ম্যানেজমেন্টে ফিরতে অনাগ্রহ দেখালেন সুজন।

বলেছেন, “পাপন ভাই আমার অধিনায়ক উনি আমাকে যখন বলে যে ফাইন লেগে ফিল্ডিং করতে আমি করবো। কিন্তু আমি মনে করি উনি আর আমাকে বলবেন না ফাইন লেগে ফিল্ডিং করতে। এত বড় বড় কোচরা আসছে যারা হাইলি পেইড, তাদের মধ্যে আমার না যাওয়াটাই ভালো। আমি এখন আর ২৮-২৯ বছরের বালক না, আমার সম্মানটা এখন আমাকে রাখতে হবে। পাপন ভাইকে আগের মতোই সম্মান করি। কিন্তু আমি অনুরোধ করি পাপন ভাইকে যেন উনি আমাকে আর এ বিষয়ে কোন কাজ করতে না বলেন।”

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত