Beta
শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

মৃত্যু উপত্যকায় খুশি এনে দিয়েছেন ফিলিস্তিনের ফুটবলাররা

ফিলিস্তিনের ফুটবলার মাহমুদ ওয়াদি ভেঙে পড়েছিলেন কান্নায়। এশিয়ান কাপে ফিলিস্তিন প্রথম ম্যাচ খেলতে মাঠে নামার  আধঘণ্টা আগে তিনি জানতে পারেন, হত্যা করা হয়েছে তার কাজিনদের।

ফিলিস্তিনের ডিফেন্ডার মোহাম্মদ সালেহর চাচার বাসায় বোমা হামলা হয়েছে। তার মায়ের বাড়িতেও এসেছিল ইসরায়েল সামরিক বাহিনী।

ওয়াদি-সালেহরা যখন এশিয়ান কাপ খেলছেন তখন তাদের জন্মভূমি মৃত্যু উপত্যকা। গড়ে প্রতিদিন ২৫০ জন মানুষ মারা যাচ্ছেন গাজায়। দেশবাসির মুখে সামান্য হাসির উপলক্ষ্য এনে দিতে চোয়ালবদ্ধ প্রতিজ্ঞাই করেছিলেন ফুটবলরার।

তাতে সফল ফিলিস্তিন। কাল (মঙ্গলবার) এশিয়ান কাপে তারা ৩-০ গোলে হারিয়েছে হংকংকে। এই টুর্নামেন্টের ইতিহাসে এটাই প্রথম জয় ফিলিস্তিনের। আর এই জয়ে তারা পৌঁছে গেছে নকআউটেও।

দোহার আবদুল্লাহ বিন খলিফা স্টেডিয়ামে রেফারি শেষ বাঁশি বাজানোর পরই আবেগি হয়ে পড়েছিলেন ফিলিস্তিনের ফুটবলাররা। কেউ লুটিয়ে পড়েছিলেন সিজদায়। একে অন্যকে জড়িয়ে কেঁদে স্বজন হারানোর বেদনা ভুলতে চেয়েছিলেন কেউ।

স্টেডিয়ামে সাড়ে ৬ হাজার দর্শকের প্রায় সবাই গলা ফাটান ফিলিস্তিনের পক্ষে। ম্যাচ শুরুর আগে গ্যালারিতে ‘ফ্রি প্যালেস্টাইন’ বলে স্লোগানও দিচ্ছিলেন দর্শকরা। ফিলিস্তিন অধিনায়ক মুসাব আল-বাত্তাত কৃতজ্ঞতা জানালেন তাদের প্রতি, ‘‘ফিলিস্তিনি মানুষদের যে প্রতিশ্রুতি আমরা দিয়েছিলাম সেটি রাখতে পেরেছি। ফিলিস্তিনের ভেতর বা বাইরে, যারা আমাদের সমর্থন দিয়েছেন, তাদের সবাইকে ধন্যবাদ । তাদের মুখে হাসি ফোটাতে পেরেছি আমরা।’’

এশিয়ান কাপ শুরুর আগে ফিলিস্তিন কোচ মাকরাম বলেছিলেন, ‘‘ফিলিস্তিনের মানুষের আরেকটু ভালো জীবন প্রাপ্য। ভালোবাসা, শান্তি এবং স্বাধীনতা প্রাপ্য।’’ মঙ্গলবারের ঐতিহাসিক জয়ের পর আপ্লুত তিনিও, ‘‘সবাই জানত এ ম্যাচ পার্থক্য গড়ে দেবে। বিশেষ করে ফিলিস্তিন এখন যে পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। এই জয়টা সামান্য হলেও হাসি ফোটাবে গাজাবাসীদের।’’

গাজায় এবারের ইসরায়েলের হামলা শুরুর অনেক আগে থেকেই কঠিন পথ পাড়ি দিয়ে ফুটবল খেলতে হয়েছে ফিলিস্তিনের ফুটবলারদের। ২০০৯ সালে স্টেডিয়ামে ইসরায়েলের বোমা হামলায় নিহত হয়েছিলেন ফিলিস্তিনের তিন ফুটবলার আয়মান আলকুর্দ, শাবি শাবখে, ওয়াজেহ মোশতাহি। পরের বছর বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে সিঙ্গাপুরের বিপক্ষে খেলতে যাওয়ার সময় ১৮ ফুটবলারকে গাজা উপত্যকা থেকে বের হওয়ার অনুমতিই দেয়নি ইসরায়েল!

সেই দেশের খেলোয়াড়রা এশিয়ান কাপের নকআউটে পৌঁছে বিশেষ বার্তাই দিলেন বিশ্ববাসীকে। ফুটবলকে আঁকড়ে মৃত্যু উপত্যকাতেও গাওয়া যায় জীবনের জয়গান।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist