Beta
বৃহস্পতিবার, ৩০ মে, ২০২৪
Beta
বৃহস্পতিবার, ৩০ মে, ২০২৪

দেখুন এই ৫ সিনেমা যেখানে আছে রোমাঞ্চকর সূর্যগ্রহণের দৃশ্য

প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি
Picture of সকাল সন্ধ্যা ডেস্ক

সকাল সন্ধ্যা ডেস্ক

পূর্ণ সূর্যগ্রহণ নিয়ে সারাবিশ্বেই চলছে তোলপাড়। সূর্যগ্রহণের এই দিনে দেখে নিতে পারেন দারুণ কিছু সিনেমা। যেখানে পরিচালকের মুন্সিয়ানায় সূর্যগ্রহণ প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠেছে গল্পে।   

অ্যাভাটার: দ্য ওয়ে অফ ওয়াটার (২০২২)

জেমস ক্যামেরনের এই সিনেমার চরিত্ররা সূর্যগ্রহণকে প্রকৃতির এক বিশেষ ঘটনা হিসেবে দেখে। যা কিনা প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মে ঘটায় ব্যত্যয়। অবশ্য সূর্যগ্রহণকে বিশেষ কিছু মনে করার এই ধারণা প্রাচীনকাল থেকেই চলে আসছে।

সিনেমায় দৃশ্যায়িত শেষ যুদ্ধটি সংঘটিত হয় সূর্যগ্রহণের সময়।   

ক্যানেটিকেট ইয়াঙ্কি ইন কিং আর্থার্স কোর্ট (১৯৪৯)

মার্ক টোয়াইনের ১৮৮৯ সালের উপন্যাস ‘আ ক্যানেটিকাট ইয়াঙ্কি ইন কিং আর্থার্স কোর্ট’ অবলম্বনে এই কমেডি ঘরানার ফিল্মটি নির্মাণ করা হয়। সিনেমার প্রধান চরিত্র হ্যাংক মার্টিন। মাথায় আঘাত পাওয়ার পর যে কিনা নিজেকে আবিষ্কার করে ৫২৮ খ্রিষ্টাব্দের ব্রিটেনে। যেখানে চলছিল রাজা আর্থারের শাসন।

ক্যানেটিকেট রাজ্যের বাসিন্দা হ্যাংক মার্টিন ছিলেন পেশায় একজন মেকানিক। ঘটনাক্রমে রাজা আর্থারের সাম্রাজ্যের একজন নাইট স্যাগরামোর তাকে আটক করে গারদেপাঠায়। অভিযোগ ছিল, হ্যাংক নাকি ছদ্মবেশি ড্রাগন।

যদিও নিজের কারিগরি এবং আধুনিক জ্ঞান দিয়ে সবাইকে চমকে দেন হ্যাংক। এমনকি সূর্গ্রহণকে তার অতিপ্রাকৃত ক্ষমতা দাবি করে কোর্টকে বিশ্বাস করিয়ে ফেলে সে। আর এতে মুক্তি ঘটে তার।

ডলোরেস ক্লেইবোর্ন (১৯৯৫)

টেইলর হ্যাকফোর্ডের ক্রাইম থ্রিলার ‘ডলোরেস ক্লেইবোর্ন’। সিনেমার প্রধান চরিত্র ‘ডলোরেস’ সূর্যগ্রহণের সময়কে ব্যবহার করে তার স্বামী জো সেইন্ট জর্জকে হত্যা করে ।

সিনেমায় দেখানো হয়, জো’র ভূমিকায় অভিনয় করা ডেভিড স্ট্রাথাইর্ন ডলোরেসকে তাড়া করার সময় সূর্যগ্রহণ শুরু হয়। আর এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে ডলোরেস বাড়ির জংলা উঠোনে দৌড়ে জো’কে নিয়ে যায় এক কূপের কাছাকাছি। সূর্যগ্রহণের কারণে অন্ধকার হয়ে এলে জো সেই কূপে পড়ে যায়।  

লিটল শপ অফ হররস (১৯৮৬)

ফ্রাঙ্ক ওজের আমেরিকান কমেডি হরর ফিল্মে প্রাসঙ্গিকভাবে উঠে আসে সূর্যগ্রহণের বিষয়টি।

এর প্রধান চরিত্র সিমোর, কাজ করতো একটি ফুলের দোকানে। দোকানটি যখন একেবারেই চলছিলনা ঠিক তখন, সিমোর খুঁজে পায় এক অদ্ভূত চীনা ফুল গাছ যার জন্ম সূর্যগ্রহণের সময়। যার নাম সে দেয়- ‘ওড্রি টু’। রহস্যময় এই ফুলগাছটি বাড়তে থাকে খুবই দ্রুত আর তার খাবার ছিল মানুষের রক্ত। সিমোর গাছটিকে খেতে দিতো নিজের রক্ত। তবে ‘ওড্রি টু’ আসলে কোন ফুল গাছ ছিল না! কি ছিল জানতে হলে দেখতে হবে সিনেমাটি।

দ্য টোয়াইলাইট সাগা: এক্লিপস (২০১০)

‘দ্য টোয়াইলাইট সাগা:এক্লিপ্স’ ডেভিড স্লেড পরিচালিত রোমান্টিক ফ্যান্টাসিধর্মী সিনেমা। এই সিনেমার দ্বিতীয় সিক্যুয়েলেই এর অন্যতম প্রধান চরিত্র অ্যাডওয়ার্ড গায়েব হয়ে যায়। যদিও এই (তৃতীয় সিকুয়েল) সিকুয়েলেই সে ফিরে আসে।

সিনেমায় অ্যাডওয়ার্ডের ফিরে আসা নিয়ে সৃষ্টি হয় প্রবল উত্তেজনা। কারণ স্ত্রী বেলার ভালোবাসার জন্য লড়াই করতে হচ্ছিল তাকে।

আর অ্যাডওয়ার্ডের এই লড়াইকে প্রতীকিভাবে উপস্থাপন করা হয় পূর্ণ সূর্যগ্রহণের মাধ্যমে।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত