Beta
সোমবার, ৪ মার্চ, ২০২৪

হাসপাতাল থেকে ফেরা জোসেফ জেতালেন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে

দুই বছর আগেও তিনি চাকরি করেছেন নিরাপত্তা রক্ষীর। সেই জীবন পেছনে ফেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ জাতীয় দলে জায়গা করে নেওয়াটাই রূপকথার মত। তবে সামার জোসেফ বুঝিয়ে চলেছেন, তিনি থাকতেই এসেছেন জাতীয় দলে।

অভিষেক টেস্টটা ২৪ বছর বয়সী এই ফাস্ট বোলার স্মরণীয় করেছিলেন ৫ উইকেট নিয়ে। ব্রিসবেনে দ্বিতীয় টেস্টেও দলের সেরা পারফর্মার তিনি। মিচেল স্টার্কের ইয়র্কারে ব্যথা পেয়েছিলেন পায়ের আঙুলে। যেতে হয় হাসপাতালে। রবিবার মাঠেই আসার কথা ছিল না তার। অথচ হাসপাতাল থেকে ফিরে আগুন ঝরানো স্পেলে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঐতিহাসিক টেস্ট জেতালেন জোসেফ।

অনভিজ্ঞ ক্যারিবীয়রা ২৭ বছর পর অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে জিতল প্রথম টেস্ট। সর্বশেষ ১৯৯৭ সালে তারা অস্ট্রেলিয়ায় জিতেছিল কার্টলি অ্যামব্রোসের অসাধারণ বোলিংযে। প্রায় তিন দশক পর রুদ্ধশ্বাস দ্বিতীয় টেস্টটা ওয়েস্ট ইন্ডিজ জিতল ৮ রানে। তাতে সিরিজ শেষ হল। ১-১ সমতায়। জয় নিশ্চিতের পর দৌড় থামছিলই না জোসেফের। তার পেছনে তখন পুরো দল।

ধারাভাষ্যে তখন প্রায় কেঁদেই ফেলেছিলেন ব্রায়ান লারা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই দলটাকে বলা হচ্ছিল ‘অস্ট্রেলিয়ার কসাইখানায়’ যাওয়া এক দল ভেড়ার পাল। সেই তাদের জয়টাকেই এখন বলা হচ্ছে টেস্ট ইতিহাসের অন্যতম সেরা।

আগুন ঝড়িয়ে জোসেফ নেন ৭ উইকেট। ২ উইকেটে ১১৩ থেকে অস্ট্রেলিয়া ৮ উইকেটে পরিণত হয় ১৭৫ রানে। দিবারাত্রির টেস্টে দ্বিতীয় সেশন শেষে জয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার দরকার ছিল ২৯ রান আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের ২ উইকেট।

অস্ট্রেলিয়ার আশা হয়ে একটা প্রান্ত আগলে ছিলেন স্টিভেন স্মিথ। অস্ট্রেলিয়ার এই তারকা সেঞ্চুরি পাননি টানা ১৩ ইনিংস। মিডলঅর্ডার থেকে ওপেনিংয়ে উঠে আসা সেই স্মিথই ব্যাট করছিলেন বুক চিতিয়ে। তিনি ৯১ রানে অপরাজিত থেকেও বাঁচাতে পারেননি অস্ট্রেলিয়াকে।

দিনের শেষ সেশনে নাথান লায়নকে ফিরিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের আশা জাগিয়ে তুলেছিলেন আলজারি জোসেফ। সামার জোসেফ ফেরান ১১ নম্বরে নামা জস হ্যাজেলউডকে।

প্রথম ইনিংসে ৩১১ রানে অলআউট হয়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। অস্ট্রেলিয়া তাদের প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে ৯ উইকেটে ২৮৯ রান তুলে। চাইলেই লিড নিতে পারত টেস্টের বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। সেটাই হয়ত পোড়াতে কামিন্সদের। দ্বিতীয় ইনিংসে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অলআউট হয়ে যায় মাত্র ১৯৩ রানে, অস্ট্রেলিয়ার লক্ষ্য দাঁড়ায় ২১৬। স্মিথের বীরত্বের পরও সেটা পেরিয়ে যেতে পারল না তারা।

ক্যারিয়ারে প্রথম টেস্ট সিরিজ খেলতে আসা শামার জোসেফ জিতেছেন ম্যাচ ও সিরিজ সেরার পুরস্কার।

আরও পড়ুন

সর্বশেষ

ad

সর্বাধিক পঠিত

Add New Playlist