Beta
সোমবার, ৪ মার্চ, ২০২৪

সাত মাসে সর্বোচ্চ রেমিটেন্স এলো জানুয়ারিতে

প্রবাসী আয়ের প্রবাহ ঊর্ধ্বমুখী ধারায় রয়েছে গত ৩-৪ মাস ধরে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে বাংলাদেশিরা জানুয়ারি মাসে ২১০ কোটি ডলারের সমপরিমাণ রেমিটেন্স পাঠিয়েছেন, যা গত সাত মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ।

বৃহষ্পতিবার প্রকাশিত বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনে দেখা যায়, জানুয়ারি মাসে মোট রেমিটেন্স এসেছে ২১০ কোটি ১০ লাখ ডলার।

প্রবাসী আয় বা রেমিটেন্স সবশেষ ২০০ কোটি ডলারের ঘর অতিক্রম করেছিল ২০২৩ সালের জুনে। ওই মাসে রেমিটেন্স এসেছিল ২১৯ কোটি ৯০ লাখ ডলার।

এর পরের মাসগুলোতে আর কখনোই রেমিটেন্স একক মাসে ২০০ কোটি ডলার ছাড়ায়নি। এরপর সবচেয়ে বেশি রেমিটেন্স এসেছিল গত ডিসেম্বরে, ১৯৮ কোটি ৯৮ লাখ ডলার। তার আগের মাস নভেম্বরে ১৯৩ কোটি ডলার রেমিটেন্স এসেছিল।

এরও আগের মাস অক্টোবরে ১৯৭ কোটি ১৪ লাখ ডলার, সেপ্টেম্বরে ১৩৩ কোটি ৪৩ লাখ ডলার, আগস্টে ১৫৯ কোটি ৯৪ লাখ ডলার ও জুলাইয়ে ১৯৭ কোটি ৩১ লাখ ডলার রেমিটেন্স এসেছিল।

বর্তমানে রেমিটেন্সে ২.৫ শতাংশ প্রণোদনা দিচ্ছে সরকার। এর সঙ্গে কোনও কোনও ব্যাংক আরও ২.৫ শতাংশ প্রণোদনা যোগ করে মোট ৫ শতাংশ প্রণোদনা দিচ্ছে।

তাছাড়া ডলারের বিপরীতে টাকার মান বাড়ায় রেমিটেন্স ভাঙিয়ে আগের থেকে বেশি টাকা পাচ্ছেন প্রবাসীদের স্বজনরা। ফলে সামগ্রিকভাবে রেমিটেন্স কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী ধারায় রয়েছে গত ৩-৪ মাস ধরে।

২০২৩ সালে সব মিলিয়ে দেশে রেমিটেন্স এসেছে ২ হাজার ১৯০ কোটি ডলার। ২০২২ সালে এসেছিল ২ হাজার ১৩০ কোটি ডলার। অর্থাৎ ২০২৩ সালে রেমিটেন্স বেড়েছে প্রায় ৩ শতাংশ।

এর আগে ২০২১ সালে ২ হাজার ২০৭ কোটি ডলার, ২০২০ সালে ২ হাজার ১৭৩ কোটি ডলার ও ২০১৯ সালে ১ হাজার ৮৩৩ কোটি ডলারের রেমিটেন্স আসে।

এই হিসাবে গত পাঁচ বছরের মধ্যে ২০২৩ সালে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রেমিটেন্স দেশে এসেছে।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist