Beta
শুক্রবার, ১ মার্চ, ২০২৪
ইতালির সর্বোচ্চ গোলদাতার মৃত্যু

থামল ‘বজ্রের হুংকার’

লুইজি ‘জিজি’ রিভা : জন্ম ৭ নভেম্বর ১৯৪৪, মৃত্যু ২২ জানুয়ারি ২০২৪।

চার বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইতালির সর্বোচ্চ গোলদাতা লুইজি ‘জিজি’ রিভা। ‘বজ্রের হুংকার’ ডাক নামের সাবেক এই স্ট্রাইকার বোকা বানিয়েছেন হাজারো ডিফেন্ডারকে। তবে মৃত্যুকে তো ড্রিবল করে বোকা বানানো যায় না। ৭৯ বছর বয়সে সোমবার রাতে রিভাও পাড়ি জমালেন অন্য লোকে।

গত সপ্তাহে হার্ট অ্যাটাকের পর ভর্তি হয়েছিলেন সার্দিনিয়ার একটি হাসপাতালে। সেখানেই মৃত্যুর সঙ্গে এক সপ্তাহ লড়াইয়ের পর সোমবার রাতে মারা যান জিজি রিভা।

 ইতালির হয়ে ৪২ ম্যাচে সর্বোচ্চ ৩৫ গোল তার। রিভার মৃত্যুতে ইতালিয়ান ফুটবল প্রেসিডেন্ট গ্যাব্রিয়েল গ্রাভিনার শোকবার্তা,‘‘তিনি ছিলেন ইতালির সত্যিকারের মহানায়ক। তার পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি।’’

১৯৭০ বিশ্বকাপ ফাইনালে খেলেছিলেন পেলের ব্রাজিলের বিপক্ষে।

ইতালির সুপার কাপ ফাইনালে সৌদি আরবের রিয়াদে মুখোমুখি হয়েছিল ইন্টার মিলান ও নাপোলি। বিরতির সময় খবর আসে রিভার মৃত্যুর। বিরতির পর মাঠে নেমে দুই দলের ফুটবলাররা পালন করেন এক মিনিট নীরবতা।

রিভার পেশাদার ক্যারিয়ার শুরু ১৯৬২ সালে লেনিয়ানোতে। তার নৈপুণ্যে ক্লাবটি উঠে আসে সিরি ‘এ’তে। এরপর ক্যালিয়ারিতে যোগ দিয়ে বাকি ক্যারিয়রটা কাটিয়ে দেন সেখানে। ১৯৭০ সালে ক্যালিয়ারি তাদের ইতিহাসে একমাত্র সিরি ‘এ’ জিতে রিভার জাদু ছোঁয়ায়। তবে সেবার বিশ্বকাপ ফাইনালে রিভার ইতালি পেরে উঠেনি পেলের ব্রাজিলের কাছে।

১৯৭০ সালে সিরি ‘এ’র সর্বোচ্চ গোলদাতা ছিলেন রিভা। সর্বোচ্চ গোলদাতা ছিলেন আগের দুই মৌসুমেও। তার বিদেহী আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ক্যালিয়ারি ‘এক্স’ এ লিখেছে, ‘‘ জিজি রিভা আমাদের মধ্যে বেঁচে থাকবে আজীবন।’’

২০১০ সালে ইতালির রাই টেলিভিশনে রিভা বলেছিলেন, ‘‘ফুটবলে নিজের কিছু সাফল্যের বিনিময়ে শৈশবটা বদল করতে চাই আমি।’’ এমনটা বলার কারণ, ১৯৪৪ সালে লেজ্জিউনোতে জন্ম নেওয়া রিভা ৯ বছর বয়সে হারান বাবা উগোকে।

এরপর রিভার মা এদ্রিস যোগ দেন একটি টেক্সটাইল ফ্যাক্টরিতে। রিভা ১৬ বছর বয়সে হারান ক্যান্সার আক্রান্ত মাকেও। এরপর ছিরেন বোন ফাউস্তার কাছে। সেই বোন মারা যান ২০২০ সালে। সোমবার তাদের সঙ্গী হলেন রিভাও।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist