Beta
সোমবার, ৪ মার্চ, ২০২৪

চায়ের বিল চাওয়ায় কিশোরকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

চা খাওয়ার পরে বিল চাওয়ায় এক কিশোরকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে সংঘবদ্ধ একটি চক্রের বিরুদ্ধে। প্রাণ হারানো ওই কিশোরের নাম আলাউদ্দিন (১৫)। এ ঘটনার সময় আহত হয়েছেন আরও ২ নারী।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ২টার দিকে কক্সবাজার শহরের সমিতিপাড়া বাজারে এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কায়সার হামিদ।

নিহত আলাউদ্দিন এলাকার মো. ইমরানের ছেলে। আহত দুই নারী আলাউদ্দিনের দাদী নুর জাহান বেগম (৫০) ও ফুফু হুমাইরা আক্তার (২৮)।

নিহতের বাবা ইমরান জানান, এলাকায় তাদের চায়ের দোকান। সেখানে প্রায়ই রাতে চা খেতে আসে একটি চক্রের কয়েকজন সদস্য। বৃহস্পতিবার রাতেও তারা চা খেয়ে বিল না দিয়ে চলে যেতে চায়।

এ সময় চায়ের বিল চাইলে তারা মাকে (নুরজাহান বেগম) মারধর করে। মাকে রক্ষা করতে ছোট বোন (হুমাইরা) এগিয়ে গেলে তাকেও মারধর করা হয়। পরে ছেলেকেও মারধর করা হয়। এতে ঘটনাস্থলে মারা যায় আলাউদ্দিন।

ইমরানের অভিযোগ, এলাকার মো. মুবিন, ফজল করিম, আবুল হাসান ও মেহেদিসহ কয়েকজন এ ঘটনা ঘটিয়েছে। ঘটনার সময় এলাকাবাসী মুবিনকে আটক করে বলেও জানান তিনি।

খবর পেয়ে রাত ৩ টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। এলাকাবাসী তখন মুবিন তাদের হাতে সোপর্দ করে।

কক্সবাজার সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কায়সার হামিদ জানান, নিহতের মরদেহ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনায় জড়িত একজনকে র‌্যাবের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে বলে জানা গেছে। তবে তাকে এখনও পুলিশের কাছে দেয়নি র‌্যাব। অন্যদের ধরতে অভিযান চলছে।

পর্যটকের মৃত্যু

কক্সবাজার ভ্রমণে আসা এক পর্যটকের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। প্রাণ হারানো পর্যটক গাজী এম শওকত হাসান (৫০) সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ছিলেন। তিনি কুমিল্লার দূর্গাপুরের আশোকতলা এলাকার প্রয়াত গাজী মোস্তফার ছেলে।

ট্যুরিস্ট পুলিশের কক্সবাজার জোনের অতিরিক্ত উপ মহাপরিদর্শক (এডিআইজি) মো. আপেল মাহমুদ জানিয়েছেন, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে সীগাল হোটেলে অসুস্থ হয়ে পড়েন এই পর্যটক। হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা মো. আশেকুর রহমান জানান, হাসপাতালে আনার আগেই এই পর্যটকের মৃত্যু হয়েছে। শরীরে আঘাতের কোনও চিহ্ন না থাকলেও মৃত্যুর কারণ পরিষ্কার না। ময়নাতদন্তের পর কারণ জানা যাবে।

এডিআইজি মো. আপেল মাহমুদ জানিয়েছেন, মরদেহ কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে রয়েছে। এ ব্যাপারে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist