Beta
শুক্রবার, ১ মার্চ, ২০২৪

বিবিসির পর রিয়ালের নতুন ত্রিফলা

বেনজেমা, বেল, ক্রিস্তিয়ানো-রিয়ালে বিবিসি নামে পরিচিতি এই ত্রয়ীর। নিজেদের সময়ে ক্লাব ফুটবল শাসনই করেছেন তারা। এই ত্রিফলার দ্যুতিতে ২০১৩-১৪ থেকে ২০১৭-১৮ মৌসুমে চারটি চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতেছে রিয়াল।

রোনালদো রিয়াল ছেড়ে জুভেন্টাসে যাওয়ার পর থেকে এমন ভয়ংকর ত্রিফলা আক্রমণের খোঁজে ছিল রিয়াল। ভিনিসিয়ুস, রোদ্রিগো, বেলিংহামে কি সেই ছায়া খুঁজে পেল কার্লো আনচেলোত্তির দল?

এই মৌসুমে তাদের পারফর্ম্যান্স কিন্তু আশা জাগাচ্ছে। শনিবার রাতে নতুন ত্রিফলার আক্রমণে জিরোনাকে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে রিয়াল। শিরোপা জয়ের পথে যে ম্যাচটা সবচেয়ে কঠিন ভাবা হচ্ছিল সেটাই তারা জিতল অনায়াসে।

এই তিনজনের সঙ্গে কিলিয়ান এমবাপ্পে যোগ দিলে কী দাঁড়াবে ব্যাপারটা? কোচ কার্লো আনচেলোত্তিকে প্রশ্নটা করতেই তার জবাব, ‘‘আপনারা এমন একজন সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করে চলেছেন, যে অন্য দলে খেলে। আমাদের দলে এরই মধ্যে বিশ্বের সেরা খেলোয়াড় আছে (ভিনিসিয়ুস)। সে যখন এভাবে খেলে, তখন সে বিশ্বসেরা। এটা আমার ব্যক্তিগত অভিমত।’’

আনচেলোত্তি মনে করেন বিশ্বের সেরা ছয় ফুটবলার এখন তার দলে। তাদের নামও জানালেন তিনি, ‘‘বেলিংহাম দ্বিতীয় আর তৃতীয় বিশ্বসেরা রোদ্রিগো। এরপর আসবে ক্রুস, ভালভের্দে ও কামাভিঙ্গা।’’

ভিনিসিয়ুস, রোদ্রিগো, বেলিংহামের ত্রিফলা নিয়ে আলাদাভাবে না বললেও তাদের সময়ের সেরা তিন খেলোয়াড়ই মনে করেন আনচেলোত্তি। এই মৌসুমে বেলিংহাম লা লিগার ২১ ম্যাচে গোল করেছেন ১৬টি, অ্যাসিস্ট ৩টি। একবিংশ শতাব্দীতে রিয়ালের প্রথম মিডফিল্ডার হিসেবে লা লিগায় ১৫ বা বেশি গোলের রেকর্ডটা বেলিংহামের।

রোদ্রিগোর গোল ৮ আর ভিনিসিয়ুসের ৭টি। দুজনেরই অ্যাসিস্ট সমান ৪টি করে। জিরোনার বিপক্ষে গোলের দেখা পেয়েছেন তিনজনই। আর গোলের পর বুকে থাকা রিয়ালের লোগোতেও খেয়েছেন চুমু্, যা দেখে ক্লাব প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্তিনো পেরেজের সন্তুষ্টি, ‘‘ওরা নিজেদের মাদ্রিদের ঘরের ছেলে মনে করে।’’

২০০২-০৩ মৌসুমে লা লিগায় রোনালদো, ফিগো, জিদানের গোল ছিল ৪২টি।

রোনালদো, বেনজেমা ও বেলের রেকর্ড স্পর্শ করতে অবশ্য অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে এই ত্রয়ীকে। ২০১৩-১৪ মৌসুম থেকে একসঙ্গে তারা জিতেছিলেন চারটি চ্যাম্পিয়নস লিগ। তিনজন মিলে করেছিলেন ৪৪২ গোল। ২০১৪-১৫ মৌসুমে করেছিলেন আবার ১০০ গোল।

এর আগে ফিগো, জিদান ও ব্রাজিলিয়ান রোনালদোদের গ্যালাকটিকো বলা হত রিয়ালে। ২০০১-০২ মৌসুমে রিয়ালের বহুদিনের চ্যাম্পিয়নস লিগ খরা কাটিয়েছিলেন জিদান ও ফিগো। রোনালদো যোগ দেন পরের মৌসুমে। ২০০২-০৩ মৌসুমে এই ত্রয়ী জিতেন লা লিগা। সেই মৌসুমে রোনালদো লা লিগায় করেছিলেন ২৩ গোল, ফিগো ১০ ও জিদান ৯ গোল।

এই মৌসুমে লা লিগায় বেলিংহাম, রোদ্রিগো, ভিনিসিয়ুসের গোল ৩১টি।

তিনজনের গোল ছিল ৪২টি। এই মৌসুমে ২৪ ম্যাচ শেষে বেলিংহাম, ভিনিসিয়ুস ও রোদ্রিগোর লা লিগায় গোল ৩১টি। রোনালদো, ফিগো, জিদানদের রেকর্ড থেকে খুব বেশি দূরে নন তারা। এজন্যই আনচেলোত্তি সময়ের সেরা তিন খেলোয়াড় ভাবছেন এই ত্রয়ীকে।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist