Beta
সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্যিক জাহাজে হামলার দাবি হুতিদের

ছবি : বিবিসি

লোহিত সাগরে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্যিক জাহাজে আবারও হামলা চালানোর দাবি জানিয়েছে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা। তারা বলছে, যুক্তরাষ্ট্র পরিচালিত জাহাজটির নাম ‘কই’ (KOI)।

মেরিটাইম সিকিউরিটি ফার্ম অ্যামব্রে বলছে, তারা ইয়েমেনের এডেন বন্দরের দক্ষিণে অবস্থান করা একটি জাহাজে বিস্ফোরণের খবর পেয়েছে। তবে এর নাম সম্পর্কে এখনও তারা নিশ্চিত নন।

এদিকে, লোহিত সাগরে জাহাজ লক্ষ্য করে হামলা চালানোর জন্য ইয়েমেন প্রস্তুত রাখা ১০টি ড্রোন বিমান হামলা চালিয়ে ধ্বংস করার কথা জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

ইতোমধ্যে ইয়েমেনকে লক্ষ্য করে যুক্তরাষ্ট্র নতুন বিমান হামলা শুরু করেছে। লক্ষ্যবস্তু নির্ধারণ করে ১০টি ড্রোন উৎক্ষেপণের জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে।

রয়টার্সের বরাত দিয়ে বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানায়, হুতিদের হামলার শিকার জাহাজ ‘কই’ লাইবেরীয় পতাকাবাহী কন্টেইনার জাহাজ। এটি পরিচালনা করে যুক্তরাজ্যভিত্তিক কোম্পানি ওশেওনিক্স সার্ভিসেস।

এর আগেও কোম্পানিটির জাহাজ হুতিদের আক্রমণের শিকার হয়েছে। গত শনিবার তাদের তেল ট্যাঙ্কার ‘মার্লিন লুয়ান্ডা’ হুতিদের ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

গাজায় ইসরায়েলের চলমান হামলাকে কেন্দ্র করে হামাসকে সমর্থন দিতে লোহিত সাগরে ইসরায়েল, যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের জাহাজ লক্ষ্য করে একের পর এক হামলা চালাচ্ছে হুতি বিদ্রোহীরা। অন্যদিকে এই হামলা বন্ধে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য হুতিদের অবস্থান লক্ষ্য করে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাচ্ছে। তারা বলছে, এর মাধ্যমে বৈশ্বিক বাণিজ্য সুরক্ষিত করার চেষ্টা চালাচ্ছে তারা।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, লোহিত সাগরে পরিবহন জাহাজে হুতিদের হামলা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যকে অনেকটা ধীর করে দিয়েছে। এতে পণ্য সরবরাহ কমে যাওয়ার শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা বিভাগের সেন্ট্রাল কমান্ড বলেছে, ইয়েমেনে উৎক্ষেপণের জন্য প্রস্তুত করা যে ১০টি ড্রোন তারা ধ্বংস করেছে, সেগুলো এই অঞ্চলের বাণিজ্যিক জাহাজ ও আমেরিকান যুদ্ধজাহাজের জন্য হুমকি তৈরি করেছিল।

যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্যিক জাহাজে হামলার বিষয়ে হুতির সামরিক মুখপাত্র ইয়াহিয়া সারিয়া বুধবার বলেন, “যতক্ষণ না ইয়েমেনের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের আগ্রাসন বন্ধ হবে, ততক্ষণ লোহিত ও আরব সাগরে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের জাহাজ ইয়েমেনি সশস্ত্র বাহিনীর জন্য বৈধ লক্ষ্যবস্তু হিসেবে থাকবে।”

আরব ও লোহিত সাগরের সংযোগস্থলে কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ জলপথ বাব আল-মান্দেব প্রণালীতে দুই মাস ধরেই হুতি বিদ্রোহীদের হামলা চলছে। ফলে বিশ্বের বড় শিপিং কোম্পানিগুলো কয়েক সপ্তাহের জন্য সুয়েজ খাল দিয়ে জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখতে বাধ্য হয়। যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য ইয়েমেনে হুতিদের ওপর পাল্টা হামলা চালালে পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। এতে আরও বেশি সংখ্যক জাহাজ লোহিত সাগর এড়িয়ে চলছে।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist