Beta
রবিবার, ৩ মার্চ, ২০২৪

পাহাড়ে ফের খুন

রাঙামাটির সাজেক এলাকা। ছবি : সকাল সন্ধ্যা

রাঙামাটির বাঘাইছড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ) দুই সদস্য নিহত হয়েছেন।

রবিবার দুপুরে রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার মাচালং বাজার ব্রিজপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

এর আগে গত ডিসেম্বর ও জানুয়ারিতে খাগড়াছড়িতে একই দলের আরও ৬ জন নিহত হন।

রবিবার ইউপিডিএফের দুজন নিহতের বিষয়ে জানতে চাইলে সাজেক ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান অতুলাল চাকমা বলেন, “ইউপিডিএফ প্রসিত দলের দুজন গুলিতে মারা গেছেন। আমি ঘটনাস্থলে আছি।”

দুপুরে ইউপিডিএফ মুখপাত্র অংগ্য মারমা বলেন, “মাচালংয়ে আমাদের পার্টির দুইজন সদস্য মারা গেছেন। নাম-পরিচয় এখনও নিশ্চিতভাবে জানতে পারিনি। আমরা বিবৃতিতে ঘটনা তুলে ধরব।”

এ বিষয়ে জানতে চাইলে দুপুরে রাঙামাটির পুলিশ সুপার মীর আবু তৌহিদ বলেন, “বাঘাইছড়ির মাচালং এলাকায় নিহতের খবর শুনেছি। কেউ বলছে একজন, কেউ বলছে দুজন। তবে আমরা এখনও এটি নিশ্চিত হতে পারিনি।”

তবে বিকেল ৫টার দিকে এ বিষয়ে আবারও জানতে চাইলে পুলিশ সুপার তৌহিদ বলেন, “লাশ দুইটি উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য খাগড়াছড়ি জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে।

“এ ঘটনায় মামলা হবে। ঘটনায় যারা জড়িত রয়েছে তাদের গ্রেফতার করা হবে।”

রাঙামাটিতে দুই সদস্য গুলিতে নিহতের ঘটনায় বিকেলে বিবৃতি দেয় ইউপিডিএফ।

গণমাধ্যমে পাঠানো বিবৃতিতে জানানো হয়, যে দুজন নিহত হয়েছেন তারা হলেন- ইউপিডিএফ সদস্য দীপায়ন চাকমা (৩৮) ও আশুক্য চাকমা ওরফে আশীষ (৪৫)। নিহত দীপায়ন চাকমা ৩৬ নম্বর সাজেক ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের এগুজ্জেছড়ি গ্রামের মৃত অনিল বরণ চাকমার ছেলে। আশুক্য চাকমা ৩৪ নম্বর রূপকারী ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মোরঘোনা গ্রামের মৃত শান্তি কুমার চাকমার ছেলে।

বিবৃতিতে ইউপিডিএফ রাঙ্গঙমাটি জেলা সংগঠক সচল চাকমা দুই ইউপিডিএফ সদস্যকে হত্যার ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

এ ঘটনায় সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতিকে (পিসিজেএসএস) দায়ী করেছে ইউপিডিএফ।

বিবৃতিতে ইউপিডিএফ সংগঠক সচল চাকমা বলেন, “আজ (রবিবার) দুপুর ১২টায় জেএসএস সন্তু গ্রুপের সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা সাজেক ইউনিয়নের মাচালং ব্রিজ পাড়ায় একটি দোকানে এসে অতর্কিতভাবে ইউপিডিএফের দুই সদস্যের ওপর সশস্ত্র হামলা চালায়।”  

তবে এ অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) বাঘাইছড়ি থানার সাংগঠনিক সম্পাদক ত্রিদিব চাকমা বলেন, “সাজেকে জেএসএসের সাংগঠনিক কোনও কার্যক্রম নেই। ইউপিডিএফের অভিযোগ ভিত্তিহীন।”

দুই মাসে ৮ খুন

রবিবারের ঘটনা নিয়ে গত দুই মাসে ইউপিডিএফ প্রসিত গ্রুপের ৮ জন গুলিতে নিহত হয়েছেন।

এর আগে গত ১১ ডিসেম্বর খাগড়াছড়ির পানছড়ি উপজেলার লোগাং ইউনিয়নের অনিলপাড়ায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে ইউপিডিএফের চার নেতা নিহত হয়।

এরপর গত ২৪ জানুয়ারি খাগড়াছড়ির মহালছড়ি উপজেলায় আরও দুজন গুলিতে নিহত হন।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist