Beta
শুক্রবার, ১ মার্চ, ২০২৪

কাজী সালাউদ্দিনের সঙ্গে দেখা করে যা বললেন নাজমুল হাসান

অসুস্থ বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিনকে দেখতে তার বাসায় যান ক্রীড়ামন্ত্রী নাজমুল হাসান। ছবি: বাফুফে।

‌‌‌অসুস্থ বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিনকে দেখতে মঙ্গলবার গুলশানের বাসায় গিয়েছিলেন যুব ও ক্রীড়ামন্ত্রী নাজমুল হাসান। প্রায় ২০ মিনিট দুজন কথা বলেছেন।  তাদের আলোচনায় ব্যক্তিগত বিষয়ের পাশাপাশি ফুটবলের সঙ্কটের কথাও হয়েছে।

শারীরিক অসুস্থতা ও বিধি নিষেধের জন্য বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন গণমাধ্যমের সামনে আসেননি। বৈঠক শেষে বের হওয়ার পথে ক্রীড়া মন্ত্রী নাজমুল হাসান কথা বলেন।

গত বছর নারী ফুটবলারদের অলিম্পিক বাছাই খেলতে মিয়ানমার পাঠায়নি বাফুফে। ওই সময়ে বিষয়টা নিয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান ও কাজী সালাউদ্দিনের কথার লড়াই হয়েছিল।

 সেই ‌’স্নায়ুযুদ্ধ’ এখন আর নেই। মঙ্গলবার সভা শেষে নাজমুল হাসান বলেন,‌“ এত দিনের সম্পর্ক এক দিনে নষ্ট হয় না।”

ফুটবলার সালাউদ্দিনকে নাজমুল হাসান যথেষ্ট শ্রদ্ধা করেন। সালাউদ্দিনের সঙ্গে সভা শেষে বলেন, “ছোটবেলা মাঠেই যেতাম উনার খেলা দেখতে। উনার মতো কিংবদন্তি ফুটবলার তো দেশে নেই।’ দুই জনই দুটি বড় ফেডারেশনের শীর্ষ পর্যায়ে। কিন্তু এখনও শ্রদ্ধাবোধ আছে তাদের সম্পর্কের মধ্যে, “অনেক কথায় উনি হার্ট (আহত) হতে পারেন, আমি হতে পারি। একটা রিঅ্যাকশন (প্রতিক্রিয়া) দিলাম। সেটা ওখানেই শেষ, কিন্তু সম্পর্ক তো শেষ হবে না।”

কাজী সালাউদ্দিনের সুস্থতা চাইলেন নাজমুল হাসান। ছবি: বাফুফে।

সালাউদ্দিনের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় ফুটবল নিয়ে আলোচনা হবে না, এটা কি হয়? নাজমুল হাসান সেই আলোচনার সার সংক্ষেপ টেনে বলেন, ‘কিছু সমস্যা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। উনি সুস্থ হয়ে একেবারে ফিরলে দেখব, এর মধ্যেও বলেছি কিছু কাগজপত্র পাঠাতে। বিশেষ করে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে যেন আর সময় ক্ষেপণ না হয় এবং বিকল্প খেলার জায়গা করা যায় কিনা সেটাও আমার বিবেচনায় রয়েছে।’

অসুস্থ কাজী সালাউদ্দিনকে আরও আগে দেখতে যাওয়ার কথা ছিল নাজমুল হাসানের। কিন্তু আইসিসির সভার কারণে দেরি হয়েছে।  গত রবিবার দেশে ফিরেছেন। এরপর মঙ্গলবার বাফুফে সভাপতির বাসায় উপস্থিত হন তিনি।

দ্রুতই সুস্থ হয়ে উঠবেন সালাউদ্দিন, এমনাই আশা নাজমুল হাসানের, “তাকে (সালাউদ্দিন) দেখতে যেতে চেয়েছিলাম, তাদের জানাতে বলেছিলাম। আমি আবার এর মধ্যে বাইরে চলে গেলাম। পরশু দিন এসে  ওখান থেকে বললো যে কোন দিন আসতে পারেন। আজ আসছি। আমি তো ডাক্তার না। তবে তাকে দেখে ভালো লাগছে, সুস্থ লাগছে। নিজেই হাঁটাচলা করছেন। এত বড় সার্জারির পর রিহ্যাব করতে হবে। আমার মনে হয় কিছু দিন পর আবার তাকে সব জয়গায় দেখা যাবে।”

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist