Beta
শনিবার, ১৫ জুন, ২০২৪
Beta
শনিবার, ১৫ জুন, ২০২৪

জনগণকে ‘স্যালুট’ বিএনপির

SS-abdul moin khan-07-01-24
Picture of প্রতিবেদক, সকাল সন্ধ্যা

প্রতিবেদক, সকাল সন্ধ্যা

‘একতরফা’ ভোট বর্জনে দেওয়া ডাক সফল হয়েছে, দাবি বিএনপির। এ ডাকে সাড়া দেওয়ায় ভোটারদের ‘স্যালুট’ জানিয়েছে দলটি।

রবিবার দুপুর পর্যন্ত ভোটের খবরাখবর জেনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান গণমাধ্যমের কাছে এমন প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।

তিনি বলেন, “ছবি কথা বলে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া ছবিতে আপনারা দেখছেন-ভোটকেন্দ্রের সামনে দাঁড়িয়ে-শুয়ে রোদ পোহাচ্ছে কুকুর। সেটি ঢাকা শহরের মেরাদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র। পরিস্থিতি এমনই। সিংহভাগ ভোটকেন্দ্র প্রায় ভোটার শূন্য।

এই নির্বাচন বাংলাদেশের মানুষ বর্জন করেছে এমন দাবি করে তিনি বলেন, “আজ আমি জনগণকে শুধু বিএনপি নয়, এই প্রহসনের নির্বাচনকে বর্জন করা ৬২টি রাজনৈতিক দলের পক্ষ থেকে স্যালুট জানাব। কারণ, বাংলাদেশের মানুষ গণতন্ত্রের প্রশ্নে কোনও দিন আপোষ করেনি, এবারও করবে না।”

ভোট বর্জনের আন্দোলন সফল হয়েছে কিনা – এমন প্রশ্নে আবদুল মঈন খান বলেন, “নিশ্চয়ই সফল হয়েছে। এখানে আমি স্পষ্ট করে দিতে চাই, শুধু রাস্তায় দাঁড়িয়ে আওয়ামী লীগ যে লগি-বৈঠার আন্দোলন করে সেই আন্দোলন আমরা করি না। আমাদের কাছে অনেকে অভিযোগ করেছে, আপনারা এই শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করে আওয়ামী লীগকে সরাতে পারবেন না। কারণ তারা এমন একটি রাজনৈতিক দল যাদের কার্যপদ্ধতি ও প্রক্রিয়া বিভিন্ন রকম।”

ভোটের দিনে বিএনপির ডাকা হরতাল সফল হয়েছে বলেও দাবি বিএনপির এই নেতার।

আবদুল মঈন খান বলেন, “হরতাল না হলেও ভোটকেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি এমন হতো না। আগামীকাল দেখবেন কোন কেন্দ্রে কত ভোট পড়ে। তাহলে বুঝবেন মানুষ ভোটকেন্দ্রে গেল না কেন? কত শতাংশ ভোট পড়েছে এটা সরকার করতে পারে, সরকার করুক। সরকার পাঁচ শতাংশ বলতে চাইলে ৫ বলবে, ৫০ শতাংশ বলতে চাইলে ৫০ বলবে, ৯৯ শতাংশ চাইলে ৯৯ বলবে, এমনকি ২০১৪ সালের নির্বাচনের মতো একটি কেন্দ্রে একশ পাঁচ শতাংশও বলতে পারে। সেটা আমাদের কনসার্ন না।”

নিজেদের পরবর্তী কর্মসূচির বিষয়ে তিনি বলেন, “কী ভোট হচ্ছে সেটা সারা বিশ্ব দেখছে, বাংলাদেশের মানুষ দেখছে। বাংলাদেশের মানুষ শুধু ‘হোয়াট ইজ নেক্সট’ জানতে চায় না। বাংলাদেশের মানুষ কথা বলতে চায়, ভোট দিতে চায়, এদেশে গণতন্ত্র দেখতে চায়। আমরা মানুষের পক্ষে আন্দোলন করে যাচ্ছি। ইনশাল্লাহ আমরা এই তিনটি জিনিস এদেশের মানুষকে ফিরিয়ে দেব।”

আবদুল মঈন খান বলেন, “বিএনপির সমর্থকদের আজকে ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার কোনও প্রশ্নই আসে না। আওয়ামী লীগের কিছু লোক ভোটকেন্দ্রে যেতে পারে। ছবি দেখলে বুঝবেন কত নগণ্য সংখ্যক কর্মী-সমর্থক গেছে। আওয়ামী লীগের ভোটাররা জানে, আমার প্রার্থীতো বিজয়ী হয়ে গিয়েছেন। খামোখা ভোটকেন্দ্রে গিয়ে টাইম নষ্ট করব কেন? সেই কারণে আজকে ভোটকেন্দ্র ভোটার শূন্য।

“দুপুরে নির্বাচন কমিশন ব্রিফিং করে বলেছে, চার ঘণ্টায় ১৮ দশমিক ৫ শতাংশ কাস্টিং হয়েছে। জানি না, দশমিক কীভাবে হিসাব করে ফেলেছেন? আজ যদি ইসি সংবাদ সম্মেলন করে মিডিয়ার সামনে বলেন, ৯৮ দশমিক ৫ শতাংশ ভোট পড়েছে। তাহলে তার প্রতিবাদের কোনও পথ বাংলাদেশে আছে?”

মঈন খান বলেন, “দেশের জনগণ ভোট দেওয়ার অধিকার ফিরে পেতে চায়। আমরা জনগণের সঙ্গে আছি। এখন পর্যন্ত আমাদের কাছে যে খবর তা হচ্ছে বাংলাদেশে প্রায় ৩০/৪০ হাজার ভোটকেন্দ্র আছে। এর সিংহভাগ কেন্দ্রে ভোটার নেই। আমরা জনগণকে ভোট বর্জন করতে বলেছি। তারা এর যথার্থতা উপলব্ধি করেই নির্বাচন বর্জন করেছে।”

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত