Beta
মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০২৪
Beta
মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০২৪

ভান্ডারি না থাকাতেই কপাল পুড়ল নেপালের

সাবিত্রা ভান্ডারি খেলতে পারেননি গুরুত্বপূর্ণ ফাইনালে। ছবি: সংগৃহীত।
সাবিত্রা ভান্ডারি খেলতে পারেননি গুরুত্বপূর্ণ ফাইনালে। ছবি: সংগৃহীত।
Picture of ক্রীড়া প্রতিবেদক

ক্রীড়া প্রতিবেদক

পুরো টুর্নামেন্ট জুড়েই দুর্দান্ত খেলল নেপাল। টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতা নেপালের সাবিত্রা ভান্ডারি। করলেন ৯ গোল। নিশ্চিতভাবে ফাইনালেও তিনি খেলবেন। তার পায়ের যাদুতে প্রথমবার ওয়েস্ট এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশন নারী চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নেওয়া নেপালও জিতবে আন্তর্জাতিক শিরোপা। এমনটাই আশা ছিল নেপালিদের।

কিন্তু ভান্ডারি খেলতে পারলেন না গুরুত্বপূর্ণ ফাইনালে! নেপালেরও জেতা হলো না স্বপ্নের ফাইনাল।

সৌদি আরবের জেদ্দায় প্রিন্স আবদুল্লাহ আল ফয়সাল স্পোর্টস সিটি স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার রাতে নখ কামড়ানো ফাইনালে জর্ডানের কাছে টাইব্রেকারে হেরেছে নেপাল। নির্ধারিত সময়ে ২-২ গোলে সমতা ছিল ম্যাচটি।

চোট ছিল না ভান্ডারির। তারপরও কেন খেলতে পারলেন না? গোলনেপালডটকম ওয়েবসাইট জানাচ্ছে, ফিফার ক্লাব ফুটবলের নিয়মের গ্যাড়াকলে পড়ে ভান্ডারি ফাইনালে খেলতে পারেননি।

শেষ মুহূর্তের পেনাল্টিতে সমতায় ফেরার আনন্দ নেপালের। ছবি: সংগৃহীত।

ভান্ডারি ক্লাব ফুটবলে খেলেন ফ্রান্সের এন এভান্ট ‍গুইগাম্পে। নিয়ম হচ্ছে, ক্লাবের চুক্তি অনুসারে শুধু ফিফা উইন্ডোর মধ্যেকার সময়েই তিনি দেশের হয়ে যে কোনও টুর্নামেন্টে অংশ নিতে পারবেন। কিন্তু যেহেতু ফিফা উইন্ডো শেষ হয়ে গেছে ফাইনালের আগের দিন। আর তাই ভান্ডারিকেও ফাইনাল না খেলে ফিরে যেতে হয়েছে ফ্রান্সে, নিজের ক্লাবে।

যদিও যাওয়ার আগে দলকে শুভকামনা জানিয়ে বলেছিলেন, “আমার চুক্তিকে সম্মান জানাতে হবে এবং ফিরে যেতে হবে। কিন্তু বিশ্বাস করি আমাদের দল ছন্দ ধরে রেখে ফাইনাল জিতে তবেই শিরোপা নিয়ে বাড়ি ফিরবে।”

ভান্ডারির সেই আস্থার প্রতিদান দিতে পারেননি সতীর্থরা। অথচ কি দুর্দান্ত শুরু করেছিল তারা। শুরুতে ১-০ ব্যবধানে এগিয়েও গিয়েছিল সবিতা রানা মাগারের গোলের সুবাদে। কিন্তু সেই গোল শোধ তো করলোই জর্ডান। উল্টো ২-১ করে ম্যাচের ৮৯ মিনিটে। পেনাল্টি পেয়ে নাটকীয়ভাবে ম্যাচে ফেরে নেপাল ৯০ মিনিটে। পেনাল্টি থেকে ২-২ করে নেপাল।

কিন্ত টাইব্রেকার ভাগ্যটা নিজেদের করে নিতে পারেনি। শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে ৫-৩ গোলে হেরেছে।

ও হ্যাঁ, বলাই হয়নি। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে মেয়েদের ফুটবলে নেপাল ১০৫, জর্ডান ৭৪তম। এর ওপর টুর্নামেন্টের সাবেক চ্যাম্পিয়নও ছিল জর্ডানই। সেই শক্তিশালী দলটার বিপক্ষেও যে এত অসাধারণ ফুটবল উপহার দিল নেপালের মেয়েরা, সেটাই বা কম কিসে!

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত