Beta
শনিবার, ১৫ জুন, ২০২৪
Beta
শনিবার, ১৫ জুন, ২০২৪

মন্ত্রিসভা : বাবার জুতায় যাদের পা

নাজমুল হাসান, রুমানা আলী, সিমিন হোসেন রিমি এবার প্রথম মন্ত্রিসভায় আসছেন।
নাজমুল হাসান, রুমানা আলী, সিমিন হোসেন রিমি এবার প্রথম মন্ত্রিসভায় আসছেন।
Picture of প্রতিবেদক, সকাল সন্ধ্যা

প্রতিবেদক, সকাল সন্ধ্যা

শেখ হাসিনার নতুন সরকারে নতুন যারা ডাক পেয়েছেন, তাদের মধ্যে তিনজনের বাবা মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করে গেছেন।

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ জয়ের পর বুধবার নিজের টানা চতুর্থ মেয়াদের সরকার গঠনের প্রক্রিয়া শুরু করেন শেখ হাসিনা। নতুন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী কারা হচ্ছেন, তাদের নামও ঘোষণা করেন।

এবার মন্ত্রী হতে যাচ্ছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমানের ছেলে নাজমুল হাসান পাপন।

প্রয়াত জিল্লুর রহমান শেখ হাসিনার ১৯৯৬ সালের সরকারে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী ছিলেন। তার স্ত্রী আইভি রহমান ২০০৪ সালে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে গ্রেনেড হামলায় নিহত হন।

নাজমুল কিশোরগঞ্জ-৬ (ভৈরব-কুলিয়ারচর) আসনের সংসদ সদস্য। সেখানে সংসদ সদস্য ছিলেন তার বাবা। জিল্লুর রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হওয়ার পর উপনির্বাচনে তার ছেলে নাজমুল আওয়ামী লীগের মনোনয়নে সংসদ সদস্য হন। এরপর ২০১৪, ২০১৮ সালের পর এবার দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনেও বিজয়ী হন তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ করা নাজমুল বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতির দায়িত্বে তিনি আছেন দশকের বেশি সময় ধরে। তিনি আবাহনী লিমিটেড পরিচালনায়ও যুক্ত।

দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদের সন্তান সিমিন হোসেন রিমিও এবার প্রথম মন্ত্রিসভায় এলেন। তিনি প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পাচ্ছেন।

এই পরিবার থেকে তাজউদ্দীনের ভাই আফসার উদ্দিন ১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনার সরকারে ছিলেন। এরপর ২০০৮ সালে তাজউদ্দীনের ছেলে তানজিম আহমেদ (সোহেল তাজ) সংসদ সদস্য হওয়ার পর তাকে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী করেছিলেন শেখ হাসিনা।

তবে সোহেল তাজ মন্ত্রিত্ব ছেড়ে রাজনীতিকে বিদায় বলার পর গাজীপুর-৪ (কাপাসিয়া) আসন থেকে সংসদ সদস্য হয়ে আসছেন তার বোন সিমিন হোসেন রিমি। ২০১২ সালে উপনির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পর তিনি এনিয়ে চতুর্থবার সংসদে প্রতিনিধিত্ব করছেন। তিনি আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীরও সদস্য।

গাজীপুর থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে প্রতিমন্ত্রী হতে যাওয়া রুমানা আলী টুসি আওয়ামী লীগের নেতা প্রয়াত রহমত আলীর মেয়ে।

রহমত আলী গাজীপুর-৩ (শ্রীপুর) আসনে ১৯৯১ সাল থেকে টানা পাঁচবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। তিনি আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এবং কৃষক লীগের সভাপতি ছিলেন। ১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনার সরকারে তিনি স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রীর পদ পেয়েছিলেন।

রহমত আলীর মৃত্যুর পর গত নির্বাচনে তার পরিবারের কেউ নৌকার মনোনয়ন না পেলেও এবার প্রার্থী করা হয় মেয়ে রুমানাকে। পেশায় শিক্ষক রুমানা বিএনপিবিহীন এই নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে পান ১ লাখ ২৬ হাজার ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন আসনটির বিদায়ী সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন সবুজ (১ লাখ ১ হাজার ভোট)। গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সবুজ স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছিলেন।

মন্ত্রিসভার মূলবিন্দু শেখ হাসিনার বাবা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রধানমন্ত্রীও ছিলেন।

নতুন মন্ত্রিসভায় পুরনোদের মধ্যে কয়েকজন রয়েছেন, যারা উত্তরাধিকার সূত্রে রাজনীতিতে এসেছেন।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের বাবা খ্যাতিমান আইনজীবী সিরাজুল হক বঙ্গবন্ধু আমলে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য ছিলেন।

প্রতিমন্ত্রী থেকে পূর্ণ মন্ত্রী হতে যাওয়া মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের বাবা এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী ছিলেন চট্টগ্রামে আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়রও ছিলেন তিনি।

নওফেলের মতোই পদোন্নতি পাওয়া ফরহাদ হোসেনের বাবা ছহিউদ্দিন বিশ্বাস বাংলাদেশের প্রথম সংসদে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে নির্বাচিত ছিলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজির ছাত্র ফরহাদ শিক্ষকতা ছেড়ে রাজনীতিতে যোগ দিয়ে এনিয়ে তৃতীয়বার সংসদ সদস্য হলেন।

এবারের মন্ত্রিসভায়ও প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পাওয়া খালেদ মাহমুদ চৌধুরীর বাবা আব্দুর রউফ চৌধুরী ছিলেন দিনাজপুরের প্রভাবশালী নেতা ও সংসদ সদস্য।

২০১৪ সাল থেকে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করে আসা নসরুল হামিদ এবারও প্রতিমন্ত্রীই থাকছেন। ঢাকা-৩ আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য নসরুলের বাবা হামিদুর রহমান সংসদ সদস্য ছিলেন, আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষও ছিলেন তিনি।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মো. মকবুল হোসেনের ছেলে আহসানুল ইসলাম টিটু এবারই প্রথম প্রতিমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন।

১৯৯৬ সালে ঢাকার ধানমণ্ডি-মোহাম্মদপুর আসনের সংসদ সদস্য ছিলেন মকবুল। তবে টিটু ভোট করেন পৈত্রিক এলাকা টাঙ্গাইল-৬ আসন থেকে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের এক সময়ের সভাপতি টিটু ২০১৮ সালে প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন, এবার দ্বিতীয়বার ভোটে জিতলেন তিনি।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত